বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > হাত কেটে 'উর্মি'র প্রতি ভালোবাসা জাহির ভক্তের! প্রতিবাদে সোচ্চার অন্বেষা
অন্বেষা হাজরা।( ছবি সৌজন্যে- ইন্সটাগ্রাম)
অন্বেষা হাজরা।( ছবি সৌজন্যে- ইন্সটাগ্রাম)

হাত কেটে 'উর্মি'র প্রতি ভালোবাসা জাহির ভক্তের! প্রতিবাদে সোচ্চার অন্বেষা

  • নয়ের দশকের হিন্দি সিনেমার মতো পছন্দের অভিনেত্রীর 'মন' পেতে নিজের হাত কেটে রক্ত দিয়ে তাঁর নাম লিখলেন এক ভক্ত। গোটা ঘটনায় একইসঙ্গে আতঙ্কিত এবং সেই ভক্তের ওপর ক্ষুব্ধ ছোটপর্দার অভিনেত্রী অন্বেষা হাজরা।

ঠিক যেন সিনেমা। নয়ের দশকে বিভিন্ন হিন্দি ছবিতে ভালোবাসার মানুষ কিংবা পছন্দের তারকার জন্য যা করতে প্রায় হামেশাই দেখা যেত ভক্তদের সেই ঘটনায় একবার বর্তমানে আরও একবার ঘটালেন এক ব্যক্তি। তবে তা করা হয়েছে বাস্তবেই। 'ফ্যান' ছবিতেও ভক্তের উন্মাদনা চরমে পৌঁছলে কী হয় তা হারে হাড়ে বুঝেছিলেন 'আরিয়ান খান্না'।সেসব ঘটনার সাক্ষী ছিলেন দর্শকও। এবার পছন্দের অভিনেত্রীর মন পাওয়ার জন্য হাত কেটে রক্ত দিয়ে তাঁর নাম লিখলেন এক ভক্ত। সে ছবি আবার নেটমাধ্যমে পোস্টও করেন সেই ব্যক্তি। তাঁর ওই জনৈক ভক্তের এহেন কাণ্ডে একইসঙ্গে বিস্মিত ও ক্ষুব্ধ ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী অন্বেষা হাজরা। নিজের ইনস্টাগ্রামে সেই ছবির স্ক্রিনশট ভাগ করে নেওয়ার পাশাপাশি তাঁর ওই ভক্তের উদ্দেশে ভৎসর্না করতেও ছাড়েননি 'উর্মি'।

কিন্তু অদ্ভুতভাবে এই ছবি পোস্ট করে ভৎসর্না করার জন্যে উল্টে ট্রোলড হল অন্বেষাই। এমনকি পরে সেই পোস্ট ইনস্টাগ্রামের তরফে সেই পোস্ট মুছেও দেওয়া হয়েছে। ঘটনাটি এরকম, গত বুধবার ধারাল ছুরি দিয়ে নিজের হাত কাটেন অন্বেষার সেই ভক্ত। এরপর সাদা কাগজে ইংরেজিতে পদবি সহ অভিনেত্রীর নামও লেখেন তিনি। পুরো ঘটনায় অন্বেষা ক্রুদ্ধ ও হতভম্ব। আক্ষেপ করে জানিয়েছেন, উপযুক্ত জায়গায় রক্ত দিলে কাজে আসত। এসব কাজ যে নিতান্ত মূর্খামি ছাড়া আর কিছুই নয় সেকথাও স্পষ্টভাবে জানিয়েছেন জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক 'আমাদের এই পথ যদি না শেষ হয়'-এর 'উর্মি'। সে বার্তা দিতেই ইনস্টাগ্রামে এই ছবি শেয়ারকরেছিলেন অন্বেষা। কাউকে উৎসাহ দেওয়ার জন্য ইনস্টাগ্রাম থেকে মোটেই সেই ছবি মুছে দেওয়া হয়নি। এখনও অভিনেত্রীর ফেসবুকে এই পোস্টটি রয়েছে।

 

অন্বেষা ভেবেছিলেন যে এই ধরনের ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করলে হয়ত ভবিষ্যতে এরকম আক্কেলজ্ঞানহীন কান্ড করার আগে কেউ দু'বার ভাববে। তবে ঘুনাক্ষরেও অভিনেত্রী ভাবেননি তিনিই উল্টে কটাক্ষের স্বীকার হবেন। নয়া প্রজন্মের এহেন নির্বুদ্ধিতার পরিচয় পেয়ে তিনি আতঙ্কিত।

নিজের ফেসবুকে সেই ছবির সঙ্গে অন্বেষা অনুরোধ,'প্লিজ, প্লিজ না। না মানে না। এরম ভাবে নিজের হাত কেটে, নিজে কে কষ্ট দিয়ে পৃথিবীর কারুর জন্যই ভালোবাসা জাহির করতে যাবেন না। আমার বন্ধু আমায় মেসেজটা দেখাল। আমি একদমই এই ধরনের মেসেজকে নিজের প্রাপ্তি বলে মনে করি না। বরং আপনারা সুস্থ স্বাভাবিক হয়ে আমাদের পাশে থাকলে আমাদের চলার পথটা সুন্দর হবে। আমি অনুরোধ করছি এই ভাবে নিজে কে কষ্ট দিয়ে কারুর জন্য ভালোবাসা জাহির করবেন না। নিজের কথাটা ভাবুন!'

বন্ধ করুন