২২ জানুয়ারি ফাঁসি (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
২২ জানুয়ারি ফাঁসি (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

২২ জানুয়ারি সকাল ৭টায় ফাঁসিতে ঝুলবে নির্ভয়ার ধর্ষকরা

  • ২২ জানুয়ারি, সকাল সাতটা। দীর্ঘ সাত বছর লড়াইয়ের পর এখন এই সময়টার দিকেই তাকিয়ে রয়েছেন নির্ভয়ার বাবা-মা। তবেই পূর্ণতা পাবে তাঁদের লড়াই।

নির্ভয়া কাণ্ডে দোষীদের বিরুদ্ধে মৃত্যু পরোয়ানা জারি করল দিল্লির পাতিয়ালা হাউস কোর্ট। আগামী ২২ জানুয়ারি সকাল সাতটায় চার দোষী - মুকেশ সিং, পবন গুপ্ত, অক্ষয় ঠাকুর ও বিনয় শর্মাকে ফাঁসিতে ঝোলানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়়ুন : নির্ভয়ার ধর্ষকদের ফাঁসি ২২ জানুয়ারী- অবশেষে বিচার পেলাম, বললেন খুশি মা

রায় ঘোষণার পর নির্ভয়ার মা আশাদেবী বলেন, 'আমার মেয়ে বিচার পেয়েছে। চারজনকে ফাঁসিতে ঝোলানো হলে দেশের মেয়েরা শক্তিশালী হবে। এই সিদ্ধান্ত দেশের বিচারব্যবস্থার উপর ভরসা বাড়াবে।' আদালতের রায়ে খুশি নির্ভয়ার বাবা বদ্রীনাথ সিংও। তিনি বলেন, 'আদালতের রায়ে খুশি আমি। যারা এই ধরনের অপরাধ করে, তাদের মধ্যে ভয় ঢোকাবে এই রায়।'

আরও পড়ুন : নির্ভয়া কাণ্ডের সাত বছর- ফাঁসুড়ে হতে চেয়ে বিদেশ থেকে চিঠি তিহাড়ে

২০১২ সালে ডিসেম্বরে নৃশংস গণধর্ষণ কাণ্ডের এক বছরের মধ্যেই চারজনের ফাঁসির সাজা ঘোষণা করে ট্রায়াল কোর্ট। মৃত্যদণ্ড বহাল রাখে দিল্লি হাইকোর্ট। সর্বোচ্চ শাস্তির বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জমা পড়ে। ২০১৭ সালে তা খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত। সেই রায় পুনর্বিবেচনা আর্জিও খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

আরও পড়ুন : তৈরি তিহাড়, নির্ভয়ার ৪ ধর্ষকের ফাঁসির দায়িত্বে মীরাটের ফাঁসুড়ে

আরও পড়ুন : নির্ভয়ার হত্যাকারীকে ক্ষমার আর্জি খারিজের সুপারিশ দিল্লি সরকারের

এরইমধ্যে দোষীদের দ্রুত ফাঁসির আর্জি জানিয়েছে দিল্লির একটি আদালতে যায় নির্ভয়ার পরিবার। দোষীদের বিরুদ্ধে মৃত্যু পরোয়ানা জারির আর্জি জানান পরিবারের সদস্যরা। কিন্ত গতমাসে শুনানি পিছিয়ে দিয়েছিলেন অতিরিক্ত দায়রা বিচারক সতীশ কুমার অরোরা। সেই সময় কোর্টেই কেঁদে ফেলেছিলেন নির্ভয়ার মা।

আরও পড়ুন : এনকাউন্টারের পক্ষে নির্ভয়ার মা, আইনেই আস্থা মহিলা কমিশনের

আজ শুনানির শুনানিতে সরকার পক্ষের আইনজীবী জানান, দোষীদের কোনও আর্জি আদালত বা রাষ্ট্রপতির বিবেচনার জন্য পড়ে নেই। সকলেরই রিভিউ পিটিশন খারিজ হয়ে গিয়েছে। দোষীদের বিরুদ্ধে জারি করার আর্জি জানিয়ে তিনি বলেন, 'মৃত্যু পরোয়ানা জারি ও ফাঁসি কার্যকর হওয়ার মধ্যে দোষীরা পুনর্বিবেচনার আর্জি জানাতে পারে।'

আরও পড়ুন : নির্ভয়া কাণ্ড- ফাঁসির সাজা পুনর্বিবেচনার আর্জি খারিজ সুপ্রিম কোর্টের

সবপক্ষের কথা শোনার পর বিকেল পাঁচটা নাগাদ রায় দান করেন বিচারক। ২২ জানুয়ারি সকাল সাতটার মধ্যে চার দোষীকে ফাঁসিতে ঝোলানোর নির্দেশ দেন। তবে আইনি সহায়তার নেওয়ার জন্য ১৪ দিনের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছেন বিচারক।

দু-একদিনের সুপ্রিম কোর্টে পুনর্বিবেচনার আর্জি জানানো হবে বলে জানান দোষী পক্ষের আইনজীবী এপি সিং। তিনি বলেন, 'পাঁচ সবচেয়ে সিনিয়র বিচারপতি সেই আর্জি শুনবেন। মামলার শুরু থেকেই সংবাদমাধ্যম, জনসাধারণ, রাজনৈতিক চাপ ছিল। নিরপেক্ষ তদন্ত হয়নি।'

আরও পড়ুন : নির্ভয়ার হত্যাকারীকে ক্ষমার আর্জি খারিজের সুপারিশ দিল্লি সরকারের


বন্ধ করুন