বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > শ্রেয়ার নামে প্রতারিত বাংলাদেশ দূতাবাস, লালবাজারে জিজ্ঞাসাবাদ কলকাতার শিল্পীকে
শ্রেয়া ঘোষাল
শ্রেয়া ঘোষাল

শ্রেয়ার নামে প্রতারিত বাংলাদেশ দূতাবাস, লালবাজারে জিজ্ঞাসাবাদ কলকাতার শিল্পীকে

  • কলকাতা পুলিশের প্রতারণা দমন শাখায় অভিযোগ জানিয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাস। এই প্রতারণার শিকার হয়ে আট লক্ষ টাকা খোয়াতে হয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাসকে। এদিকে ঘটনার পর চিরন্তন বন্দ্যোপাধ্যায়কে লালবাজারে ডেকে নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

শ্রেয়া ঘোষালের নামে প্রতারণার শিকার বাংলাদেশ দূতাবাস। ঘটনায অভিযোগের আঙুল উঠেছে ‘হিটমেকার্স প্রোডাকশন প্রাইভেট লিমিটেড’ নামক মুম্বই ভিত্তিক এক সংস্থার বিরুদ্ধে। ঘটনায় নাম জড়িয়েছে কলকাতার শিল্পী চিরন্তন বন্দ্যোপাধ্যায়েরও। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে কলকাতা পুলিশের প্রতারণা দমন শাখায় অভিযোগ জানিয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাস। এই প্রতারণার শিকার হয়ে আট লক্ষ টাকা খোয়াতে হয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাসকে। এদিকে ঘটনার পর চিরন্তন বন্দ্যোপাধ্যায়কে লালবাজারে ডেকে নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তবে তিনি জানান, তিনি নিজেও মুম্বইয়ের এই সংস্থার প্রতারণার শিকার।

জানা গিয়েছে, শ্রেয়াকে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল ‘হিটমেকার্স প্রোডাকশন প্রাইভেট লিমিটেড’-এর মাধ্যমে। সেই সংস্থার বিষয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসকে নাকি জানিয়েছিলেন চিরন্তন বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিকে শ্রেয়ার সঙ্গে অনুষ্ঠানের চুক্তির জন্য অগ্রিম আট লক্ষ টাকা পাঠানো হয় উক্ত সংস্থার ডিরেক্টর কৃষ্ণ শর্মার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে। এরপর শ্রেয়া ঘোষালের নামাঙ্কিত একটি ইমেল আইডি থেকে একটি মেল যায়। সেখানে শ্রেয়া নাকি ‘ধন্যবাদ’ জানান বলে দাবি বাংলাদেশ দূতাবাসের। পরে অনুষ্ঠানের সময় এগিয়ে এলে শ্রেয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে বাংলাদেশ দূতাবাস বুঝতে পারে যে বিষয়টি পুরোটাই ভুয়ো। এরপরই পুলিশের দ্বারস্থ হয় দূতাবাস কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন: ‘অশনি’ আগমনে হবে অতি ভারী বৃষ্টি! বাংলার কোথায়, কবে প্রভাব পড়বে ঘূর্ণিঝড়ের?

এদিকে এই ঘটনায় কলকাতার শিল্পী চিরন্তন বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম উঠে এলে তাঁকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য লালবাজারে ডেকে পাঠায়। চিরন্তন বন্দ্যোপাধ্যায়ের অবশ্য বক্তব্য, তিনি নিজে সেই সংস্থার প্রতারণার শিকার হয়েছেন। তিনি উলটে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন প্রসেনজিৎ চক্রবর্তী ওরফে প্রিন্স নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে। এদিকে অভিযুক্ত প্রিন্স পলাতক। মামলাটি আপাতত কলকাতা হাই কোর্টে বিচারাধীন রয়েছে।

বন্ধ করুন