বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Gold Prices dropped: দু'মাসে সবথেকে সস্তা হয়ে গেল সোনা! পতনের মুখে রুপোও
ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে পিটিআই (PTI)

Gold Prices dropped: দু'মাসে সবথেকে সস্তা হয়ে গেল সোনা! পতনের মুখে রুপোও

Gold Prices Today: গত ২ মাসে সবচেয়ে সস্তায় সোনা কেনার মস্ত বড় সুযোগ। সোনার দাম হ্রাসের এই প্রবণতার সুবিধা পাবেন আমজনতা। দাম কমছে ২৪ ও ২২ ক্যারাটের সোনার। 

বৃহস্পতিবার, ১ সেপ্টেম্বর গত ২ মাসের সর্বনিম্ন স্তরে নেমে এল সোনার দাম। বিশ্বজুড়েই অবশ্য মূল্যবান ধাতুগুলির বাজার দুর্বল। ভারতও ব্যাতিক্রম নয়। বুধবার ভারতীয় বাজারে সোনা ও রূপোর দাম গত ২ মাসের সর্বনিম্ন স্তরে নেমে এসেছে। MCX-এ, আজ হলুদ ধাতুর ফিউচার ০.৪% হ্রাস পেয়েছে। প্রতি ১০ গ্রামের দাম ৫০,২০০ টাকায় নেমে এসেছে। অন্যদিকে রূপোও বহু বছরের সর্বনিম্ন, কেজি প্রতি ৫২,৩৯৫ টাকায় নেমে এসেছে।

সাধারণত কোনও বস্তুর দাম হ্রাস পেলে চাহিদা বৃদ্ধি পায়। তবে এখনও সোনায় বিনিয়োগ করা থেকে পিছিয়ে আসছেন বিনিয়োগকারীরা। দাম কমলেও তাই চাহিদা বাড়েনি বিশ্ব বাজারে।

তবে সোনার দাম হ্রাসের এই প্রবণতার সুবিধা পাবেন আমজনতা। দাম কমছে ২৪ ও ২২ ক্যারাটের সোনার।

বৃহস্পতিবার ২৪ ক্যারেট এবং ২২ ক্যারেট সোনার দাম আরও কমেছে। চলতি সপ্তাহটা এমনই কাটবে বলে আন্দাজ বাজার বিশেষজ্ঞদের। তাঁদের মতে, ১০ গ্রাম ২২ ক্যারেট সোনার দাম ৪৭,০০০ থেকে ৪৭,৫৪০ টাকার মধ্যে ঘোরাফেরা করবে। অন্যদিকে এই একই পরিমাণ ২৪ ক্যারেট সোনা ৫১,২৭০ টাকা থেকে ৫১,৮৬০ টাকার মধ্যে থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে।

কলকাতায় ২৪ ক্যারেটের ১০ গ্রাম সোনার দাম এখন ৫১,২৭০ টাকা। ২২ ক্যারেটের ১০ গ্রাম সোনার দাম ৪৭,০০০ টাকা।

অন্যদিকে, রূপোর দামও প্রায় ৩,২০০ টাকা কমেছে। বর্তমানে কেজি প্রতি ৫০,৮০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভ দেশের বাজারে মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণের জন্য সুদের হার বাড়ায়। এই আক্রমনাত্মক নীতির ফলস্বরূপ বর্তমানে মার্কিন ডলার বিশ্ব বাজারে অনেকটাই স্থিতিশীল রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, এর প্রভাবে গত এক মাসে সোনার দাম কমে গিয়েছে। সোনার প্রতি আগ্রহ চলে গিয়েছে বিনিয়োগকারীদের।

সোনার দাম কি আরও কমবে?

বাজার বিশেষজ্ঞদের মতে, সোনার দাম খুব বেশি কমবে না। যতটা কমার, তা ইতিমধ্যেই কমেছে। নেতিবাচক প্রভাবগুলি কেটে গেলে দাম কিছুটা স্থিতিশীল হয়ে যাবে।

অর্থাত্, সোনার দাম বর্তমানে কমতেই পারে। তবে আগামিদিনে মন্দার ঝুঁকি, বিশ্বব্যাপী উচ্চ মূল্যস্ফীতির মতো কারণে ফের বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন