সুনীল কর্মকারের (বাঁ দিকে) ভোটার পরিচয়পত্রে ছাপা হয়েছে কুকুরের ছবি।
সুনীল কর্মকারের (বাঁ দিকে) ভোটার পরিচয়পত্রে ছাপা হয়েছে কুকুরের ছবি।

ভোটার কার্ডে নামের পাশে কুকুরের ছবি, কমিশনের বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগ বৃদ্ধের

  • সুনীলবাবুর দাবি, তাঁকে অপমান করার উদ্দেশে ইচ্ছে করেই তাঁর ভোটার পরিচয়পত্রে কুকুরের ছবি ছাপা হয়েছে।

ভোটার পরিচয়পত্রে নিজের নামের সহ্গে কুকুরের ছবি দেখে প্রথমে চমকে উঠেছিলেন। পরে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা ঠোকার সিদ্ধান্ত নিলেন মুর্শিদাবাদবাসী বৃদ্ধ।

মঙ্গলবার নিজের সংশোধিত ভোটার পরিচয়পত্র পেয়েছেন মুর্শিদাবাদের রামনগর গ্রামের বাসিন্দা সুনীল কর্মকার। কিন্তু খাম থেকে ভোটার কার্ড বের করে হতবাক হয়ে যান তিনি। দেখতে পান, তাঁর নামের পাশে একটি কুকুরের ছবি ছাপা হয়েছে পরিচয়পত্রে।

বিরক্ত বছর চৌষট্টির সুনীলবাবু জানিয়েছেন, ‘আমার ভোটার পরিচয়পত্রে কিছু ভুল থাকায় সংশোধিত পরিচয়পত্রের জন্য আবেদন করেছিলাম। সংশোধিত কার্ড পেয়ে দেখি, তথ্য সব ঠিকই রয়েছে, কিন্তু আমার ছবির বদলে ভুল ছবি ছাপা হয়েছে।’

সুনীলবাবুর দাবি, তাঁকে অপমান করার উদ্দেশে ইচ্ছে করেই তাঁর ভোটার পরিচয়পত্রে কুকুরের ছবি ছাপা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘যারা আমার ভোটার পরিচয়পত্র দেখেছে, তারা প্রকাশ্যে ঠাট্টা করছে। নির্বাচন কমিশনকে আমি আদালতে টেনে নিয়ে যাব।’

ভোটার পরিচয়পত্র সংশোধনের কাজে যুক্ত এক সরকারি আধিকারিক জানিয়েছেন, ভোটার কার্ডের এই ভুল আগেই ধরা পড়েছিল। কিন্তু কী কারণে তা সংশোধন করা হয়নি, সে বিষয়ে তিনি কোনও আলোকপাত করতে পারেননি।

তাঁর কথায়, ‘ভোটার তালিকার খসড়া প্রকাশিত হওয়ার পরে আমরা কুকুরের ছবিটি লক্ষ্য করেছিলাম। সুনীল কর্মকারের বাড়ি থেকে ওঁর ছবিও সংগ্রহ করে এনেছিলাম। কিন্তু তার পরেও কী ভাবে ওঁর বদলে কুকুরের ছবি পরিচয়পত্রে ছাপা হল, সে সম্পর্কে কোনও ধারণা নেই।’

ফরাক্কার বিডিও রাজর্ষি চক্রবর্তী জানিয়েছেন, সুনীল কর্মকারের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রশাসনিক স্তরে অনুসন্ধান করা হবে। তিনি জানান, ‘ওঁকে নতুন ভোটার পরিচয়পত্র দেওয়া হবে। এই কাজে জড়িত সরকারি কর্মীদের শো কজ করা হবে।’

বন্ধ করুন