বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'ডিভোর্স নিয়ে লোকের কথা মিলে না যায়!', তিয়াসার সঙ্গে বিচ্ছেদ নিয়ে সোজাসাপটা সুবান
সুবান রায় ও চতিয়াসা রায় (ছবি সৌজন্যে-ইনস্টাগ্রাম) 
সুবান রায় ও চতিয়াসা রায় (ছবি সৌজন্যে-ইনস্টাগ্রাম) 

'ডিভোর্স নিয়ে লোকের কথা মিলে না যায়!', তিয়াসার সঙ্গে বিচ্ছেদ নিয়ে সোজাসাপটা সুবান

  • ‘আমি অতীতেও সবসময় তিয়াসার ভালো চেয়ে এসেছি। ভবিষ্যতেও সেটাই চাইব’, ডিভোর্সের গুঞ্জন নিয়ে বললেন সুবান রায়। 

বলিউড থেকে টলিউড- এখন যেন ডিভোর্সের মরসুম। আমির-কিরণ থেকে রোশন-শ্রাবন্তী, কিংবা নুসরত-নিখিল, তালিকাটা বেশ লম্বা। বেশ কয়েক মাস ধরেই গুঞ্জন টেলিভিশনের জনপ্রিয় জুটি তিয়াসা রায় এবং সুবান রায়ের দাম্পত্যে নাকি ফাটল ধরেছে। যদিও এই গুঞ্জনকে উড়িয়ে দিয়েছেন কৃষ্ণকলির ‘শ্যামা’ অর্থাত্ তিয়াসা রায়। এবার বিচ্ছেদের জল্পনা নিয়ে মুখ খুললেন সুবান।

আপতত নিজের আসন্ন সিরিয়াল ‘সুন্দরী’র শ্যুটিংয়ে ব্যস্ত সুবান। সেট থেকেই মুঠোফোনে হিন্দুস্তান টাইমস বাংলাকে জানান, ‘ঝগড়া-অশান্তি হতেই পারে, কিন্তু তাই বলে দুম করে ডিভোর্স হয়ে যাবে এটাতে আমি বিশ্বাসী নই। বিয়ের সম্পর্কটা খুব পবিত্র বলে আমি বিশ্বাস করি, এবং শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত সেটা টিকিয়ে রাখবার চেষ্টা আমি করব। কিন্তু লোকজন যেভাবে আমাদের ডিভোর্স নিয়ে প্রচার চালাচ্ছে তাতে লোকের মুখের কথা কোনওদিন ফলে না যায়। সেটা ঘটলে তো আর আলাদা করে কাউকে জানাতে হবে না, সকলে জানতেই পারবেন’। তিয়াসার প্রতি নিজের ভালোবাসার কথা জানিয়ে সুবান যোগ করেন, ‘আমি অতীতেও সবসময় তিয়াসার ভালো চেয়ে এসেছি। ভবিষ্যতেও সেটাই চাইব’। 

এই টেলি দম্পতির প্রেমের শুরুটা গোবরডাঙায়, তাও অভিনয়ের সূত্র ধরেই। সুবানের বাড়ি গোবরডাঙায়, অন্যদিকে তিয়াসার মামারবাড়ি ওই শহরে। ছোট থেকে ওখানেই মানুষ হয়েছেন পর্দার ‘কৃষ্ণকলি’। সুবানের কথায়, ‘মঞ্চে অভিনয়ের সূত্রেই তিয়াসার সঙ্গে প্রেম। আমাদের নাটকের দলে সেই সময় নতুন নায়িকার দরকার ছিল। তখন থেকেই সবাই আমাদের নিয়ে মশকরা করত। পরে বন্ধুত্ব আরও গভীর হয়। প্রথমে ভেবেছিলাম বছর খানেক পর বিয়েটা করব, কিন্তু এরপর দুম করে এক রাতে বিয়ে হয়ে যায় আমাদের’। 

অপর এক সাক্ষাত্কারে অভিনেতা নিজের দাম্পত্য সম্পর্ক নিয়ে জানিয়েছেন, ‘বিয়ের পর তিয়াসা কাজের জন্যই গোবরডাঙা থেকে টালিগঞ্জে আমার সঙ্গে থাকতে শুরু করে।আমাদের দুজনের কাজের ধারাটাই এমন সেভাবে গুছিয়ে সংসার করা হয়ে উঠেনি।এ রকমও হয়েছে, একই ছাদের তলায় থেকে প্রায় এক মাস একে অপরের মুখ দেখতে পাইনি। এক জন শ্যুটে বেরোতাম, অন্য জন শ্যুট থেকে বাড়ি ঢুকত। কিংবা উল্টোটা’।

সুবান-তিয়াসার বিচ্ছেদের গুঞ্জন যদিও নতুন নয়। বছর দুয়েক আগেও এমন রটনা শোনা গিয়েছিল। কিন্তু তারপরেও বহুবার একসঙ্গে হাসিমুখে পাওয়া গেছে এই দম্পতিকে। একসঙ্গে জন্মদিন পালন থেকে শুরু করে গত বছর অক্টোবরে তিন নম্বর বিবাহবার্ষিকী উদযাপন। এই জুটির ভক্তরাও ভীষণ আশাবাদী ঘরভাঙার গুঞ্জন যেন নেহাত গুঞ্জনই হয়। 

সুবান আপতত ব্যস্ত তাঁর নতুন প্রোজেক্ট নিয়ে, সান বাংলার নতুন সিরিয়াল ছাড়াও শীঘ্রই জি বাংলা অরিজিন্যালসের ‘আমি তুমি আর মালতী’তে দেখা যাবে তাঁকে। এ বারে খলনায়ক নয়, পুরোদস্তুর রোম্যান্টিক চরিত্রে। ২৫ জুলাই জি বাংলায় সম্প্রচারিত হবে এই ছবি। 

বন্ধ করুন