বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > চাকরির পরীক্ষায় মাতৃভাষায় উত্তর লেখা যাবে, বড় সিদ্ধান্ত এই রাজ্যে

চাকরির পরীক্ষায় মাতৃভাষায় উত্তর লেখা যাবে, বড় সিদ্ধান্ত এই রাজ্যে

ওড়িশায় মাতৃভাষাতেও চাকরির পরীক্ষা দেওয়া যাবে। (Photo by Santosh Kumar /Hindustan Times)

বিরোধীরা অভিযোগ তুলেছিলেন ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নিজেই ওড়িয়া ভাষায় ঠিকঠাক করে অনর্গল কথা বলতে পারেন না। তবে সেসবকে উড়িয়ে দিয়ে গ্রুপ বি ও সি ক্য়াডার নিয়োগের ক্ষেত্রে এবার ওড়িয়া ভাষাকে প্রাধান্য দেওয়ার সিদ্ধান্ত ওড়িশায়।

দেবব্রত মোহান্তি

সামনেই বিধানসভা নির্বাচন ওড়িশায়। তার আগে নবীন পট্টনায়েকের সরকার এবার রাজ্য সরকারের বিভিন্ন পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে পদ্ধতিগত কিছু পরিবর্তন করল। বিভিন্ন পরীক্ষায় এবার ওড়িয়া ভাষাতেও পরীক্ষা দেওয়া যাবে।

রাজ্য মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত অনুসারে ওড়িশা সিভিল সার্ভিস রুল ২০২২ তৈরি করা হয়েছে। সেই নয়া নির্দেশিকা অনুসারে কোনও পরীক্ষার্থী ওড়িয়া ভাষাতেও পরীক্ষা দিতে পারবেন। তবে ভাষাপত্রটা বাদ দিয়ে। তবে কোনও প্রার্থী যদি ইংরাজিতে পরীক্ষা দিতে চান তবে সেটাও তিনি পারবেন। তবে ফর্ম ফিল আপ করার সময় পরীক্ষার্থীদের জানিয়ে দিতে হবে তাঁরা কোন ভাষায় পরীক্ষা দিতে চান।

সাধারণত নিয়োগের পরীক্ষাগুলিতে ওড়িয়া ও ইংরাজি দুই ভাষাতেই পরীক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে।তবে ভাষাপত্রটি ছাড়া পরীক্ষার্থীরা ইংরাজিতেই উত্তর দিতেন। ইন্টারভিউতেও সাধারণত ইংরাজিতেই নেওয়া হয়।

মুখ্যসচিব সুরেশ মহাপাত্র জানিয়েছেন, এই নয়া উদ্যোগে মাতৃভাষাতেও পরীক্ষা দিতে পারবেন পরীক্ষার্থীরা।

ওড়িশা পাবলিক সার্ভিস কমিশন সম্প্রতি সিদ্ধান্ত নিয়েছিল প্রিলি, মেইন, ভাইভা সব পরীক্ষাই তারা ওড়িয়া ভাষাতে নেবে। তার সপ্তাহখানেকের মধ্যে বড় সিদ্ধান্ত নিল মন্ত্রিসভা। ওপিএসসিতে এবার প্রশ্নপত্র ইংরাজি ও ওড়িয়া দুই ভাষাতেই হবে। পরীক্ষার্থীরাও ইংরাজি অথবা ওড়িয়ায় উত্তর দিতে পারবেন।

এদিকে বিরোধীরা অভিযোগ তুলেছিলেন ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নিজেই ওড়িয়া ভাষায় ঠিকঠাক করে অনর্গল কথা বলতে পারেন না। তবে সেসবকে উড়িয়ে দিয়ে গ্রুপ বি ও সি ক্য়াডার নিয়োগের ক্ষেত্রে এবার ওড়িয়া ভাষাকে প্রাধান্য দেওয়ার সিদ্ধান্ত ওড়িশায়।

বন্ধ করুন