প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

মাস্ক না পরে বাইরে বেরনোয় খাস কলকাতায় ছেলেকে শ্বাসরোধ করে খুন করলেন বাবা

  • ছেলেকে খুন করে শ্যামপুকুর থানায় আত্মসমর্পণ করেন ৭৮ বছরের বৃদ্ধ বাবা বংশীধর মল্লিক। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্কের চরম ছবি ধরা পড়ল কলকাতার শোভাবাজারে। মাস্ক পরতে না চাওয়ায় বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ছেলেকে শ্বাসরোধ করে খুন করলেন বাবা। শনিবার ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর কলকাতার শোভাবাজার স্ট্রিটে। যে উত্তর কলকাতার বিস্তীর্ণ এলাকাকে ইতিমধ্যে রেড জোন বলে চিহ্নিত করেছে কলকাতা পুলিশ। মৃতের নাম শীর্ষেন্দু মল্লিক (৪৫)। ছেলেকে খুন করে শ্যামপুকুর থানায় আত্মসমর্পণ করেন ৭৮ বছরের বৃদ্ধ বাবা বংশীধর মল্লিক। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

শনিবার সন্ধ্যায় শ্যামপুকুর থানায় গিয়ে এক বৃদ্ধ দাবি করেন, তিনি ছেলেকে খুন করেছেন। শুনে চমকে ওঠেন পুলিশ আধিকারিকরা। নিজেকে বংশীধর মল্লিক বলে পরিচয় দিয়ে তিনি জানান, বার বার বলা সত্বেও মাস্ক না পরে বাড়ির বাইরে বেরিয়েছিল ছেলে শীর্ষেন্দু। তা থেকে বচসার জেরেই ছেলেকে খুন করেছেন তিনি।

সেকথা শুনে তড়িঘড়ি শোভাবাজার স্ট্রিটে বংশীধরবাবুর বাড়িতে ছোটেন পুলিশ আধিকারিকরা। গিয়ে দেখেন সেখানে পড়ে রয়েছে শীর্ষেন্দুবাবুর দেহ। দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়ছে পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে বংশীধরবাবুকে।

এবিষয়ে কলকাতার গোয়েন্দা প্রধান মুলরিধর শর্মা বলেন, ‘বাবা বলছেন মাস্ক পরা নিয়ে বসচার জেরে ছেলেকে খুন করেছেন তিনি। কিন্তু আসল কারণ তদন্ত করে দেখতে হবে।’ জানা গিয়েছেন, অবসরপ্রাপ্ত ওই সরকারি কর্মী আর্থিক অনটনে ভুগছিলেন। দীর্ঘদিন অসুস্থ হয়ে শয্যাশায়ী তাঁর স্ত্রী। সেসব থেকেই খুন কি না খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।



বন্ধ করুন