বাংলা নিউজ > ভোটের লড়াই > অসম বিধানসভা নির্বাচন ২০২১ > মার্চের প্রথম সপ্তাহে ঘোষিত হতে পারে বিধানসভা ভোটের তারিখ, অসমে বললেন মোদী
নরেন্দ্র মোদী (PTI)
নরেন্দ্র মোদী (PTI)

মার্চের প্রথম সপ্তাহে ঘোষিত হতে পারে বিধানসভা ভোটের তারিখ, অসমে বললেন মোদী

  • মোদী বলেন যে তিনি চাইছেন যে নির্বাচন কমিশনের ঘোষণার আগে যতবার সম্ভব অসম, পশ্চিমবঙ্গ, কেরল, তামিলনাড়ু ও পুদুচেরি যাওয়া। খুব সম্ভবত সাত মার্চ ভোটের সূচী ঘোষণা হতে পারে বলে তিনি জানান। প্রসঙ্গত, একবার ভোটের সূচী ঘোষণা হয়ে গেলে কোনও সরকারি প্রকল্পের উদ্বোধন করা যায় না।

কবে পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হবে, এখন তারই প্রহর গুনছে সবাই। এরই মধ্যে অসমে প্রধানমন্ত্রী মোদী জানালেন খুব সম্ভবত আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহেই এই ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশন। প্রসঙ্গত, একবার নির্বাচন ঘোষণা করা হয়ে গেলে আদর্শ আচরণবিধি লাগু হয়ে যায়। কার্যত পুরো প্রশাসন চলে যায় নির্বাচন কমিশনের নিয়ন্ত্রণে। 

অসমের ধেমাজিতে মোদী বলেন যে গত বার ৪ মার্চ ভোটের দিনক্ষণ জানিয়েছিল কমিশন। তাই এইবার একই সময় ঘোষণা হতে পারে তিনি জানান। মোদী বলেন যে তিনি চাইছেন যে নির্বাচন কমিশনের ঘোষণার আগে যতবার সম্ভব অসম, পশ্চিমবঙ্গ, কেরল, তামিলনাড়ু ও পুদুচেরি যাওয়ার। সাত মার্চ ভোটের সূচী ঘোষণা হতে পারে, এমনটা ধরে চলা যেতে পারে বলে তিনি জানান। প্রসঙ্গত, একবার ভোটের সূচী ঘোষণা হয়ে গেলে কোনও সরকারি প্রকল্পের উদ্বোধন করা যায় না। 

অসমে এক মাসের মধ্যে তৃতীয় সফরে মোদী ফের অনুন্নয়নের জন্য পূর্ববর্তী সরকারদের দুষেছেন। তিনি বলেন যে ব্রহ্মপুত্রের উত্তর কূলের সঙ্গে বৈমাতৃসুলভ ব্যবহার করা হয়েছে। যোগাযোগ ব্যবস্থা, হাসপাতাল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিল্প-কিছুর ওপরই নজর দেওয়া হয়নি বলে তিনি অভিযোগ করেন। 

মোদীর দাবি অসমে সোনোওয়াল সরকার আসার পর এই বৈষম্য ঘুচেছে। বিভন্ন কাজের ফিরিস্তি দেন তিনি। এদিন তিনি ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশনের একটি ইউনিটের উদ্বোধন করেন যেটা দেশীয় প্রযুক্তিতে এলপিজি তৈরি করবে। এছাড়াও বেশ কিছু অন্য প্রকল্পের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। বারবার ডবল ইঞ্জিন সরকার কীভাবে একযোগে অসমের উন্নতিসাধনে রত হয়েছে, সেই বিষয়টির ওপর জোর দিয়েছেন তিনি। প্রসঙ্গত অসমে এবার জোটবদ্ধ বিরোধীর সম্মুখীন এনডিএ। তাই বিজেপি ও জোট সঙ্গী অগপ-র কাজ আদৌ সহজ হবে না। সেই কারণেই উত্তর পূর্বের এই রাজ্যে ক্ষমতা ধরে রাখার জন্য মোদী ক্যারিশ্মার ওপর ভরসা রাখছে গেরুয়া শিবির। 

বন্ধ করুন