বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > নির্বাচন পরবর্তী সংগঠনের হাল কেমন? আগেভাগেই পুরভোটের প্রস্তুতিতে নামল BJP
বৈঠকে দিলীপ ঘোষ (ছবি সৌজন্যে টুইটার)
বৈঠকে দিলীপ ঘোষ (ছবি সৌজন্যে টুইটার)

নির্বাচন পরবর্তী সংগঠনের হাল কেমন? আগেভাগেই পুরভোটের প্রস্তুতিতে নামল BJP

  • উপনির্বাচন নিয়ে না ভেবে সরাসরি পুরভোটে ঝাপাতে চায় বিজেপি।

আগেভাগেই পুরসভা নির্বাচনের দিকে নজর দিল বিজেপি। একদিকে যেখানে তৃণমূল বারংবার বিধানসভার উপনির্বাচনের আর্জি জানিয়ে আসছে নির্বাচন কমিশনকে, তখন পুরভোটের জন্য কোমর কষে প্রস্তুতি শুরু করে দিল গেরুয়া শিবির। এই লক্ষ্যে সোমবার থেকে শুরু হয়েছে বিজেপির তিনদিন ব্যাপী পর্যালোচনা বৈঠক শুরু হয়েছে। বৈঠকে রাজ্যসভাপতি দিলীপ ঘোষ, রাজ্যের শীর্ষ নেতৃত্ব ছাড়াও রয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতা শিবপ্রকাশ। নির্বাচনী পরবর্তী সংগঠনের হাল হকিকত কেমনন? তা এই বৈঠকে ঝালিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

উপনির্বাচন নিয়ে না ভেবে সরাসরি পুরভোটে ঝাপাতে চায় বিজেপি। এদিকে পুরভোটে বিশেষ দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে যুব মোর্চাকে। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে যুব মোর্চাকে রাস্তায় নেমে আগেভাগে জমি তৈরি করতে হবে পুর ভোটের জন্য। কলকাতাকে পাখইর চোখ করে এগোতে চাইছে গেরুয়া শিবির। এই লক্ষ্যে ১ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত গোটা কলকাতা পুর এলাকায় ছোট ছোট পথসভার আয়োজন করার নির্দোশ দেওয়া হয়েছে যুব মোর্চাকে। প্রচার চলবে পাড়ায় পাড়ায়। রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে থাকা দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ধরা হবে এই সব প্রচারে। তাছাড়া কেন্দ্রীয় প্রকল্পের গুণগান করে তা ছড়িয়ে দেওয়া হবে সাধারণ মানুষের মধ্যে।

এদিকে শহুরে ভোটারের মন পেতে বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে বিদ্বজনের কমিটি তৈরির কথা বলা হয়েছে পদ্ম নেতৃত্বের পক্ষ থেকে। এদিকে নির্বাচনের আগে গঠিত বিভিন্ন কমিটি ভেঙে গিয়েছে বহু জায়গাতেই। সেই কমিটিগুলিকেই পুনরুজ্জীবিত করার চিন্তা ভাবনা হচ্ছে। এদিকে জানা গিয়েছে বহু নেতা সোমবারের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না। সেই সব নেতাদের শো-কজ করা হয়েছে। এদিকে কর্মীদের অনেকেরই অভিযোগ, ভোট পরবর্তী হিংসার জেরে নিষ্ক্রিয় হয়েছেন। ফের আক্রান্ত হওয়ার ভয়ও রয়েছে। তবে এই ভয় কাটাতে কর্মীদের কোনও পরামর্শ দিতে পারেনি শীর্ষ নেতৃত্ব।

বন্ধ করুন