বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > যারা নিজের অবস্থান পরিষ্কার করে না তারা কাপুরুষ, ফের শুভেন্দুকে আক্রমণ কল্যাণের
রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ও তৃণমূলের আইনজীবী সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি
রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ও তৃণমূলের আইনজীবী সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

যারা নিজের অবস্থান পরিষ্কার করে না তারা কাপুরুষ, ফের শুভেন্দুকে আক্রমণ কল্যাণের

  • এদিন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করে বলেন, ‘‌আমাদের কয়েকজন বিধায়ককে এখন ও ফোন করে বিজেপি–তে চলে যেতে বলছে। এটা কিন্তু আমি মানব না।’‌

কোনও রাখঢাক নয়, ফের সরাসরি রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে আক্রমণ করলেন তৃণমূলের আইনজীবী সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার হুগলির বলাগড়ে একটি জনসভা থেকে নাম না করে সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেন্দু বলেছিলেন, ‘‌কোনও বর্তমান জনপ্রতিনিধির কাছ থেকে অশালীন ভাষায় আমাকে বা আমার পরিবারকে ব্যক্তিগত আক্রমণ কাম্য নয়।’‌ তার পরও শনিবার শুভেন্দুকে কটাক্ষ করতে ছাড়লেন না কল্যাণ। শুভেন্দু অধিকারীকে ‘‌বেইমান’‌, ‘‌সুবিধাবাদী’‌ বলে এদিন আক্রমণ করেছেন তৃণমূলের সাংসদ।

‌এদিন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করে বলেন, ‘‌আমাদের কয়েকজন বিধায়ককে এখন ও ফোন করে বিজেপি–তে চলে যেতে বলছে। এটা কিন্তু আমি মানব না। ও যদি নিজেকে খেলোয়াড় মনে করে তা হলে ওকে এটা মাথায় রাখতে হবে যে ‌এই মাঠে ও একা খেলোয়াড় নয়।’‌ শুক্রবার কল্যাণ নাম না করে শুভেন্দুর উদ্দেশে বলেছিলেন, ‘‌দলে থেকে দলের কোনও জনপ্রতিনিধিকে যদি সমালোচনা করে তবে বুঝতে হবে যে অন্য দলের সঙ্গে তাঁর আঁতাত অনেকটা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে।’‌

এদিনও কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় শুভেন্দু অধিকারীর উদ্দেশে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন, ‘‌তিনি নিজের অবস্থার পরিষ্কার করছেন না কেন?‌ যারা নিজের অবস্থান পরিষ্কার করে না তারা কাপুরুষ। শেষপর্যন্ত দলের সমস্ত সুবিধা ভোগ করব তার পর নির্বাচন এলেই দল ছেড়ে চলে যাব। তা হলে তো এরা বেইমান, সুবিধাবাদী।’‌ যদিও শুভেন্দু শুক্রবার বলাগড়ের মঞ্চে পরিষ্কার জানিয়েছিলেন, ‘‌রাজনৈতিক সমালোচনা তো হবেই, সমালোচনার উর্ধ্বে কেউ নই। কিন্তু ব্যক্তিগত আক্রমণ মেনে নেওয়া যায় না।’‌ উল্লেখ্য, এদিনের কল্যাণের আক্রমণের পর শুভেন্দু বা তাঁর অনুগামীদের তরফ খেকে কোনও জবাব আসেনি।

বন্ধ করুন