ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

আসানসোলে তৃণমূলের হামলার মুখে প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা iPac-এর কর্মীরা

  • তৃণমূলের অন্দরের খবর, দলে অলোক দাস কোণঠাসা। তাঁর অনুমান, প্রশান্ত কিশোরের লোকজনই তাঁকে জায়গা পেতে দিচ্ছেন না। তাই তাদের ওপর হামলা করতে যান তিনি।

এবার তৃণমূলের হামলার মুখে প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা আইপ্যাকের সদস্যরা। রবিবার সকালে ‘বাংলার গর্ব মমতা’ কর্মসূচির তদারকিতে গিয়ে পশ্চিম বর্ধমানের আসানসোলে তৃণমূল নেতাকর্মীদের একাংশের আক্রমণের শিকার হন তাঁরা। তৃণমূলের আরেকটি অংশ কোনওক্রমে তাদের রক্ষা করেন। ঘটনা নিয়ে শোরগোল পড়েছে জেলায়। তদন্তে নেমেছে শাসকদলের জেলা নেতৃত্ব।

রবিবার সকালে আসানসোল লাগোয়া জামুড়িয়ায় ছিল জামুড়িয়া বিধানসভা কেন্দ্রের ‘বাংলার গর্ব মমতা’ কর্মসূচি। কর্মসূচি ঠিক মতো চলছে কি না তা তদারকি করছিলেন প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা আইপ্যাকের ৫ সদস্য। গাড়িতে স্টিকার সাঁটছিলেন তাঁরা। এরই মধ্যে তাঁদের দিকে তেড়ে আসে তৃণমূল নেতা অলোক দাস ও তাঁর অনুগামীরা। আইপ্যাকের কর্মীদের মারতে উদ্যত হন তাঁরা। তাদের বাধা দেন জামুড়িয়া ১ নম্বর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি মৃদুল চক্রবর্তী।

তৃণমূলের অন্দরের খবর, দলে অলোক দাস কোণঠাসা। তাঁর অনুমান, প্রশান্ত কিশোরের লোকজনই তাঁকে জায়গা পেতে দিচ্ছেন না। তাই তাদের ওপর হামলা করতে যান তিনি। এর আগে ২ বার তৃণমূল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে তাঁকে। জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা আসানসোলের মেয়র জীতেন্দ্র তিওয়ারি বলেন, ‘ঘটনার খবর পেয়েছি। তদন্ত করে পদক্ষেপ করবে দল।’


বন্ধ করুন