বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Dilip Ghosh: ‘‌চুরি ধরা পড়লে ধরতে দেয় না’‌, কেন্দ্রীয় দলের বিক্ষোভে পড়া নিয়ে কটাক্ষ দিলীপের

Dilip Ghosh: ‘‌চুরি ধরা পড়লে ধরতে দেয় না’‌, কেন্দ্রীয় দলের বিক্ষোভে পড়া নিয়ে কটাক্ষ দিলীপের

বিজেপির সর্বভারতীয় সহ–সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

বৃহস্পতিবার পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুর, খেজুরি–সহ নানা এলাকা পরিদর্শন করেন কেন্দ্রীয় দলের প্রতিনিধিরা। তবে ভগবানপুর ১ নম্বর ব্লকে ঠিক বিডিও অফিসের সামনে যেতেই বিক্ষোভের মুখেও পড়েন তাঁরা। আর আজ এই ঘটনা নিয়ে শাসকদলকে কটাক্ষ করলেল বিজেপির সর্বভারতীয় সহ–সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

বাংলায় আবাস যোজনার দুর্নীতির অভিযোগ খতিয়ে দেখতে রাজ্য়ে এসেছে কেন্দ্রীয় দল। আজ, শুক্রবার তাঁদের সফরের দ্বিতীয় দিন। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছেন বিজেপি নেতারা। আর সেসব খতিয়ে দেখতে বাংলায় কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের প্রতিনিধিদল হাজির হয়েছেন। বৃহস্পতিবার পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুর, খেজুরি–সহ নানা এলাকা পরিদর্শন করেন কেন্দ্রীয় দলের প্রতিনিধিরা। তবে ভগবানপুর ১ নম্বর ব্লকে ঠিক বিডিও অফিসের সামনে যেতেই বিক্ষোভের মুখেও পড়েন তাঁরা। আর আজ এই ঘটনা নিয়ে শাসকদলকে কটাক্ষ করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ–সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

ঠিক কী বলেছেন দিলীপ ঘোষ?‌ আজ, শুক্রবার সকালে নিউটাউন ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমণে এসে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ–সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। সেখানে তিনি বলেন, ‘‌চুরিও করছে। আর নেতাদের বাঁচাতে বিক্ষোভও দেখাচ্ছে। নেতারা চুরি করলে গ্রেফতার করতে দেওয়া হয় না। চুরি করে মেনে নিচ্ছেন। কিন্তু নেতাদের বাঁচাতে চোখ রাঙাচ্ছেন। সারা দেশের কাছে বাংলা কলঙ্কিত হচ্ছে।’‌

ঠিক কী অভিযোগ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী?‌ নবান্ন সূত্রে খবর, মোট ৬ জন থাকছেন প্রতিনিধিদলে। তিনজন করে দু’টি টিমে ভাগ হয়ে তাঁরা যাবেন দুই জেলায়। এই বিষয়ে বৃহস্পতিবার গঙ্গাসাগর থেকে ফেরার পথে সরাসরি কেন্দ্রকে নিশানা করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‌পলিটিক্যাল কারণে মাঝেমাঝেই এ–টিম, বি–টিম, সি–টিম, এ–টু জেড টিম পাঠাচ্ছে। আর কত টিম পাঠাবেন?‌ একটা পটকা ফাটলে চলে আসছে এ–টিম। কারও ঘরে নিজস্ব ব্যবসার টাকা থাকলেও চলে আসছে বি–টিম। ১০০ দিনের প্রকল্পের কাজে বাংলাকে টাকা দেওয়া হচ্ছে না। তা সত্ত্বেও ৫০ লক্ষ কর্মদিবস তৈরি করেছি। বিজেপি নেতারাও আবাস যোজনায় বাড়ি নিয়েছেন। সেই নাম বাদ দেওয়া হচ্ছে? ক্ষমতার অপব্যবহার করছে কেন্দ্রীয় সরকার।’‌

আর কী বলছেন মেদিনীপুরের সাংসদ?‌ পূর্ব মেদিনীপুরে বিক্ষোভের মুখে পড়েন আবাস যোজনার তদন্তে আসা কেন্দ্রীয় দল। এই ঘটনা নিয়ে মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‌এখানে তদন্ত করতে দেয় না। চুরির দায় ধরা পড়লে ধরতে দেয় না। সারা দেশে বাংলার নাম দুর্নীতির আখড়া বলে পরিচিত। পার্টির নেতারা চোর। মেনে নিয়েছে চুরি হয়েছে। শাস্তি যাতে না হয়, তার জন্য চেষ্টা চলছে। সিবিআই–সহ সবাইকে কড়া চোখ দেখিয়ে দাবিয়ে রাখার চেষ্টা হচ্ছে।’‌ প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় দুর্নীতির একাধিক অভিযোগ উঠেছে। তৃণমূল কংগ্রেসের জনপ্রতিনিধিদের নাম তাতে যেমন জড়িয়েছে, তেমনই কোথাও কোথাও আঙুল উঠেছে বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধেও।

বন্ধ করুন