বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘ভুল’ ইংরেজি নিয়ে চূড়ান্ত ট্রোলের শিকার, হেসে উড়িয়ে দিলেন নয়া স্বাস্থ্যমন্ত্রী
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডবিয়া। (ছবি সৌজন্য পিটিআই এবং টুইটার)
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডবিয়া। (ছবি সৌজন্য পিটিআই এবং টুইটার)

‘ভুল’ ইংরেজি নিয়ে চূড়ান্ত ট্রোলের শিকার, হেসে উড়িয়ে দিলেন নয়া স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • ‘ভুল’ ইংরেজিতে টুইট করায় নয়া দায়িত্ব পাওয়ার পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলের মুখ পড়লেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডবিয়া।

'মহাত্মা গান্ধীজি আমাদের বাবার দেশ।' বছরকয়েক ‘ভুল’ ইংরেজিতে টুইট করায় নয়া দায়িত্ব পাওয়ার পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলের মুখ পড়লেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডবিয়া। যদিও তিনি নিজে সেই বিষয়ে কোনও পাত্তা দেননি।

বুধবার নরেন্দ্র মোদীর সরকারে বড় দায়িত্ব পেয়েছেন মাণ্ডবিয়া। ক্যাবিনেট পর্যায়ের মন্ত্রী করার পাশাপাশি করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে তাঁকে স্বাস্থ্যের মতো গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রক দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সেইসব ছাপিয়ে মাণ্ডবিয়ার পুরনো কয়েকটি টুইটের স্ক্রিনশট ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। সেখানে একটি টুইটে লেখা, ‘মহাত্মা গান্ধীজি আমাদের বাবার দেশ (Mahatma gandhiji is our nation of father’। অপর একটি টুইটে লেখা, ‘Happy indipedent day’। 

সেই ‘ভুলের’ জন্য নেটিজেনদের একাংশ তাঁকে চূড়ান্ত কটাক্ষ করেছেন। একজন সেই টুইটের স্ক্রিনশট শেয়ার করে লিখেছেন, 'শুধুমাত্র লেজেন্ডরা এই টুইটের অর্থ বুঝতে পারবেন।' অপর এক নেটিজেন লিখেছেন, 'স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডবিয়া রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর করেছেন। এখন চিকিৎসা বিজ্ঞানে ধামাকা করতে তৈরি আছেন। ইংরেজি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বা চিকিৎসা বিজ্ঞানের আত্মার শান্তি কামনা করি।' কেউ কেউ আবার সেই ‘ভুল’ ইংরেজির টুইট শেয়ার করে লিখেছেন, ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রক সুরক্ষিত হাতে আছে।’

যদিও সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ট্রোলের বিরোধিতার মুখ খুলেছেন অনেকেই। পাশে দাঁড়িয়েছেন রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরাও। শিবসেনার সাংসদ প্রিয়াঙ্কা চতুর্বেদী বলেছেন, 'কাজের পরিবর্তে যদি কোনও মন্ত্রীর ক্ষেত্রে একমাত্র সমালোচনার বিষয় হয় ইংরেজি বলার দক্ষতা, তাহলে তা আপনার অজ্ঞানতার প্রমাণ দিচ্ছে।' কেউ কেউ বলেছেন, ‘কাজ দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে বিবেচনা কর, ইংরেজি দিয়ে নয়।’

তারইমধ্যে বিষয়টি বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলনে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয় মাণ্ডবিয়া। বিষয়টি হেসে উড়িয়ে দেন গুজরাতের সাংসদ। বলেন, ‘এ বিষয়ে আমার কিছু বলার নেই।’ মাণ্ডবিয়ার সমর্থনে এগিয়ে আসেন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমরও। যদিও ইংরেজি নিয়ে এই প্রথম কোনও মন্ত্রীকে কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়েছে, এমন নয়। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ইংরেজি এবং হিন্দি নিয়েও সেরকম কটাক্ষ করে থাকেন একাংশ।

বন্ধ করুন