তৃতীয় দফার লকডাউনে দশ দিন এখনও বাকি। কিন্তু ইতিমধ্যেই আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ হাজার ছড়িয়েছে, মৃত্যু হয়েছে ১৭৮৩ জনের। এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৫২৬৬ জন। কেরালা সহ অনেক রাজ্যে অ্যাক্টিভ কেসের থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি। 

দেশে আক্রান্তের তালিকায় শীর্ষে মহারাষ্ট্র (১৬৭৫৮)। গুজরাতে (৬৬২৫) ও তামিলনাড়ুতে ৪৮২৯জন করোনায় আক্রান্ত। পশ্চিমবঙ্গ সহ এগারো রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা হাজারের অধিক। মৃতের সংখ্যাতেও সর্বাধিক মহারাষ্ট্র (৬৫১)। গুজরাতে মারা গিয়েছেন ৩৯৬,  মধ্যপ্রদেশে মৃত ১৮৫। পশ্চিমবঙ্গে আক্রান্তের সংখ্যা ১৪৫৬, মৃত ১৪৪। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে মোট মৃতের ৭০ শতাংশের বেশি কোমর্বিডিটির জন্য। 

এবার দেখা যাক কোন কোন রাজ্যে ও কেন্দ্রীয় শাসিত অঞ্চলে অ্যাক্টিভ কেসের থেকে সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা বেশি- 

নামআক্রান্তের সংখ্যাসুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা
আন্দামান অ্যান্ড নিকোবার আইল্যান্ড৩৩৩২
অরুনাচল প্রদেশ
অসম৪৫৩২
ছত্তিশগড়৫৯৩৬
গোয়া
হিমাচল প্রদেশ৪৫৩৮
কর্নাটক৬৯৩৩৫৪
কেরালা৫০৩৪৬৯
মনিপুর
মেঘালয়১২১০
পুদুচ্চেরি
তেলেঙ্গানা১১০৭৬২৮
উত্তরাখণ্ড৬১৩৯

আগামী ১৭ মে অবধি লকডাউন বৃদ্ধি করা হয়েছে দেশে। ধীরে ধীরে উঠে যাচ্ছে অনেক বাধানিষেধ, এমনকী রেড জোনেও।কিন্তু এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে দ্রুত। তাই চিন্তা থেকেই যাচ্ছে। যদিও গুণিতক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে না আ্ক্রান্তের সংখ্যা সেটা ইতিবাচক। বড় রাজ্যের মধ্যে অসম,  কেরালা, কর্নাটক ও তেলেঙ্গানায় অ্যাক্টিভ কেসের থেকে সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা বেশি। যা অত্যন্ত ইতিবাচক। সব মিলিয়ে ১৩টি রাজ্য ও কেন্দ্রীয় শাসিত অঞ্চলে অ্যাক্টিভ কেসের থেকে সুস্থ হয়ে যাওয়া রোগীর সংখ্যা বেশি। 

বন্ধ করুন