বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > CEC and ECs Bill Passed: বিরোধীদের আপত্তি সত্ত্বেও রাজ্যসভায় পাশ নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ বিল, কী বলা আছে তাতে?

CEC and ECs Bill Passed: বিরোধীদের আপত্তি সত্ত্বেও রাজ্যসভায় পাশ নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ বিল, কী বলা আছে তাতে?

রাজ্যসভা থেকে ওয়াকআউট করছেন বিরোধী সাংসদরা (PTI)

নয়া এই বিলে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের সমান বেতন দেওয়া হবে দেশের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার এবং বাকি দুই নির্বাচনী কমিশনারকে। এদিকে নয়া বিলে নির্বাচনী কমিশনারদের 'সার্চ কমিটি' নিয়েও প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তিন সদস্যের সেই সার্চ কমিটির প্রধান হবেন আইনমন্ত্রী।

মুখ্য নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগ ও চাকরির শর্তাবলী নিয়ন্ত্রণের জন্য পেশ হওয়া বিল পাশ হয়ে গেল রাজ্যসভায়। গতকাল এই বিলের বিরোধিতায় বিরোধী সাংসদরা অধিবেশন কক্ষ থেকে ওয়াকআউট করেন। উল্লেখ্য, গত ১০ অগস্ট এই বিলটি সংসদে পেশ করা হয়েছিল। এরপর কিছু সংশোধনী করে ফেল তা পেশ করা এই শীতকালীন অধিবেশনে। এই আবহে গতকাল সংসদের উচ্চকক্ষে পাশ হয় এই বিলটি। প্রসঙ্গত, ১৯৯১ সালের আইন অনুযায়ী এতদিন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগ সংক্রান্ত কোনও ধারা ছিল না। সেই আইন বদলাতে ওই বিল পেশ করা হয়। এই আবহে আইনমন্ত্রী অর্জুন রাম মেঘওয়াল জানান, নয়া নিয়মে যে কেউ ভারতের নির্বাচন কমিশনার হতে পারেন। কিন্তু সেই পদে বসার জন্য নির্দিষ্ট শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকতে হবে। আর এই আবহে বিরোধীদের অভিযোগ, মুখ্য নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য কমিশনার নিয়োগে সুপ্রিম কোর্ট যে রায় দিয়েছে, তা এড়াতেই এই বিল আনা হয়েছে। আপ সাংসদ রাঘব চড্ডা বলেন, এই বিলের ফলে তো বিজেপির সম্বিত পাত্রও মুখ্য নির্বাচন কমিশনার হতে পারেন। (আরও পড়ুন: 'GST-র এক টাকাও বকি নেই, ৪ বছরে AG-র কোনও রিপোর্ট দেয়নি বাংলা', বললেন নির্মলা)

প্রসঙ্গত, নির্বাচন কমিশন গঠনের বিষয়ে গত মার্চ মাসেই ঐতিহাসিক রায় দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। নির্দেশে বলা হয়েছিল, মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সহ অন্যান্য কমিশনার নিয়োগের দায়িত্বে থাকা কমিটিতে প্রধানমন্ত্রী, বিরোধী দলনেতার সঙ্গে থাকবেন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি। তবে সেই কমিটি থেকে প্রধান বিচারপতির নাম 'কাটতে' অগস্টেই বিল এনেছিল সরকার। সেই বিলে প্রস্তাব দেওয়া হয়, দেশের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের কমিটিতে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী, লোকসভার বিরোধী দলনেতা এবং প্রধানমন্ত্রীর মনোনীত একজন মন্ত্রী। কমিটির বৈঠক ডাকবেন প্রধানমন্ত্রীই। সুপ্রিম কোর্টের মার্চের রায়কে নাকচ করতেই এই নয়া বিল আনা হয়েছিল। সেই বিলেই আরও কিছু সংশোধন করে তা গতকাল ফের পেশ করা হয়েছিল সংসদে। এবং পরে তা পাশও করানো হয়।

আরও পড়ুন: গাজায় যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব পেশ রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভায়, পক্ষে ভোট দিল ভারত

নয়া এই বিলে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের সমান বেতন দেওয়া হবে দেশের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার এবং বাকি দুই নির্বাচনী কমিশনারকে। এদিকে নয়া বিলে নির্বাচনী কমিশনারদের 'সার্চ কমিটি' নিয়েও প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, কমিশনারদের খুঁজতে তিন সদস্যের সার্চ কমিটি থাকবে। কমিটির প্রধান হবেন আইনমন্ত্রী। তাছাড়াও কমিটিতে সচিব পদের দুই আমলা থাকবেন। এই কমিটি পাঁচজন সম্ভাব্য প্রার্থীকে বেছে নেবে। যার থেকে শেষ পর্যন্ত কমিশনারকে বেছে নেওয়া হবে। এদিকে নয়া বিলের প্রস্তাব অনুযায়ী, সুপ্রিম কোর্টের কোনও বিচারপতিকে অপসারণ করতে যে প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়, এরপর থেকে মুখ্য নির্বাচন কমিশনারকে অপসারণের ক্ষেত্রেও সেই প্রক্রিয়া অসুরণ করা হবে। অন্য দুই কমিশনারকে অপসারণ করা হতে পারে মুখ্য নির্বাচনী কমিশনারের সুপারিশে।

ঘরে বাইরে খবর

Latest News

জগন্নাথের টানে ঘুরেছেন গোটা দেশ, করেছেন গবেষণা, গল্প একনিষ্ঠ ভক্ত মকবুল ইসলামের ‘‌বেনানা রিপাবলিক হয়ে উঠতে পারে না’‌, মুখ্যমন্ত্রীর কাছে রিপোর্ট তলব রাজ্যপালের ছেলেকে নিয়ে ভারত ছেড়েছেন,বিদেশে নাতাশার নতুন সংসার! হার্দিকের সাথে বিচ্ছেদ পাকা 'চাকরি পাওয়ার প্রথম অধিকার কন্নড়দের', জোর সওয়াল কর্নাটকের মন্ত্রীর ভারতে প্রতি মিনিটে বাধ্য হয়ে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন ৩ নাবালিকা! মর্মান্তিক রিপোর্ট অস্বাস্থ্যকর খাবার নিষিদ্ধ, কলেজে আর পিৎজা-বার্গার পাওয়া যাবে না! আরও একটি পালক, মোহনবাগানরত্ন পাচ্ছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, সেরা প্লেয়ার পেত্রাতোস ভাতের হোটেল চালানো নন্দিনীর এ কী রূপ! হাতে পানীয়ের গ্লাস, নেচে ঝড় তুললেন পাবে গুরু পূর্ণিমা ২০২৪ র তিথি কখন থেকে পড়বে? সর্বার্থ সিদ্ধিযোগের শুভ সময় দেখে নিন দুর্ঘটনায় হেল্পলাইন নম্বর চালু রেলের, ট্রেনটির যাওয়ার কথা ছিল বাংলার ওপর দিয়েই

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.