বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বাংলাদেশি ট্রলারের জালে ধরা পড়ল ১৭০ মণ ইলিশ, পাইলটকে সোনার চেন মালিকের
টাটকা ১৭০ মণ ইলিশ উঠল বাংলাদেশি ট্রলারে
টাটকা ১৭০ মণ ইলিশ উঠল বাংলাদেশি ট্রলারে

বাংলাদেশি ট্রলারের জালে ধরা পড়ল ১৭০ মণ ইলিশ, পাইলটকে সোনার চেন মালিকের

  • এক যাত্রায় ট্রলারের জালে জড়াল ১৭০ মণ ইলিশ। বঙ্গোপসাগরে এই 'জ্যাকপট' লাভ করেছে বাংলাদেশি একটি ট্রলার।

এক যাত্রায় ট্রলারের জালে জড়াল ১৭০ মণ ইলিশ। বঙ্গোপসাগরে এই 'জ্যাকপট' লাভ করেছে বাংলাদেশি একটি ট্রলার। জালে ধরা পড়া বেশিরভাগ মাছেরই ওজন এক কেজির বেশি। বেশ কয়েকটি দুই-আড়াই কেজি ওজনের মাছও ধরা পড়েছে জালে। এই মাছ পাথরঘাটা বাজারে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে বিক্রি হয় যার বিনিময়ে প্রায় ৫০ লক্ষ টাকা পেয়েছে ট্রলার মালিক।

এদিকে এই পরিমাণ মাছ ধরতে পারায় ট্রলারের পাইলটকে এক ভরি ওজনের একটি সোনার চেন উপহার দেন ট্রলার মালিক এনামুল হুসেন। মাছ বিক্রির আগেই পাইলটের গলায় পরানো হয় সেই সোনার চেন। পাইলট ইমরান হ‌োসেন আগের থেকেই মালিককে এই বিপুল পরিমাণ মাছ ধরার খবর দিয়েছিলেন মোবাইলে।

উল্লেখ্য, চলতি বছরে বাংলাদেশের বাজারে ইলিশের জোগান অতটাও না। এর মাঝে প্রজনন ঋতু থাকায় ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই, ৬৫ দিন মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল বাংলাদেশ সরকার। এই আবহে এক যাত্রায় রুপোলি শস্যের জ্যাকপট পায় 'এফবি আল মদিনা' নামক ট্রলারটি। গত ১৯ থেকে ২২ অগস্ট ট্রলারটি সমুদ্রে ছিল। সেই সময় চট্টগ্রামের কাছেই অবস্থিত মৌখালির কাছে সাগরে জাল পেতে এই বিপুল সংখ্যক মাছ পায় ইমরানের নেতৃত্বাধীন জেলের দল।

পরে বাংলাদেশের দক্ষিণের বরিশাল বিভাগের বরগুণা জেলার পাথরঘাটা বাজারে কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বিক্রি হয়ে যায় এই মাছ। দেখা যায় মোট মাছের ওজন ৬,৩৪৫ কিলোগ্রাম। স্থানীয়দের পাশাপাশি বাজারে মাছ কিনতে সেখানে ভিড় করে চাঁদপুর, সিলেট, চট্টগ্রামের পাইকারি বিক্রেতারাও।

 

বন্ধ করুন