বাড়ি > ঘরে বাইরে > রেচিং লা'তে সংঘাতের জেরে ঝামেলা ভারত-চিন সেনার, উত্তপ্ত পূর্ব লাদাখ সীমান্ত
রেচিং লা'তে সংঘাতের জেরে হাতাহাতি ভারত-চিন সেনার, চলল সতর্কতামূলক গুলি (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য টুইটার @amitsurg)
রেচিং লা'তে সংঘাতের জেরে হাতাহাতি ভারত-চিন সেনার, চলল সতর্কতামূলক গুলি (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য টুইটার @amitsurg)

রেচিং লা'তে সংঘাতের জেরে ঝামেলা ভারত-চিন সেনার, উত্তপ্ত পূর্ব লাদাখ সীমান্ত

  • দু'দেশই কমান্ডার পর্যায়ের আলোচনা চালাচ্ছে।

শিশির গুপ্ত 

দু'দিন পরেই মস্কোয় বৈঠকে বসবেন ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকর ও চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ই। তার আগে রেজাং লা-রেচিং লা বরাবর হাতাহাতিতে জড়াল ভারতীয় সেনা ও আগ্রাসী চিনা সেনা। যে লাল ফৌজ প্যাংগং সো লেকের দক্ষিণ তীরে একতরফাভাবে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার অবস্থান পরিবর্তন করতে চায়।

মঙ্গলবার সকালে উচ্চপদস্থ ভারতীয় আধিকারিকরা জানিয়েছেন, সোমবার সন্ধ্যায় রেচিং লা'তে ভারত ও চিনের সেনার মধ্যে সংঘাতে চরমে পৌঁছেছিল। যা সন্ধ্যা ৬ টা ১৫ মিনিট নাগাদ শুরু হয়েছিল। আপাতত সীমান্তে পরিস্থিতি উত্তপ্ত রয়েছে। তবে দু'দেশই কমান্ডার পর্যায়ের আলোচনা চালাচ্ছে। 

পূর্ব লাদাখে ভারত-চিনের দ্বন্দ্বের যাবতীয় খবর দেখুন

তারইমধ্যে সোমবার মধ্যরাত পেরিয়ে পিপলস লিবারেশন আর্মির (পিএলএ) ওয়েস্টার্ন থিয়েটার কমান্ড অভিযোগ করে, সতর্কতামূলক গুলি চালিয়েছে ভারতীয় সেনা। পাশাপাশি ‘পরিস্থিতি স্থিতিশীল করার’ জন্য ‘পালটা পদক্ষেপ’ করা হয়েছে বলেও দাবি করে লাল ফৌজ। যদিও গুলি চালানোর অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে ভারত। বরং প্রতিরক্ষা মন্ত্রক জানিয়েছে, গুলি চালিয়েছে চিনা সেনা।

যদিও গত মাসের শেষ সপ্তাহেও দু'দেশের সেনার মধ্যে চরম উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। সেই সময় প্যাংগং সো লেকের দক্ষিণ তীরের ‘সবুজ লাইনে’ পৌঁছানোর চেষ্টা করেছিল চিন। চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে আবার লেকের দক্ষিণ দিকের সংঘাতপূর্ণ এলাকায় নিজেদের সামরিক উপস্থিতি বৃদ্ধি করে বেজিং। এমনিতেই ওই এলাকায় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা নিয়ে যথেষ্ট মতভেদ রয়েছে।

ওয়েস্টার্ন থিয়েটার কমান্ড সরাসরি চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের আওতায় রয়েছে। যে কমান্ডের তরফে ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে ‘আগ্রাসনের’ অভিযোগ তোলা হলেও ভারতের লক্ষ্য হল, নিজেদের ভূখণ্ড ধরে রাখা এবং চিন যেন ভারতীয় ভূখণ্ড জবরদখল করতে না পারে, তা নিশ্চিত করা। ওইসব এলাকায় মোতায়েন ভারতীয় সেনার কমান্ডারদের স্পষ্ট নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে তৎক্ষণাৎ সিদ্ধান্ত নিতে হবে। যাতে চিনার আগ্রাসনের পালটা জবাব দিতে কোনও সময় নষ্ট না হয়।

বন্ধ করুন