বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Madan Mitra Thinking of Retirement: ‘যা না পাওয়ার ছিল...’, এবার রাজনীতি থেকে অবসরের ভাবনা মদন মিত্রর
মদন মিত্র

Madan Mitra Thinking of Retirement: ‘যা না পাওয়ার ছিল...’, এবার রাজনীতি থেকে অবসরের ভাবনা মদন মিত্রর

  • সংবাদমাধ্যমকে মদন মিত্র বলেন, '২০২৬ সালের পর আর নির্বাচনে লড়াই করব কিনা তা নিয়ে ভাবতে হবে। আমাকে দেখেই তো নতুন প্রজন্ম শিখবে।'

এককালের প্রভাবশালী মন্ত্রী। পরে চিট ফান্ড কাণ্ডে নাম জড়িয়ে হাজতবাস। চলে যায় মন্ত্রিত্ব। তবে ফের একবার দল ভরসা করে টিকিট দেয় বিধানসভা নির্বাচনে। চেনা কামারহাটি থেকে জিতেও যান। তবে আর মন্ত্রী করা হয়নি মদন মিত্রকে। এহেন ‘রঙিন’ চরিত্র এবার রাজনীতি থেকে অবসর নেওয়ার ইঙ্গিত দিলেন। উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই কামারহাটি লাগোয়া বরাহনগরের বিধায়ক তাপস রায় অবসরের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। আর এবার সেই একই সুর শোনা গেল মদনের গলায়। (আরও পড়ুন: রেলের ‘লিজ’ নীতিতে বড় রদবদল, চাকরি পেতে পারে ১.২৫ লাখ! গুরুত্বপূর্ণ ৫টি সিদ্ধান্ত নিলেন মোদী)

সংবাদমাধ্যমকে মদন মিত্র বলেন, ‘২০২৬ সালের পর আর নির্বাচনে লড়াই করব কিনা তা নিয়ে ভাবতে হবে। আমাকে দেখেই তো নতুন প্রজন্ম শিখবে। আমি নিজেকে নিজের মতো গুছিয়ে নিচ্ছি ধীরে ধীরে। বয়সের ভার হয়ে যাচ্ছে। যা না পাওয়ার ছিল সেটা না পাওয়াই থাক। আশি কেজি ওজন হয়ে গেছে। এটা ঠিক নয়।’

আরও পড়ুন: লখনউ থেকে উদ্ধার ১০ কোটি টাকার ৪ কেজি বমি! কেন এত দাম এই বমির?

মদন বলেন, ‘আপাতত ২০২৬ সাল পর্যন্ত তো বিধায়ক আছি। তারপর কী কব, তা নিয়ে নতুন করে ভাবতে হবে। সকলকেই ভাবতে হবে যে আর ভোটে লড়াই করা উচিত কি না। নাকি তাঁর জায়গায় অন্য কারও দাঁড়ানো উচিত। আমার থেকে ভালো আর কেউ আছে কি না। আমি নিজের বিধানসভা কেন্দ্রে গিয়ে অনেকের থেকেই শুনেছি যে আমি ১১ বারের বিধায়ক। আমার খারাপ লাগে। সেটা না করে ছেলে, নাতি এঁদের সুযোগ দিলে ভালো হত। এটা মেসি বলবে না। অনেক দিন তো হল।’ প্রসঙ্গত, সম্প্রতি রাজনীতিতেও বয়ঃসীমা বেঁধে দেওয়ার পক্ষে সওয়াল করে রাজনীতি ছাড়ার ইঙ্গিত করেছিলেন তৃণমূলের বর্ষীয়ান বিধায়ক তাপস রায়। আর এবার মদন মিত্রর গলাতেও সেই সুর।

বন্ধ করুন