বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Upper primary interview: কবে থেকে উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের ইন্টারভিউ শুরু? জানিয়ে দিল কমিশন
আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু হবে উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের ইন্টারভিউ। (ছবিটি প্রতীকী)
আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু হবে উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের ইন্টারভিউ। (ছবিটি প্রতীকী)

Upper primary interview: কবে থেকে উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের ইন্টারভিউ শুরু? জানিয়ে দিল কমিশন

  • ১২ সপ্তাহের মধ্যে পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ হবে। আশ্বাস কমিশনের।

আগামী সপ্তাহ থেকে উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের ইন্টারভিউ শুরুর চেষ্টা করা হবে। আর ১২ সপ্তাহের মধ্যে পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ হবে। শনিবার এমনটাই জানাল স্কুল সার্ভিস কমিশন (এসএসএসি)।

শুক্রবার নিয়োগ প্রক্রিয়া থেকে স্থগিতাদেশ উঠতেই দ্রুত উচ্চ প্রাথমিকের নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করার জন্য কমিশনের অন্দরে তৎপরতা শুরু হয়েছে। শনিবার দুপুরে সাংবাদিক বৈঠকে কমিশনের চেয়ারম্যান শুভশংকর সরকার জানিয়েছেন, গত বৃহস্পতিবার নম্বর-সহ যে সংশোধিত তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে, তার ভিত্তিতে ইন্টারভিউ শুরু হবে। ১:১.৪ অনুপাতে প্রার্থীদের ইন্টারভিউয়ে ডাকা হবে। অর্থাৎ প্রতি ১০০ টি শূন্যপদের জন্য ১৪০ জনকে ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাকবে কমিশন। তবে কোথায় ইন্টারভিউ হবে, সে বিষয়ে এখনও স্পষ্টভাবে জানানো হয়নি। কমিশনের অফিস বা অন্য কোথাও ইন্টারভিউ হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

প্রার্থীদের একাংশের অভিযোগ, অনেক যোগ্য প্রার্থীদের নামও সংশোধিত তালিকায় নেই। তার ভিত্তিতে স্থগিতাদেশ দিলেও শুক্রবার হাইকোর্ট জানায়, তালিকা প্রকাশের কোনও অভিযোগ থাকলে সেই বিষয়ে ব্যবস্থা নেবে কমিশন। কারও অভিযোগ থাকলে দু'সপ্তাহে তা কমিশনের কাছে জানাতে হবে। সেই অভিযোগ খতিয়ে দেখবেন সচিব পর্যায়ের আধিকারিক। অভিযোগ পাওয়ার ১০ সপ্তাহের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে হবে। তারপরও প্রার্থীদের অভিযোগ থাকলে আদালতে দ্বারস্থ হতে পারেন বলে জানিয়েছেন বিচারপতি।

তা নিয়ে শনিবার কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, যাঁরা ২০১৬ সালে পরীক্ষা দিয়েছিলেন, কিন্তু তালিকায় নাম নেই, তাঁরা আবারও আবেদন করতে পারবেন। সেজন্য ওই প্রার্থীদের কমিশনের অফিসে এসে হার্ডকপি জমা দিতে হবে। রেজিস্ট্রি পোস্ট বা ইমেলের মাধ্যমেও জানানো যাবে। কোন ইমেল আইডিতে সেই অভিযোগ জানাতে হবে, তা আগামী মঙ্গলবার কমিশনের ওয়েবসাইটে জানানো হবে। সেইসঙ্গে কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, ২০১৬ সালে পরীক্ষা দেওয়া কোনও প্রার্থীর বয়স যদি ৪০ পেরিয়ে যায়, তাহলেও তিনি চাকরি পাবেন। পরবর্তী নিয়োগ পরীক্ষার ক্ষেত্রেও বয়সের সর্বোচ্চ সীমায় মিলবে ছাড়।

বন্ধ করুন