বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Threat Letter to Judge: CBI আদালতের বিচারককে হুমকি চিঠির ঘটনায় তদন্তে পুলিশ, CJI-র দ্বারস্থ হচ্ছে BJP

Threat Letter to Judge: CBI আদালতের বিচারককে হুমকি চিঠির ঘটনায় তদন্তে পুলিশ, CJI-র দ্বারস্থ হচ্ছে BJP

সিবিআই বিশেষ আদালতের বিচারক রাজেশ চক্রবর্তী

ঘটনা প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হতে চলেছে সিবিআই। পৃথক ভাবে বিজেপিও এই ঘটনা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির কাছে যাচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

আসানসোলের বিশেষ সিবিআই আদালতের বিচারক রাজেশ চক্রবর্তীকে হুমকি চিঠি দেওয়া হয়েছিল গতকাল। দাবি করা হয়, চিঠিটি লিখেছে বাপ্পা চট্টোপাধ্যায় নামে এক ব্যক্তি। যদিও এই নিয়ে সিবিআই তদন্তের দাবি জানাতে চলেছেন স্বয়ং অনুব্রত মণ্ডল। আর এবার এই ঘটনার প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। চিঠিটা কোথা থেকে পাঠানো হয়েছে, প্রাথমিক ভাবে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এদিকে এই ঘটনা প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হতে চলেছে সিবিআই। পৃথক ভাবে বিজেপিও এই ঘটনা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, সিবিআই বিশেষ আদালতের বিচারককে হুমকি চিঠি দেওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে বিজেপির আইনজীবী সেল সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির কাছে যাবে। প্রসঙ্গত, যে হুমকি চিঠি নিয়ে এত কাণ্ড, তাতে লেখা ছিল, অনুব্রত মণ্ডলকে জামিন না দেওয়া হলে বিচারকের পরিবারকে মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়া হবে। এই আবহে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কবির শঙ্কর বসু-সহ তিন জন আইনজীবী প্রধান বিচারপতি সঙ্গে দেখা করার সময় চান। দুপুরে আইনজীবীদের সঙ্গে দেখা করার জন্য সময় দেন প্রধান বিচারপতি এনভি রামানা।

আরও পড়ুন: ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা করেছেন...’, এ কী বললেন অনুব্রত মণ্ডল?

এদিকে এই চিঠি নিয়ে অনুব্রত বলেন, ‘এটা বিজেপি করেছে।’‌ এই কথা তিনি একাধিকবার বলতে থাকেন সংবাদমাধ্যমে। অনুব্রত মণ্ডলের এই মন্তব্য নিয়ে ব্যাপক শোরগোল পড়ে গিয়েছে। কারণ এই চিঠির মাধ্যমে তাঁকে ফাঁসিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে ইঙ্গিত করেন অনুব্রত। অনুব্রত আরও বলেন, ‘আমি জজসাহেবকে বলব। যারা জজসাহেব সম্পর্কে এসব বলেছে। আমি সিবিআই তদন্ত চাইব।’

এদিকে দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের পুলিশও এই গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে। বিচারকের তরফে লিখিতভাবে পুরো বিষয়টা জানানো হয়েছে পুলিশ কমিশানরকে। এর আগে মঙ্গলবার রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী এই চিঠি প্রসঙ্গে বলেছিলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে বিচারপতিরাও সুরক্ষিত নয়। তাই আমি বলব মামলা রাজ্যের বাইরে পাঠানো হোক। বাংলায় জঙ্গল রাজ চলছে।’‌

 

বন্ধ করুন