বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > স্ট্র্যান্ড রোডে অগ্নিকাণ্ডে শোকপ্রকাশ মোদীর, ঘোষণা আর্থিক সাহায্যের
স্ট্র্যান্ড রোডে অগ্নিকাণ্ডে শোকপ্রকাশ মোদীর, ঘোষণা আর্থিক সাহায্যের। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
স্ট্র্যান্ড রোডে অগ্নিকাণ্ডে শোকপ্রকাশ মোদীর, ঘোষণা আর্থিক সাহায্যের। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

স্ট্র্যান্ড রোডে অগ্নিকাণ্ডে শোকপ্রকাশ মোদীর, ঘোষণা আর্থিক সাহায্যের

  • ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ন'জনের।

স্ট্র্যান্ড রোডে পূর্ব রেলের নিউ কয়লাঘাট বিল্ডিংয়ে বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ডে শোকপ্রকাশ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। একইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী জাতীয় ত্রাণ তহবিল থেকে মৃতদের পরিবারপিছু দু'লাখ আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা করা হয়েছে। গুরুতর আহতদের ৫০,০০০ টাকা আর্থিক সাহায্য প্রদান করা হবে।

মঙ্গলবার সকালে টুইটারে মোদী বলেন, ‘কলকাতায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে প্রাণহানির ঘটনায় শোকাহত। মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।’ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের তরফে জানানো হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী জাতীয় ত্রাণ তহবিল থেকে মৃতদের পরিবারপিছু দু'লাখ আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা করেছেন মোদী। গুরুতর আহতদের ৫০,০০০ টাকা আর্থিক সাহায্য করা হবে।

সোমবার সন্ধ্যায় ৬টা ১০ মিনিটে স্ট্র্যান্ড রোডে পূর্ব রেলের অফিসের ১৩ তলায় আগুন লাগে। সেই সময় অফিসে প্রায় ৫০০ জন ছিলেন। আগুনের লেলিহান শিখা ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ে ১২ তলায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে সবমিলিয়ে মোট ২৫ টি ইঞ্জিন। কিন্তু আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে বেগ পেতে হয় দমকলকে। ঘণ্টা চারেকের চেষ্টায় প্রাথমিকভাবে নিয়ন্ত্রণে আসে আগুন। কিন্তু রাতের দিকে ফের কয়েক দফায় নতুন করে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। শেষপর্যন্ত ভোর ৪ টে ১০ মিনিট নাগাদ আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে এসেছে। আপাতত কুলিং অফ করার প্রক্রিয়া চলছে। কয়েক জায়গা থেকে ধোঁয়া দেখা গিয়েছে। তা থেকে দমকলের অনুমান, এখনও কয়েকটি জায়গায় ‘পকেট ফায়ার’ রয়ে গিয়েছে। কিছুক্ষণ পর সেখানে আসবে ফরেন্সিক দল। কী কারণে আগুন লেগেছে, সেই কারণ খতিয়ে দেখা হবে।

আগুন ঝলসে এবং দমবন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে ন'জনের। দুটি লিফট থেকে ন'জনের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার রাত একটা নাগাদ এসএসকেএম হাসপাতালে দেহগুলি নিয়ে যাওয়া হয়। এখনও সবাইকে শনাক্ত করা যায়নি। তবে মৃতদের মধ্যে আছেন পূর্ব রেলের ডেপুটি চিফ কমার্শিয়াল ম্যানেজার পার্থসারথি মণ্ডল, দমকলের চার কর্মী, হেয়ার স্ট্রিট থানার এএসআই, আরপিএফের এক কনস্টেবল। বাকি দু'জনের পরিচয় এখনও জানা যায়নি। রাতে এসএসকেএমে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আগুনে ঝলসে যাওয়ায় দেহগুলি শনাক্ত করা অত্যন্ত কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। দু'তিনজনের দেহ চিহ্নিত করেছেন সহকর্মীরা। ময়নাতদন্ত রাতেই করা হয়। যা বাধ্যতামূলক। কিন্তু শনাক্তকরণ ছাড়া কি আমরা পরিবারের হাতে দেহ তুলে দিতে পারি?’

তার আগে স্ট্র্যান্ড রোডেও যান মমতা। সেখানে তিনি জানান, মৃতদের পরিবারপিছু ১০ লাখ টাকা আর্থিক সাহায্য প্রদান করা হবে এবং পরিবারের এক সদস্যকে সরকারি চাকরি দেওয়া হবে। সেইসঙ্গে রেলের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ তোলেন। তিনি দাবি করেন, রেলের থেকে বিল্ডিংয়ের নকশা চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু তা পাওয়া যায়নি। সেই নকশা পেলে দমকলের কাজে সুবিধা হত বলে জানান তিনি। পাশাপাশি দুর্ঘটনা নিয়ে রাজনীতি করতেও চান না জানিয়ে দেন।

বন্ধ করুন