বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Sri Kartarpur Sahib: পাকিস্তানে শিখদের পবিত্র গুরুদ্বার চত্বরে নাচের পার্টিতে মদ মাংস! কর্তারপুর সাহিবে একী কাণ্ড!

Sri Kartarpur Sahib: পাকিস্তানে শিখদের পবিত্র গুরুদ্বার চত্বরে নাচের পার্টিতে মদ মাংস! কর্তারপুর সাহিবে একী কাণ্ড!

 কর্তারপুর সাহিব অত্যন্ত পবিত্র স্থান শিখদের কাছে। (PTI Photo) (PTI)

পাকিস্তানে অত্যন্ত নিন্দনীয় ঘটনা সামনে এসেছে। কর্তারপুর সাহিব চত্বরে গুরুদ্বার কমিটি ও স্থানীয় প্রশাসন একটা নাচের পার্টির আয়োজন করেছিল। আর সেখানে গুরুদ্বারা চত্বরে মদ ও মাংস খাওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছেন এক বিজেপি নেতা।

পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশের নারোয়াল জেলায় কর্তারপুর সাহিব চত্বরে গুরুদ্বার কমিটি ও প্রশাসন একটা নাচের পার্টির আয়োজন করেছিল। আর সেখানে গুরুদ্বারা চত্বরে মদ ও মাংস খাওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছেন এক বিজেপি নেতা। বিজেপি নেতা তথা দিল্লি শিখ গুরুদ্বারা ম্য়ানেজমেন্ট কমিটির প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মঞ্জিন্দর সিং সিরসা জানিয়েছেন, পাকিস্তানের ওই গুরুদ্বারা চত্বরে নাচের পার্টির সময় মাংস আর মদ খাওয়া হয়েছে। তাঁর দাবি পাকিস্তান সরকারকে এনিয়ে কড়া ব্য়বস্থা নিতে হবে। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তিনি জানিয়েছেন।

কিন্তু ঘটনা কী হয়েছিল বলে দাবি করা হচ্ছে?

পিএমইউ কর্তারপুর করিডোর কমিটি ও স্থানীয় ডেপুটি কমিশনার ও ডিএসপির পক্ষ থেকে একটা নাচের পার্টির আয়োজন করা হয়েছিল। আর সেই পার্টিতে মদ মাংস খাওয়া হয়েছে বলে বিজেপি নেতার অভিযোগ। তিনি সাফ জানিয়েছেন, এই ধরনের আচরণের তীব্র নিন্দা করছি। পাক সরকারের কাছে আবেদন করছি কঠোরতম ব্যবস্থা নিতে হবে। যারা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত তাদেরকে জেলে পাঠাতেই হবে।

 

এদিকে গুরুদ্বারা অত্যন্ত পবিত্র স্থান বলে বিবেচিত করা হয়। সেখানে এভাবে মাংস, মদ ভক্ষণের মতো ঘটনা মেনে নিতে পারছেন না তাঁরা। এতে অনেকেরই ভাবাবেগে আঘাত লেগেছে। এদিকে দিল্লি শিখ গুরুদ্বারা ম্য়ানেজমেন্ট কমিটির প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মঞ্জিন্দর সিং সিরসা একটি ভিডিয়ো এক্স হ্যান্ডেলে পোস্ট করেছেন। সেখানে দেখা গিয়েছে, অনেকেই নাচ গান করছেন। তবে বিজেপি নেতার দাবি, ওটা নন ভেজ পার্টি ছিল। অন্তত ৮০জন যোগ দিয়েছিলেন ওই পার্টিতে। শিখ সম্প্রদায়ের লোকজন এই ঘটনায় অত্যন্ত ব্যথিত বলে জানিয়েছেন তিনি।

তিনি এক্স হ্যান্ডেলে লিখেছেন, গুরু নানকজী যেখানে শেষ নিঃশ্বাস ত্য়াগ করেছিলেন সেই পবিত্র স্থানে এভাবে অসম্মানজনক আচরণ করাটা ঠিক নয়। গোটা বিশ্বের শিখ সম্প্রদায় এনিয়ে অত্যন্ত কষ্ট পেয়েছেন। পাকিস্তান সরকারের কাছে দাবি করছি এই ঘটনার দায় কাদের সেটা চিহ্নিত করতে হবে। সেই সঙ্গে এই ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোরতম ব্যবস্থা নিতে হবে।

এদিকে এই ভিডিয়ো এক্স হ্যান্ডেলে পোস্ট করতেই অনেকেই অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। কারণ তাঁদের মতে, এটা মেনে নেওয়া যায় না।

 

বন্ধ করুন