বাড়ি > ঘরে বাইরে > দিল্লি ধর্ষণকাণ্ডে মৃত্যুদণ্ড পুনর্বিবেচনার আর্জি শুনলেন না বোবডে
রিভিউ পিটিশনের আর্জির শুনানি থেকে সরে দাঁড়ালেন প্রধান বিচারপতি শরদ অরবিন্দ বোবডে।
রিভিউ পিটিশনের আর্জির শুনানি থেকে সরে দাঁড়ালেন প্রধান বিচারপতি শরদ অরবিন্দ বোবডে।

দিল্লি ধর্ষণকাণ্ডে মৃত্যুদণ্ড পুনর্বিবেচনার আর্জি শুনলেন না বোবডে

  • রিভিউ পিটিশনের শুনানি থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন বিচারপতি বোবডে। তবে শুনানির জন্য তিনি নতুন বেঞ্চ গঠন করে দেবেন বলেও জানান।

দিল্লি গণধর্ষণকাণ্ডে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ৪ আসামির মধ্যে একজনের রিভিউ পিটিশনের আর্জির শুনানি থেকে সরে দাঁড়ালেন প্রধান বিচারপতি শরদ অরবিন্দ বোবডে।

মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতির সিদ্ধান্তের পরে প্রাণদণ্ডের রায়ে আসামি অক্ষয় ঠাকুরের পুনর্বিবেচনায় আবেদনের শুনানি অন্য এক বেঞ্চে হবে বলে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

এ দিন ওই আবেদনের শুনানি শুরু হওয়ার কিছু ক্ষণের মধ্যেই প্রধান বিচারপতি জানান, আবেদনপত্রে এক আইনজীবীর নাম দেখার পরে তিনি ওই শুনানিতে থাকবেন কি না, তা চিন্তা করছেন।

সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা জানান, সংশ্লিষ্ট আইনজীবী আসামির পক্ষে মামলা লড়ছেন। তা সত্ত্বেও শেষমেষ শুনানি থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন বিচারপতি বোবডে। আবেদনের শুনানির জন্য তিনি নতুন বেঞ্চ গঠন করে দেবেন বলেও জানান।

আসামি অক্ষয় ঠাকুরের আইনজীবী এ পি সিং বলেন, গণধর্ষণ মামলায় রাজনৈতিক ও সংবাদমাধ্যমের অতিরিক্ত চাপ থাকায় চূড়ান্ত অবিচারের শিকার হয়েছেন তাঁর মক্কেল।

উল্লেখ্য, দিল্লি ধর্ষণকাণ্ডে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বাকি তিন আসামি প্রাণভিক্ষা এবং রায় পুনর্বিবেচনার আবেদমন জানালেও আগে কোনও পদক্ষেপ করেনি অক্ষয় ঠাকুর। সম্প্রতি তিহাড় জেল কর্তৃপক্ষ ফাঁসির আদেশ কার্যকর করার প্রস্তুতি নিচ্ছে, সেই খবর পেয়ে সে প্রাণদণ্ড পুনর্বিবেচনার আর্জি জানায়।

এই মামলায় অভিযুক্ত ছয় জনের মধ্যে ঘটনার সময় অপ্রাপ্তবয়স্ক থাকার কারণে তিন বছর কারাবাসের পরে মুক্তি পায় এক আসামি। বাকি ৫ জনের মধ্যে জেলে আত্মহত্যা করে অভিযুক্ত রাম সিং। বাকি ৪ আসামিকে প্রাণদণ্ড দেয় সুপ্রিম কোর্ট। তাদের প্রাণভিক্ষার আর্জি নাকচ করেন রাষ্ট্রপতিও। কিছু দিনের মধ্যে চার আসামির ফাঁসি কার্যকর করা হবে তিহাড় জেলে।

বন্ধ করুন