বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Mamata Banerjee: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাসভবনে রাজ্যপালের গোটা পরিবার‌, হঠাৎ এমন সফর কেন?

Mamata Banerjee: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাসভবনে রাজ্যপালের গোটা পরিবার‌, হঠাৎ এমন সফর কেন?

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফেসবুক

তৎকালীন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে সম্পর্ক অহি–নকুল হয়ে উঠেছিল। তারপর ধনখড় উপ–রাষ্ট্রপতি হয়ে রাজ্যসভায় গেলে সেখানে আসেন সিভি আনন্দ বোস। বাংলার রাজ্যপালের দায়িত্ব নেওয়ার পর মুখ্যমন্ত্রীর ভূয়সী প্রশংসা শোনা যায়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসকে জেন্টলম্যান তকমা দেন।

‌বাংলার নয়া রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস রাজভবনের বাসিন্দা হওয়ার পর থেকে তেমন কোনও সংঘাতের বাতাবরণ তৈরি হয়নি। বরং পরস্পরের সহযোগিতায় রাজ্যের কাজ এগিয়ে চলেছে। এই কারণে নয়াদিল্লির কাছে বোসের বিরুদ্ধে ফোঁস করেছিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। বাংলার রাজ্যপালের মুখে রাজ্য সরকার এবং মুখ্যমন্ত্রীর কাজের একাধিক প্রশংসা শোনা গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে জেন্টলম্যান তকমা দিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির অনুষ্ঠানে রাজ্যপাল সস্ত্রীক গিয়েছিলেন। আবার রাজ্যপালের পারিবারিক অনুষ্ঠানে তাঁর বাড়িতে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে এলেন রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসের গোটা পরিবার। শনিবার রাতে রাজভবন থেকে সরাসরি কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে যান রাজ্যপালের স্ত্রী, ছেলে এবং নাতি। যদিও এই সফরের কারণ এখনও স্পষ্ট নয়।

ঠিক কী ঘটেছে কালীঘাটে?‌ এদিন রাতে রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসের স্ত্রী এলএস লক্ষ্মী, ছেলে বাসুদেব আনন্দ বোস এবং নাতি আদ্ভেত নায়ার কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে যান। এই সফর প্রকাশ্যে আসার পর নানা চর্চা শুরু হয়েছে রাজ্য–রাজনীতিতে। যদিও এটা সৌজন্য বলে রাজভবন সূত্রে খবর। মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য এই বিষয়ে মুখ খোলেননি। তবে এই অস্বস্তি নীরব দর্শকের মতো গিলতে হচ্ছে বিজেপিকে। কারণ যেদিন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন তাঁর সাক্ষাৎকারে জানালেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যোগ্যতা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সেদিন তাঁর বাড়িতে গেলেন রাজ্যপালের পরিবার। যা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।

ঠিক কী বলছে বিজেপি?‌ এই ঘটনা বিজেপি মন থেকে মেনে নিতে না পারলেও মুখে তা প্রকাশ করেননি। বরং এই নিয়ে গড়ে ওঠা রাজনৈতিক জল্পনায় কার্যত জল ঢেলে দিয়েছেন বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। রাজভবনের বিবৃতি অনুযায়ী, এটা সৌজন্য সাক্ষাৎ। এই নিয়ে লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‌রাজনীতিতে সৌজন্য দেশ এবং রাজ্যের পক্ষে মঙ্গলদায়ক।’‌

উল্লেখ্য, তৎকালীন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে সম্পর্ক অহি–নকুল হয়ে উঠেছিল। তারপর ধনখড় উপ–রাষ্ট্রপতি হয়ে রাজ্যসভায় চলে গেলে সেখানে আসেন সিভি আনন্দ বোস। বাংলার রাজ্যপালের দায়িত্ব নেওয়ার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূয়সী প্রশংসা শোনা যায়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসকে জেন্টলম্যান তকমা দেন। এবার বিশেষ কোনও অনুষ্ঠান ছাড়াই রাজ্যপালের পরিবারের মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে যাওয়ার বিষয়টি নয়া গুঞ্জনের সৃষ্টি করেছে।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন