বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > TMC MLA: চিকিৎসককে ‘ছাগল’ বলে মন্তব্য, বিতর্কে নির্মল মাজি, মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ
নির্মল মাজি। ছবি সৌজন্য : টুইটার
নির্মল মাজি। ছবি সৌজন্য : টুইটার

TMC MLA: চিকিৎসককে ‘ছাগল’ বলে মন্তব্য, বিতর্কে নির্মল মাজি, মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ

  • সূত্রের খবর, মে মাসের শুরুতে হাসপাতালে কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধানকে নির্মল মাজি হুমকি দেন এবং কুকথা বলেন। অভিযোগকারী চিকিৎসকের নাম কুণাল পান। তাঁর অভিযোগ, ‘রোগী ভর্তি হতে দেরি হচ্ছে কেন?’ এই প্রশ্ন তুলে তাকে হুমকি দেওয়া হয় এবং কুকথা বলা হয়।

মালদা মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ এবং ৬ জন সহকারী সুপারকে হুমকি দিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন চিকিৎসক তথা তৃণমূল বিধায়ক নির্মল মাজি। এবার কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের এক চিকিৎসককে হুমকি দিয়ে বিতর্কে জড়ালেন এই তৃণমূল বিধায়ক। হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ঢুকে ৬৪ বছরের এক চিকিৎসককে হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি কুকথা বলার অভিযোগ উঠেছে নির্মল মাজির বিরুদ্ধে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দফতরে চিঠি দিয়ে অভিযোগ জানিয়েছেন ওই চিকিৎসক।

সূত্রের খবর মে মাসের শুরুতে হাসপাতালে কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধানকে নির্মল মাজি হুমকি দেন এবং কুকথা বলেন। অভিযোগকারী চিকিৎসকের নাম কুণাল পান। তাঁর অভিযোগ, ‘রোগী ভর্তি হতে দেরি হচ্ছে কেন?’ এই প্রশ্ন তুলে তাকে হুমকি দেওয়া হয় এবং কুকথা বলা হয়। চিকিৎসকের অভিযোগ, গত বুধবার নির্মল মাজি এক রোগীকে ভর্তির জন্য পাঠিয়েছিলেন। রোগী ভর্তি হতে হয় হতে দেরি হওয়ায় নির্মল মাজি নিজেই জরুরি বিভাগে ঢুকে ওই চিকিৎসকের ওপর চিৎকার করেন। চিকিৎসক বলেন, ‘ভর্তির জন্য কাগজপত্র চেষ্টা করতে একটু সময় লাগে। সেই জন্যই রোগী ভর্তি হতে দেরি হচ্ছিল। তখন নির্মল মাজি আমার দিকে ছাগলের মতো তাকিয়ে আছেন কেন? সেই মন্তব্য করেন। পাশাপাশি সিনিয়র অফিসার অন ডিউটিকে গাধার বাচ্চা বলেও মন্তব্য করেন।’ হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে ভাইস প্রিন্সিপাল সব্যসাচী দাস এই ঘটনার পরে জরুরি বিভাগে গিয়ে ওই চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলেন। চিকিৎসক নির্মল মাজির বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন।

যদিও নির্মল মাজির বক্তব্য, জরুরি বিভাগে ওই চিকিৎসক ঝিমচ্ছিলেন এবং অন্যান্য জুনিয়ার ডাক্তাররা পড়ছিলেন। তাদের রোগী কল্যাণ সমিতির বৈঠক ডাকা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন। এই ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে চিকিৎসকদের সংগঠন। অ্যাসোসিয়েশন অফ হেলথ সার্ভিস ডক্টরস এর সাধারণ সম্পাদক মানস গুমটা বলেন, ‘ওই চিকিত্‍সককে এমনভাবে অপমান করা মোটেই উচিত হয়নি। তিনি বরঞ্চ আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে পারতেন।’

বন্ধ করুন