বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ভারত-নেপাল সীমান্তের খুঁটিতে ভাঙচুর, কারা রয়েছে এর পেছনে?
সম্প্রতি নেপালের প্রধানমন্ত্রী শের বাহাদুর দেউবা দেখা করেছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে। (Narendra Modi Twitter) (HT_PRINT)

ভারত-নেপাল সীমান্তের খুঁটিতে ভাঙচুর, কারা রয়েছে এর পেছনে?

  • ভারত ও নেপালের মধ্যে বরাবরই বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। তার মাঝেই এই ঘটনাকে ঘিরে নতুন করে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে।

মোহন রাজপুত

ইন্দো নেপাল সীমান্তের চম্পাওয়াত জেলায় একটি বর্ডার পিলারে ভাঙচুর করার অভিযোগ। এনিয়ে সশস্ত্র সীমাবল অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে টনকপুর থানায়। চম্পাওয়াতের এসপি দেবেন্দ্র পিনচা জানিয়েছেন, সীমান্তের পিলার ভাঙচুর করার অভিযোগে টনকপুর থানায় এসএসবি একটি অভিযোগ জানিয়েছে। পুলিশ ও সিকিউরিটি এজেন্সি সেই ঘটনার তদন্তে নেমেছে। উচ্চতর কর্তৃপক্ষকেও বিষয়টি জানানো হয়েছে। এদিকে ভারত ও নেপালের মধ্যে বরাবরই বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। তার মাঝেই এই ঘটনাকে ঘিরে নতুন করে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে।

এদিকে ভারত- নেপাল সীমান্তের নো ম্যানস ল্যান্ডে জবরদখলের সমস্যা মাঝেমধ্যেই তৈরি হয়। ২০২০ সালে নেপালের কয়েকজন বাসিন্দা টনকপুরের কাছে বেড়া দিয়ে নো ম্যানস ল্যান্ডে জবরদখল করার চেষ্টা করেছিলেন বলে অভিযোগ। এসএসবি যখন সেই বেড়া তুলতে যায় তখন ভারতবিরোধী নানা স্লোগান দেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ। এরপর এনিয়ে দুপক্ষের মধ্যে বিস্তর আলোচনা চলে। এরপর সেই বেড়া সরিয়ে দেয় এসএসবি

টনকপুর এসএসবির অ্য়াসিস্ট্যান্ট কমান্ডান্ট অভিনব তোমার বলেন, কিছুদিন আগেই পেট্রলিং টিম দেখেছিল একটি সীমান্ত খুঁটিতে ভাঙচুর করা হয়েছে। কিছু দুষ্কৃতী এটা করেছে। আমরা উত্তরাখণ্ড পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছি। সীমান্তে নজরদারির যথাযথ ব্যবস্থা করা হয়েছে।

 

এদিকে গত বছর এপ্রিল মাসেও খাতিমা এলাকায় জবরদখল হয়েছিল। এসএসবি তা সরিয়ে দেয়। ২০২০ সালের জুলাই মাসে টনকপুর ব্যারাজের কাছেও জবরদখলের অভিযোগ উঠেছিল।

বন্ধ করুন