বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > Bizarre Beauty Trend: ইনজেকশন দিয়ে মলদ্বারে চাউমিন-মশলা ভরার Beauty Trend! কী হতে পারে এতে
মলদ্বারে চাউমিনের মশলা বা চিকেন কিউব ইনজেকশনের মাধ্যমে ভরে দিচ্ছেন অনেকে। (ছবি: টুইটার)
মলদ্বারে চাউমিনের মশলা বা চিকেন কিউব ইনজেকশনের মাধ্যমে ভরে দিচ্ছেন অনেকে। (ছবি: টুইটার)

Bizarre Beauty Trend: ইনজেকশন দিয়ে মলদ্বারে চাউমিন-মশলা ভরার Beauty Trend! কী হতে পারে এতে

  • অনেকেই নিতম্ব বড় এবং সুডৌল করার জন্য এই রাস্তা নিচ্ছেন। কিন্তু এটি মোটেই নিরাপদ নয়। এমনই বলছেন চিকিৎসকরা। 

নিজের চেহারা নিয়ে অনেকেই সুখী হন না। আর তাই চিকিৎসকের কাছে যাওয়া, অস্ত্রোপচার করানোর মতো সিদ্ধান্ত নেন অনেকে। চেষ্টা করেন, প্রকৃতি যেমন চেহারা দিয়েছে, সেটি বদলে নিজের পছন্দ মতো চেহারা তৈরির। তবে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ ছাড়াও অনেক নিজের ইচ্ছামতো অনেক কিছু করার চেষ্টা করেন। তার সবগুলি যে নিরাপদ, তাও নয়। কোনও কোনওটা মারাত্মক বিপদ ডেকে আনতে পারে।

হালে এমনই এক Beauty Trend নিয়ে জোরদার আলোচনা শুরু হয়েছে। নিতম্ব বড় এবং সুডৌল করার উদ্দেশ্যে এক মহিলা নুডলস-মশলা বা চিকেন কিউব জাতীয় মশলা ডলে গুলে ইনজেশনের মাধ্যমে ভরে দিয়েছেন মলদ্বারে। 

 

কী ভেবে মলদ্বারে এই মশলা গুলে ইনজেকশনের মাধ্যমে ভরে দিচ্ছেন অনেকে? 

তাঁদের ধারণা, মলদ্বারের ত্বকের ভিতর দিয়ে এই মশলা শরীর টেনে নেবে। বিশেষ করে এর মধ্যে থাকা নুন এবং তেল নিতম্ব এলাকায় ঢুকে যাবে। তাতে নিতম্বের আকার বাড়বে। ঘানা, রিপাবলিক অব কঙ্গো-সহ আফ্রিকার বহু দেশে এই প্রবণতা দেখা গিয়েছে। সেখান থেকে ছড়িয়েছে পৃথিবীর বহু দেশেই।

 

কী থাকে এই জাতীয় মশলায়?

এই মশলায় নানা ধরনের উপাদান রয়েছে। যেগুলির অনেকগুলিই মলদ্বারের ত্বক দিয়ে শরীরে ঢুকতে পারে। কী কী সেই উপাদান?

  • মোনোসোডিয়াম গ্লুটামেট (monosodium glutamate)
  • লঙ্কা
  • মরিচ
  • চিনি
  • কর্ন স্টার্চ
  • পাম তেল
  • প্রচুর নুন

 

এই দাবি কত দূর সত্যি?

সম্প্রতি ঘানার এক চিকিৎসকের নজরে এসেছে, সে দেশের অনেকেই নিজেদের শরীর নিয়ে এই কাণ্ডটি করছেন। তিনি টুইটারে প্রথম বিষয়টির প্রতি আলোকপাত করেন। তার পরে আরও অনেক চিকিৎসকই এই বিষয়টি নিয়ে সরব হন। তাঁদের প্রত্যেকেই জানিয়েছেন, এটির কোনও বৈজ্ঞানিক ভিত্তি তো নেই-ই, উল্টে এর ফলে শরীরের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

 

কী ধরনের ক্ষতি হতে পারে এতে?

মলদ্বারের ত্বক দিয়ে মারাত্মক পরিমাণে নুন শরীরে ঢুকে যেতে পারে। এর ফলে রক্তচাপ বেড়ে যেতে পারে। হাইপারটেনশনের সমস্যা দেখা দিতে পারে বিপুল ভাবে। এমনকী এর মাঝে আফ্রিকায় হার্ট অ্যাটাক হয়ে এক মহিলার মৃত্যুও হয়েছে এই কাণ্ড ঘটাতে গিয়ে।

এ ধরনের কোনও পরীক্ষা নিরীক্ষা করার বিষয়ে সতর্ক করছেন সারা পৃথিবীর চিকিৎসকরাই। এতে বড় ক্ষতি হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা প্রবল।

বন্ধ করুন