বাড়ি > ঘরে বাইরে > কীভাবে 'আনলাকি ১৩' হয়ে উঠেছিল প্রণব মুখোপাধ্যায়ের 'লাকি নম্বর'?
রাষ্ট্রপতি ভবনে ভারতরত্ন গ্রহণের অনুষ্ঠানে প্রণব মুখোপাধ্যায় (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
রাষ্ট্রপতি ভবনে ভারতরত্ন গ্রহণের অনুষ্ঠানে প্রণব মুখোপাধ্যায় (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

কীভাবে 'আনলাকি ১৩' হয়ে উঠেছিল প্রণব মুখোপাধ্যায়ের 'লাকি নম্বর'?

  • সেই ‘লাকি নম্বর’ ১৩-এর সঙ্গে প্রণববাবুর যোগ শুরু হয়েছিল পঞ্চাশের দশকে।

অনেকেই ১৩ শুনলেই ভ্রূ কুঁচকে নেন। আবার সেই 'আনলাকি ১৩'-এর গেরো! কিন্তু প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের কাছে  সেই ১৩ নম্বরই যেন ‘লাকি নম্বর’ ছিল।

আর সেই ‘লাকি নম্বর’ ১৩-এর সঙ্গে প্রণববাবুর যোগ শুরু হয়েছিল ১৯৫৭ সালে। সে বছরই ১৩ জুলাই বিয়ে হয়েছিল তাঁর। সেখান থেকে শুরু। পরবর্তীকালে সংসদে প্রণববাবুর অফিস নম্বর ছিল ১৩। এমনকী রাষ্ট্রপতি হওয়ার আগে পর্যন্ত দিল্লির যে বাড়িতে থাকতেন, তাতেও প্রণববাবুর ‘লাকি নম্বর’ ছিল। বাড়ির ঠিকানা - ১৩, তালকাটোরা রোড। 

প্রোটোকল অনুযায়ী, ক্যাবিনেট মন্ত্রী হিসেবে টাইপ আট বাংলো পাওয়ার কথা থাকলেও তালকাটোরা রোড টাইপ সাত বাংলোতেই থাকত মুখোপাধ্যায় পরিবার। আকারে ছোটো হলেও প্রণববাবুর বিভিন্ন কৌশল, নীতির সাক্ষী থেকেছে সেই বাংলো। পরমাণু চুক্তি নিয়ে বামেদের সঙ্গে বৈঠক হোক, বিশ্বের তাবড় তাবড় নেতাদের সঙ্গে ফোনে কথা হোক - সবকিছু জানত তালকাটোরা রোডের বাংলো। কংগ্রেসের সংবিধান সংশোধন সংক্রান্ত নথিও সেই বাংলোয় বসে তৈরি করেছিলেন প্রণববাবু। 

স্বভাবতই সেই  বাংলোটিকে অত্যন্ত শুভ বলে মনে করত মুখোপাধ্যায় পরিবার। এমনকী প্রতিরক্ষামন্ত্রী হওয়ার পর সেই বাংলো ছেড়ে যাওয়ার প্রস্তাবে রাজি হননি প্রণববাবুর স্ত্রী শুভ্রাদেবী। বছর ১৭ সেখানেই থাকার পর অবশ্য সেই বাংলো শেষপর্যন্ত ছাড়তে হয়েছিল প্রণববাবুকে। ২০১২ সালে রাষ্ট্রপতি হওয়ার পর পাড়ি দিয়েছিলেন রাষ্ট্রপতি ভবনে। কিন্তু সেখানেও ছিল ‘লাকি নম্বর ১৩’। কারণ প্রণববাবু যে দেশের ১৩ তম রাষ্ট্রপতি হয়েছিলেন।

বন্ধ করুন