বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > করোনা সংক্রমণে যুবকের মৃত্যুর জেরে NRS হাসপাতালে বন্ধ হয়ে গেল আস্ত একটা ওয়ার্ড
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

করোনা সংক্রমণে যুবকের মৃত্যুর জেরে NRS হাসপাতালে বন্ধ হয়ে গেল আস্ত একটা ওয়ার্ড

  • হাসপাতাল সূত্রের খবর, যুবককে ভর্তি করার সময় করোনার লক্ষণ ছিল না। কিন্তু পরে ধীরে ধীরে উপসর্গ দেখা দিতে শুরু করে।

COVID 19 সংক্রমণের আশঙ্কায় বন্ধ করে দেওয়া হল NRS হাসপাতালের আস্ত একটি ওয়ার্ড। গত শনিবার হাসপাতালের মেল মেডিসিন বিভাগের সিসিইউতে এক যুবকের মৃত্যুর পর তাঁর দেহে করোনার অস্তিত্ব মেলে। এর পর থেকেই জীবাণুমুক্ত করা শুরু হয়েছে গোটা ওয়ার্ড। যার জেরে অন্তত ৪৮ ঘণ্টা ওই ওয়ার্ড বন্ধ থাকবে বলে জানানো হয়েছে হাসপাতালের তরফে। ওই ওয়ার্ডে ডিউটি করায় এখনো পর্যন্ত ৬৪ জনকে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে।

গত শনিবার দক্ষিণ শহরতলির মহেশতলার বাসিন্দা এক যুবকের মৃত্যু হয় NRS হাসপাতালের মেল মেডিসিন বিভাগের সিসিইউতে। মৃত্যুর কয়েকদিন আগে ওই যুবকের করোনার উপসর্গ দেখা দেওয়ায় শুক্রবার তাঁর লালারসের নমুনা পরীক্ষায় পাঠানো হয়। সেই রিপোর্ট আসার আগে শনিবার মৃত্যু হয় যুবকের।

জানা গিয়েছে হিমোফিলিয়ায় আক্রান্ত ছিলেন যুবক। গত ৩০ মার্চ প্রথমে তাঁকে মেল মেডিসিন বিভাগে ভর্তি করা হয়। কিন্তু অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে স্থানান্তরিত করা হয় সিসিইউতে। হাসপাতাল সূত্রের খবর, যুবককে ভর্তি করার সময় করোনার লক্ষণ ছিল না। কিন্তু পরে ধীরে ধীরে উপসর্গ দেখা দিতে শুরু করে।

যুবকের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই স্বাস্থ্য ভবনে জানানো হয়। সঙ্গে সঙ্গে ওই সময় ওয়ার্ডে ডিউটি করেছেন এমন সমস্ত চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীকে কোয়ারেনটাইনে যেতে নির্দেশ দেয় স্বাস্থ্য দফতর। এখনো পর্যন্ত চিহ্নিত করে মোট ৬৪ জনকে নিউটাউনের কোয়ারেনটাইন সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। যার মধ্যে ৩৯ জন চিকিৎসক।

হাসপাতাল সূত্রের খবর, রবিবার থেকে ওয়ার্ডটি জীবাণুমুক্ত করার কাজ শুরু হয়েছে। আগামী কয়েকদিন সেই কাজ চলবে। জীবাণু মুক্ত হওয়ার ব্যাপারে হাসপাতালের আধিকারিকরা নিশ্চিত হলে তবেই ফের চালু হবে ওয়ার্ডটি।

বন্ধ করুন