বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Mid Day Meal: মিড ডে মিলের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখলেন রাজ্যের প্রতিনিধিরা, কলকাতায় মিলল না অভিযোগ

Mid Day Meal: মিড ডে মিলের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখলেন রাজ্যের প্রতিনিধিরা, কলকাতায় মিলল না অভিযোগ

মিড ডে মিল খতিয়ে দেখলেন আধিকারিকরা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস) (HT_PRINT)

কলকাতার স্কুলগুলির ক্ষেত্রে সেরকম অভিযোগ না পাওয়া গেলেও জেলা এবং শহরতলির স্কুলগুলিতে পরিষ্কার–পরিচ্ছন্নতা নিয়ে ভুরি ভুরি অভিযোগ উঠে এসেছে। কারণ অতীতে এর আগে মিড ডে মিল নিয়ে বিভিন্ন অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। জেলাগুলির স্কুলগুলিতে কোথাও সাপ, টিকটিকি আবার কোথাও পাওয়া গিয়েছে মরা ইঁদুর এবং টিকটিকি।

স্কুলগুলিতে মিড ডে মিলের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে রাজ্যে আসছে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। আগামী ২০ জানুয়ারি থেকে প্রধানমন্ত্রী পোষন প্রকল্পের একটি দল রাজ্যের বিভিন্ন স্কুল ঘুরে দেখবেন। তার আগে সোমবার থেকেই স্কুল পরিদর্শন করে মিড ডে মিলের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে শুরু করেছেন রাজ্যের প্রতিনিধি দল। মঙ্গলবার স্কুল ইন্সপেক্টর এবং এডুকেশন সুপারভাইজাররা বিভিন্ন স্কুল ঘুরে দেখেন। এদিন ৫০ টিরও বেশি স্কুল পরিদর্শন করেন আধিকারিকরা।

স্কুলের রান্নাঘর, চাল রাখার জায়গা সবই পরিদর্শন করে দেখেন এই অধিকারীরা। প্রাথমিকভাবে কলকাতার স্কুলগুলিতে মিড ডে মিল নিয়ে কোনও অভিযোগ তাঁরা পাননি। তাতে দেখা গিয়েছে, বেশিরভাগ স্কুলেই রান্নাঘর যথেষ্ট পরিষ্কার–পরিচ্ছন্ন। অভিভাবকদের তরফেও সেরকমভাবে কোনও অভিযোগ জানানো হয়নি। অন্যদিকে, কলকাতার স্কুলগুলির ক্ষেত্রে সেরকম অভিযোগ না পাওয়া গেলেও জেলা এবং শহরতলীর স্কুলগুলিতে পরিষ্কার–পরিচ্ছন্নতা নিয়ে ভুরি ভুরি অভিযোগ উঠে এসেছে। কারণ অতীতে এর আগে মিড ডে মিল নিয়ে বিভিন্ন অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। জেলাগুলির স্কুলগুলিতে কোথাও সাপ, টিকটিকি আবার কোথাও মিড ডে মিলের চাল রাখার ড্রামে পাওয়া গিয়েছে মরা ইঁদুর এবং টিকটিকি। সম্প্রতি এই অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে, মালদার চাঁচলের একটি প্রাথমিক স্কুলে। তারপরেই স্কুল পরিদর্শক ও ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে বরখাস্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি চুক্তিভিত্তিক এক কর্মীর চাকরি ও বাতিল করা হয়েছে।

অন্যদিকে, মিড ডে মিল নিয়ে অভিযোগ করেছেন শিক্ষকরা। তাঁদের বক্তব্য, এভাবে ঘন ঘন স্কুল পরিদর্শন করলে তারা স্কুলের পঠন পাঠনে ঠিকমতো মনোযোগী হতে পারছেন না। শিক্ষকরা চাইছেন, মিড ডে মিল থেকে তাঁদের অব্যাহত দেওয়া হোক।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন