বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > সব ঘরোয়া বিমানে উঠলেই দেওয়া যাবে খাবার, অবশেষে সবুজ সংকেত দিল কেন্দ্র
সব ঘরোয়া বিমানেই দেওয়া যাবে খাবার, বিধিনিষেধ শিথিল করল কেন্দ্র। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য ব্লুমবার্গ)
সব ঘরোয়া বিমানেই দেওয়া যাবে খাবার, বিধিনিষেধ শিথিল করল কেন্দ্র। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য ব্লুমবার্গ)

সব ঘরোয়া বিমানে উঠলেই দেওয়া যাবে খাবার, অবশেষে সবুজ সংকেত দিল কেন্দ্র

  • সেইসঙ্গে বিমানে সবরকমের ম্যাগাজিন এবং পড়ার সামগ্রীর ক্ষেত্রেও সবুজ সংকেত দেওয়া হয়েছে।

এবার সব ধরনের ঘরোয়া বিমানেই দেওয়া যাবে খাবার। মঙ্গলবার সেই অনুমতি দিল কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক। সেইসঙ্গে বিমানে সবরকমের ম্যাগাজিন এবং পড়ার সামগ্রীর ক্ষেত্রেও সবুজ সংকেত দেওয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে কয়েক মাস বন্ধ থাকার পর গত বছর মে থেকে ঘরোয়া উড়ান পরিষেবা শুরু হয়। তবে দীর্ঘদিন ১০০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে ঘরোয়া উড়ান পরিষেবা চালু হয়নি। গত ১৮ অক্টোবর থেকে পুরো যাত্রী নিয়ে বিমান চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে দু'ঘণ্টার কম সময়ের ঘরোয়া উড়ানের ক্ষেত্রে খাবার দেওয়ার সবুজ সংকেত মেলেনি। যে নিষেধাজ্ঞা ১৫ এপ্রিল থেকে কার্যকর হয়েছিল। আপাতত দেশজুড়ে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে থাকার জন্য আবারও সব ধরনের ঘরোযা বিমানেই খাবার দেওয়ার ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্র।

তবে শুধু বিমান পরিবহণ নয়, পুরনো ছন্দে ফিরতে চলেছে ভারতীয় রেলও। গত সপ্তাহেই জানানো হয়েছে, ‘বিশেষ’ তকমা ঝেড়ে ফেলে পুরনো ফর্মে ফিরতে চলেছে ভারতীয় রেল। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই প্রাক-করোনাভাইরাস সময়ের ধাঁচেই চলবে ট্রেন। ফলে স্পেশাল ট্রেনে যে ৩০ শতাংশের মতো বাড়তি ভাড়া পড়ত, তাও নেওয়া হবে না। পুরনো ভাড়াই কার্যকর হবে। তবে কবে থেকে পুরনো ফর্মে ফিরবে ট্রেনগুলি, তা নির্দিষ্টভাবে এখনও জানানো হয়নি। বিষয়টি নিয়ে শুক্রবার রেলের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক সংবাদসংস্থা পিটিআইকে বলেছেন, ‘আঞ্চলিক রেলওয়েগুলিকে (জোনাল রেলওয়ে) জানিয়ে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এখন থেকেই সেই নির্দেশ কার্যকর করতে বলা হলেও সেই প্রক্রিয়া চালু হতে এক থেকে দু'দিন লাগবে।’

বন্ধ করুন