বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > দু'দিনে ১,০০০ টাকা সস্তা হল সোনা, সপ্তাহশেষে কিছুটা স্বস্তিতে আমজনতা
দু'দিনে ১,০০০ টাকা সস্তা হল সোনা, সপ্তাহশেষে কিছুটা স্বস্তিতে আমজনতা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
দু'দিনে ১,০০০ টাকা সস্তা হল সোনা, সপ্তাহশেষে কিছুটা স্বস্তিতে আমজনতা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

দু'দিনে ১,০০০ টাকা সস্তা হল সোনা, সপ্তাহশেষে কিছুটা স্বস্তিতে আমজনতা

  • বিয়ের মরশুমেও চাহিদা কম আছে।

দু'মাসে সবথেকে দাম বেড়েছিল সোনা। সেখান থেকে সপ্তাহের শেষে কিছুটা পড়ল হলুদ ধাতুর দর। শুক্রবার ভারতীয় বাজারে ১০ গ্রাম গোল্ড ফিউচার্সের দাম ০.৪৪ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৭,৬৫০ টাকা। সার্বিকভাবে চলতি সপ্তাহে ১০ গ্রাম সোনার দাম ২০০ টাকার মতো বেড়েছে। 

গত বুধবার ১০ গ্রাম সোনার দাম ৪৮,৫০০ টাকায় পৌঁছে গিযেছিল। পরের দু'দিনে অবশ্য সোনার দাম কিছুটা কমেছে। তা সত্ত্বেও বিশ্ব বাজারের রেশ ধরে ১০ গ্রাম সোনার দাম ৩,৫০০ টাকা বেড়েছে। বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, এমসিএক্স সূচকে ৪৭,১৫০-৪৭,৪৫০ টাকার স্তরে সহায়তা পাচ্ছে ১০ গ্রাম হলুদ ধাতু। এমনিতে গত বছর অগস্টে রেকর্ড ৫৬,২০০ টাকায় পৌঁছে গিয়েছিল ১০ গ্রাম সোনা। তার ফলে রেকর্ড দরের তুলনায় এখনও প্রায় ৮,৫০০ টাকা কম আছে সোনার দর।

তবে খুচরো ব্যবসায়ীদের উদ্ধৃত করে সংবাদসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে বিধিনিষেধের কারণে ভারচতে সোনার চাহিদা ধাক্কা খেয়েছে। স্থানীয় স্তরে বিধিনিষেধের জেরে আগামী কয়েক সপ্তাহে সোনার চাহিদা কম থাকবে বলে মত খুচরো ব্যবসায়ীদের। যদিও এখন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিয়ের মরশুম চলছে। তা সত্ত্বেও চাহিদা বাড়বে না বলে ধারণা সংশ্লিষ্ট মহলের।

অন্যদিকে,  শুক্রবার বিশ্ব বাজারেও পড়েছে সোনার দাম। মার্কিন আর্থিক পরিসংখ্যানের ফলে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়ানোর যে আশা তৈরি হয়েছে, তার ফলে এক আউন্স স্পট গোল্ডের দাম ০.৮ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১,৭৭০.০৪ ডলার। 

বন্ধ করুন