বাড়ি > বায়োস্কোপ > ‘মীরাক্কেল’-এর বিচারকের আসন থেকে বাদ শ্রীলেখা ! জায়গা নিচ্ছেন স্বস্তিকা ?
তবে কী শ্রীলেখার জায়গায় এবার স্বস্তিকা ? (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
তবে কী শ্রীলেখার জায়গায় এবার স্বস্তিকা ? (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

‘মীরাক্কেল’-এর বিচারকের আসন থেকে বাদ শ্রীলেখা ! জায়গা নিচ্ছেন স্বস্তিকা ?

  • 'সত্যি বলবার মূল্য দিলাম' এমনই দাবি শ্রীলেখা মিত্রর। নায়িকার জায়গা নিতে পারেন স্বস্তিকা বা নুসরত,জল্পনা তুঙ্গে। 

বাংলা টেলিভিশন চ্যানেলের অন্যতম জনপ্রিয় রিয়ালিটি শো মীরাক্কেল। আর এই শোয়ের সঙ্গে ওতোপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে শ্রীলেখা মিত্রের নাম। পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায় ও রজতাভ দত্তের সঙ্গে এই শোয়ের বিচারকের আসনে রবাবরই দেখা মিলেছে টলিউডের এই ঠোঁটকাটা নায়িকার।দিন কয়েক ধরেই টেলিউডের অন্দরে শোনা যাচ্ছিল টিভির পর্দায় ফিরতে চলেছে মীরাক্কেল। এরমাঝে সোমবার রাতে আচমকাই বোমা ফাটান শ্রীলেখা। ফেসবুকের দেওয়ালে লেখেন, ‘সবচেয়ে জনপ্রিয় কমেডি শো শুরু হতে চলেছে আমাকে ছাড়া। সত্যি কথা বলবার এই মূল্যটাই দিতে হয় আমাকে, ব্র্যান্ডের প্রতি একনিষ্ঠ থাকা কিংবা সিস্টেমের সব অংশগুলোতে তেল না দেওয়ার (আপনারা বুঝে নিন) চরম মূল্য। ধন্যবাদ সংশ্লিষ্ট চ্যানেল কর্তৃপক্ষকে। আপনি ঠিক বলেছেন মহিলা, আমি নিজের খামতি গুলোকে মেনে নিচ্ছি। আমাকে যাঁরা অপছন্দ করেন তাঁরা পার্টি করতে পারেন’।

শ্রীলেখার ফেসবুক পোস্ট 
শ্রীলেখার ফেসবুক পোস্ট 

কিছুদিন আগেই টলিউডে নোপটিজমের অস্তিত্ব নিয়ে কথা বলে সংবাদ শিরোনামে এসেছিলেন শ্রীলেখা। প্রকাশ্যে প্রসেনজিত্ চট্টোপাধ্যায় ও ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের নাম উল্লেখ করে তিনি বলেন ‘ঋতু-বুম্বার প্রেম ছিল বলে নায়িকার চরিত্রে কাজ পায়নি'। শ্রীলেখার এই অভিযোগের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গেও ঠান্ডা লড়াই দেখা গিয়েছিল শ্রীলেখার। নাম না করেই স্বস্তিকা বলেছিলেন নিজের খামতি ঢাকতে এভাবে স্লাটশেমিং করে অন্য অভিনেত্রীদের অপমান করার কোনও অর্থ নেই। স্বস্তিকার ইঙ্গিত যে শ্রীলেখার দিকেই ছিল তা বুঝতে কারুর অসুবিধা হয়নি। 

এক দশকেরও বেশি সময় ধরে মীরাক্কেলের বিচারকের আসন সামলেছেন শ্রীলেখা। টাইমস অফ ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে শ্রীলেখার জায়গায় বিচারকের আসনে দেখা যেতে পারে স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়, নুসরত জাহান কিংবা পাওলি দামকে। তিন নায়িকার সঙ্গেই কথাবার্তা চলছে-তবে এখনও কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। সেই খবরের লিঙ্ক শেয়ার করে শ্রীলেখা ফেসবুকের দেওয়ালে লেখেন, ‘ভাই এই তো খাপে খাপ…ভাগ্যিস আমার খামতিটা উনি ধরতে পেরেছিলেন, গুড লাক’।

অপর একটি ফেসবুক পোস্টে শ্রীলেখা লেখেন, ‘এগুলোই প্রমাণ করে দেয় নেপোটিজম কেমন রন্ধ্রে রন্ধ্রে রয়েছে এবং আমি সঠিক কথাই বলেছিলাম। এটা আমার সঙ্গে ঘটা কোনও নতুন ঘটনা নয়, বরং অন্যকিছু হলেই আমি বেশি চমকে যেতাম। এবং হ্যাঁ মহিলা তোমার ‘ছোট্ট প্রশ্ন’-এর জবাব যেটা সেইসময় আমি এড়িয়ে গিয়েছিলাম। তুমি একদম সঠিক, আমার খামতি প্রসঙ্গে। সেটা আপাতত আমার সামনে একদম স্পষ্ট এবং কোনওভাবেই এড়িয়ে যাওয়া সম্ভবপর নয়। আমি নম্রতার সঙ্গে সেটা মেনে নিচ্ছি। আমি সিস্টেমের সঙ্গে লড়াই করে ব্যর্থ হতে পারি তবে মাথানত করব না'।

শ্রীলেখার এই অভিযোগ নিয়ে এখনও কোনওরকম মন্তব্য করেনি চ্যানেল কর্তৃপক্ষ বা মীরাক্কেলের নতুন সিজন নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছুই জানানো হয়নি তাঁদের তরফ থেকে। কিন্তু মীরাক্কেলের বহু ভক্তই যে শ্রীলেখার অনুপস্থিতির খবরে হতাশ যা স্পষ্ট সোশ্যাল মিডিয়ায়। মীরাক্কেলের প্রাক্তন প্রতিযোগী স্বরূপ চট্টোপাধ্যায় জানান, ‘মীরাক্কেলিয়ান হিসাবে আমার মনে হয় এটা একটা মারত্মক আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত মীরাক্কেলের জন্য! শ্রীলেখা হীন মীরাক্কেল অনেকটা প্রিন্স অফ ডেনমার্ক ছাড়া হ্যামলেটের সমান’।

বন্ধ করুন