বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বাংলা দখল নিয়ে দিবস্বপ্ন দেখছেন অমিত শাহ, আগে দলকে সামলাক, কটাক্ষ সৌগত রায়ের
তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ছবি সৌজন্য : পিটিআই
তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ছবি সৌজন্য : পিটিআই

বাংলা দখল নিয়ে দিবস্বপ্ন দেখছেন অমিত শাহ, আগে দলকে সামলাক, কটাক্ষ সৌগত রায়ের

  • সাংসদের কথায়, ‘‌আজ মতুয়া, আদিবাসীদের বাড়িতে খাওয়াদাওয়া করে অমিত শাহ আসলে লোকদেখানো নাটক করছেন। আমাদের দলিত, আদিবাসীরা বোঝেন যে বিজেপি উচ্চবর্ণের পার্টি, বড়লোকদের পার্টি।’‌

বৃহস্পতিবার বাঁকুড়ায় পা রেখেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল সরকারকে পশ্চিমবঙ্গ থেকে উৎখাত করে দেওয়ার ডাক দিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তাঁর দাবি, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে দুই তৃতীয়াংশ আসনে রাজ্যে ক্ষমতায় আসতে চলেছে বিজেপি। যদিও এই মন্তব্যকে অমিত শাহর ‘‌দিবাস্বপ্ন’‌ বলে এদিন কটাক্ষ করেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। তিনি এদিন বলেন, ‘‌অমিত শাহ স্পষ্ট করে কী বললেন তাতে কিছু আসে যায় না। পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলকে সরিয়ে ক্ষমতায় আসবে বিজেপি— ওঁর এই দিবাস্বপ্ন সফল হওয়ার কোনও সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। তিনি যে বলছেন যে দুই তৃতীয়াংশ আসনে জয়লাভ করে ক্ষমতায় আসবে বিজেপি, সেটাও তাঁর দিবাস্বপ্ন।’

মমতা সরকারের মৃত্যুঘণ্টা বেজে গিয়েছে বলে এদিন হুঙ্কার দিয়েছেন অমিত শাহ। এই কথাকে একেবারেই গুরুত্ব দিতে নারাজ সৌগতবাবু। তিনি বলেন, ‘‌পশ্চিমবঙ্গের মানুষ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের সঙ্গে আছেন এবং থাকবেন। এখানে বিজেপি–র কোনও রাজনৈতিক গ্রহণযোগ্যতা হয়নি। অমিত শাহ যা বলেছেন তার কোনও রাজনৈতিক প্রভাবও পড়বে না। পশ্চিমবঙ্গে দলিত, আদিবাসী, গরিবদের স্বার্থ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার দেখছে এবং আগামীতেও দেখবেন।’‌

ভোটে জিতে ক্ষমতায় আসার পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে রাজ্যে সোনার বাংলা গড়বে বিজেপি। বাঁকুড়ায় দাঁড়িয়ে এ কথা বলে এদিন বিজেপি–র লক্ষ্য আরও পরিষ্কার করে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। কিন্তু সে ব্যাপারে সৌগত রায় কটাক্ষ করে বলেন, ‘‌ওঁরা ক্ষমতাই পাবেন না, সোনার বাংলা কী করে তৈরি করবেন!‌’‌ তাঁর প্রশ্ন, ‘‌বিজেপি যে সব রাজ্যে ক্ষমতায় রয়েছে সেখানে কি সোনার রাজ্য তৈরি হয়েছে?‌’‌ উত্তরপ্রদেশ, গুজরাট আর কর্নাটকের উদাহরণ এদিন তুলে ধরেন তৃণমূল সাংসদ। তিনি বলেন, ‘‌অমিত শাহ নিজের পার্টিকে সামলাক। ওরা যেভাবে নিজেদের মধ্যে লড়াই–ঝগড়া করছে, আগামী দিনে নিজেদের মধ্যেই খুনোখুনি লেগে যাবে।’‌

এদিন ব্যস্ত কর্মসূচির মধ্যেই বাঁকুড়ার চতুরডিহি গ্রামের বাসিন্দা আদিবাসী বিভীষণ হাঁসদার বাড়িতে গিয়ে মধ্যাহ্নভোজ সারবেন অমিত শাহ। যা আসলে ‘‌‌লোকদেখানো নাটক’‌ বলেই মত সৌগত রায়ের। সাংসদের কথায়, ‘‌আজ মতুয়া, আদিবাসীদের বাড়িতে খাওয়াদাওয়া করে অমিত শাহ আসলে লোকদেখানো নাটক করছেন। আমাদের দলিত, আদিবাসীরা বোঝেন যে বিজেপি উচ্চবর্ণের পার্টি, বড়লোকদের পার্টি। ওরা গরিবদের নিয়ে মাথা ঘামায় না। ওরা আমবানি–আদানিদের নিয়ে মাথা ঘামায়। ওরা যদি সোনার বাংলাই করবে তবে সোনার উত্তরপ্রদেশ, সোনার গুজরাট করতে পারছেন না কেন!‌’‌ বাংলার মানুষ অমিত শাহর সফরকে উপেক্ষা করবেন বলেই এদিন জানান সৌগত রায়।

বন্ধ করুন