বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > RVM: রিমোটে ভোট দিতে পারবেন পরিযায়ী শ্রমিকরা? কমিশনের প্রস্তাবে রাজি নয় বিরোধীরা

RVM: রিমোটে ভোট দিতে পারবেন পরিযায়ী শ্রমিকরা? কমিশনের প্রস্তাবে রাজি নয় বিরোধীরা

এভাবেই বাড়ি ফিরছিলেন পরিযায়ী শ্রমিকরা (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)

পরিযায়ী শ্রমিকরা অনেক সময়ই তাঁদের কর্মস্থল এলাকায় ভোটার তালিকায় নাম তুলতে চান না। কারণ তাঁদের বার বার কর্মস্থল বদল করতে হয় । আবার ভোট দেওয়ার জন্য় তাঁরা নিজের এলাকাতেও ফিরতে পারেন না। সেকারণে ভোট দানের মতে পবিত্র কর্তব্য থেকে তাঁদের একাংশ বঞ্চিতই থাকেন।

অনীশ ইয়ান্ডে

পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য রিমোট ভোটিং মেশিন। এনিয়ে প্রস্তাব দিয়েছিল নির্বাচন কমিশন। তবে রবিবার দিল্লি কনস্টিটিউশন ক্লাবে ১৬টি বিরোধী দলের তরফে এনিয়ে মতামত জানানোর জন্য মিটিং করা হয়েছিল। তবে বিরোধীদের কেউই কমিশনের এই প্রস্তাবকে মানতে চায়নি।

কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিং মিটিং শেষে জানিয়েছেন, রিমোট ভোটিং মেশিন সম্পর্কে সমস্ত দলেরই আপত্তি রয়েছে। কারণ এটা এখনও পরিষ্কার নয়। এনিয়ে প্রচুর রাজনৈতিক মতবিরোধ রয়েছে। এই প্রস্তাবকে মানার ক্ষেত্রে প্রচুর সমস্যা রয়েছে। পরিয়ায়ী শ্রমিকের সংজ্ঞা ও তাদের সংখ্যার বিষয়টিও পরিষ্কার নয়। আমরা ঠিক করে নিয়েছি আরভিএমের এই প্রস্তাবকে আমরা মানতে পারছি না।

এদিকে আগামী ১৬ জানুয়ারি আরভিএম নিয়ে কমিশনের তরফে মিটিং ডাকা হয়েছে। সেখানেই রিমোট ইভিএম সম্পর্কে জানানো হবে। তবে তার আগেই এনিয়ে আপত্তি তুলে দিল বিরোধীরা।

এদিকে সেই মিটিংয়ে উপস্থিত থাকার জন্য রাজনৈতিক দলগুলির কাছেও চিঠি পাঠানো হয়েছিল। এদিকে কমিশন সূত্রে খবর,Multi Constituency Remote Electronic Voting Machine (RVM) দিয়ে পরিযায়ী শ্রমিক দেশের প্রত্যন্ত এলাকা থেকে ভোটে অংশ নিতে পারবেন। এর সঙ্গেই যারা শিক্ষাগত কারণেও ভিনরাজ্যে থাকছেন, তাঁঁরাও ভোট দিতে পারবেন। নিজের বাড়ি যেখানে সেখানকার কেন্দ্রের জন্য তাঁরা দূর থেকে ভোট দিতে পারবেন।

এই ইভিএমের মাধ্যমে ৭২টি কেন্দ্রের জন্য একটিমাত্র পোলিং বুথ থেকে ভোট দেওয়া সম্ভব। এদিকে পরিযায়ী শ্রমিকরা অনেক সময়ই তাঁদের কর্মস্থল এলাকায় ভোটার তালিকায় নাম তুলতে চান না। কারণ তাঁদের বার বার কর্মস্থল বদল করতে হয় । আবার ভোট দেওয়ার জন্য় তাঁরা নিজের এলাকাতেও ফিরতে পারেন না। সেকারণে ভোট দানের মতে পবিত্র কর্তব্য থেকে তাঁরা বঞ্চিতই থাকেন। শেকড়ের সঙ্গে ক্রমেই তাঁরা বিচ্ছিন্ন হতে শুরু করেন। তবে এবার তাঁদের জন্য কিছুটা হলেও স্বস্তির খবর।

এদিকে জনতা দল ইউনাইটেড, শিবসেনা, জম্মু কাশ্মীর ন্যাশানাল কনফারেন্স, সিপিআইএম, আরএসপি, পিডিপি, ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লিগ এই মিটিংয়ে অংশ নিয়েছিলেন। এদিকে দলগুলি আপাতত সিদ্ধান্ত নিয়েছে আগামী ২৫ জানুয়ারি ফের তারা মিটিং করবেন। এদিকে সমাজবাদী পার্টি ও ন্য়াশানাল কংগ্রেস পার্টি এই মিটিংয়ে উপস্থিত ছিলেন না। তবে এই মিটিংয়ের প্রতি তাঁরা সহমত জানিয়ছেন। এমনটাই জানা গিয়েছে। তবে এবার আরভিএম আদৌ লাগু হবে কি না সেটাই দেখার।

 

বন্ধ করুন