বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Kolkata Police Helpline Number: সময়ের আগেই পুড়ছে বাজি? ‘শিক্ষা’ দিতে এই নম্বরে জানান কলকাতা পুলিশকে
এমনিতে এবার কালীপুজোয় দু'ঘণ্টা বাজি পোড়ানো যাবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
এমনিতে এবার কালীপুজোয় দু'ঘণ্টা বাজি পোড়ানো যাবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

Kolkata Police Helpline Number: সময়ের আগেই পুড়ছে বাজি? ‘শিক্ষা’ দিতে এই নম্বরে জানান কলকাতা পুলিশকে

  • সেই কাজটা বাড়িতে বসেই করতে পারবেন। সেজন্য হেল্পলাইন নম্বর চালু করা হয়েছে।

নির্ধারিত সময়ের আগেই পোড়ানো হচ্ছে না? মানা হচ্ছে না নিয়ম? তাহলে দেরি না করে অভিযোগ জানান কলকাতা পুলিশকে। সেই কাজটা বাড়িতে বসেই করতে পারবেন। সেজন্য হেল্পলাইন নম্বর চালু করা হয়েছে।

এমনিতে এবার কালীপুজোয় দু'ঘণ্টা বাজি পোড়ানো যাবে। রাত আটটা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত বাজি পোড়ানোয় ছাড় দেওয়া হয়েছে। তবে শুধুমাত্র ‘গ্রিন ক্র্যাকার’ বা পরিবেশবান্ধব বাজি পোড়ানো যাবে। সেই সংক্রান্ত সতর্কবার্তা দিয়ে কলকাতা পুলিশের তরফে দুটি হেল্পলাইন নম্বর দেওয়া যাবে। হোয়্যাটসঅ্যাপের মাধ্যমে যোগাযোগ করা হবে 9432624365 নম্বরে। আর 9874901522 নম্বরে ফোন করা যাবে।

এবার ‘গ্রিন ক্র্যাকার’ কিনা, তা বুঝবেন কীভাবে? জেনে নিন সেই উপায় -

১) গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে Green QR (CSIR|NEERI) বলে সার্চ করুন। (NEERI বলে সার্চ করলেও চলে আসবে।)

২) সেই অ্যাপ নিজের ফোনে ইনস্টল করুন।

৩) নাম, ইমেল আইডি, ফোন নম্বর এবং জন্মতারিখ দিন। ‘Register Device’ করুন।

৪) ‘Scan QR’ করুন।

৫) তারপর বাজির প্যাকেটে যেখানে 'QR Code' আছে, সেখানে নিজের ফোনের ক্যামেরা তাক করে স্ক্যান করুন।

৬) সেই স্ক্যানের পরেই উত্তর পেয়ে যাবেন, আপনি যে বাজি কিনেছেন বা কিনতে চলেছেন, তা আদৌও ‘গ্রিন ক্র্যাকার’ কিনা।

এমনিতে বাজারে তিন রকমের ‘গ্রিন ক্র্যাকার’ পাওয়া যায় - ‘সফল’, 'স্টার' এবং 'শ্বাস'। কাউন্সিল অফ সায়েন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চের (সিএসআইআর) সঙ্গে চুক্তির ভিত্তিতে সেই ‘গ্রিন ক্র্যাকার’ তৈরি করা হয়ে থাকে। ‘গ্রিন ক্র্যাকার’-এর প্যাকেটে 'QR Code' থাকে, সেটাই স্ক্যান করতে হয়।

বন্ধ করুন