বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > লকডাউনে চলে গিয়েছে বাবার চাকরি, নরেন্দ্রপুরে বিষাদে আত্মঘাতী মেধাবী ছাত্র
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

লকডাউনে চলে গিয়েছে বাবার চাকরি, নরেন্দ্রপুরে বিষাদে আত্মঘাতী মেধাবী ছাত্র

  • ষষ্ঠীর রাতে দীর্ঘক্ষণ ঘরের দরজা না খোলায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন মৃন্ময়ের মা। ফোন করেন তাঁর বাবাকে। তখন ঝাড়খণ্ডে ছিলেন তিনি।

লকডাউনে বাবার চাকরি চলে গিয়েছে। কী করে চলবে পড়াশুনার খরচ? এই বিষাদে আত্মঘাতী হলেন এক মেধাবী ছাত্র। নিহত ছাত্রের নাম মৃন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায় (২০)। নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন কলেজের দ্বিতীয় বর্ষে পদার্থ বিদ্যায় স্নাতকের ছাত্র ছিলেন তিনি।

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, লকডাউকে কলেজ বন্ধ থাকায় বিষাদে ভুগতে শুরু করেছিলেন মৃন্ময়। এর মধ্যে হঠাৎ তাঁর বাবার চাকরিটি চলে যায়। মৃন্ময়দের বাড়ি দক্ষিণ কলকাতার গল্ফগ্রিনে হলেও দীর্ঘদিন নরেন্দ্রপুরে ভাড়া বাড়িতেই থাকেন তিনি। বাবার চাকরি চলে যাওয়ার পর থেকে অবসাদ আরও গভীর হয়। কী করে পড়াশুনোর খরচ চলবে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলেন তিনি। অবসাদ কাটাতে মনোবিদের সঙ্গে পরামর্শও করেছিলেন মেধাবী এই ছাত্র। কিন্তু কাজ হল না।

ষষ্ঠীর রাতে দীর্ঘক্ষণ ঘরের দরজা না খোলায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন মৃন্ময়ের মা। ফোন করেন তাঁর বাবাকে। তখন ঝাড়খণ্ডে ছিলেন তিনি। বার বার ফোন করলেও বাবার ফোনও তোলেননি মৃন্ময়। এর পর প্রতিবেশীদের সঙ্গে নিয়ে দরজা ভেঙে ভিতরে ঢোকেন তাঁর মা। দেখেন বিছানায় পড়ে রয়েছে ছেলের নিথর দেহ। হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

উৎসবের মধ্যে মেধাবী এই ছাত্রের আত্মহত্যায় শোকের ছায়া নেমেছে এলাকায়। একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে বিহ্বল বাবা ও মা।

 

বন্ধ করুন