বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Jaishankar on Khalistani Parade in Canada: ‘ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতি’, ইন্দিরা হত্যাকাণ্ড উদযাপন নিয়ে কানাডাকে তোপ জয়শংকরের

Jaishankar on Khalistani Parade in Canada: ‘ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতি’, ইন্দিরা হত্যাকাণ্ড উদযাপন নিয়ে কানাডাকে তোপ জয়শংকরের

এস জয়শংকর  (PTI)

গত ৬ জুন ছিল অপারেশন ব্লু স্টারের ৩৯তম বার্ষীকি। খালিস্তানি জঙ্গি ভ্রিন্দেনওয়ালাকে খতম করতে ১৯৮৪ সালে অমৃতসরের স্বর্ণ মন্দিরে অভিযান চালিয়েছিল ভারতীয় সেনা। পরবর্তীতে ইন্দিরা গান্ধীর দুই শিখ দেহরক্ষী তাঁকে খুন করেছিল সেই অভিযানের প্রতিশোধ হিসেবে। সেই হত্যাকাণ্ড ঘটেছিল ১৯৮৪ সালের ৩১ অক্টোবর।

গত ৬ জুন ছিল অপারেশন ব্লু স্টারের ৩৯তম বার্ষীকি। এই উপলক্ষে কানাডায় খালিস্তানপন্থীরা প্যারেড বের করেছিল কানাডার ব্র্যাম্পটনে। ৪ জুনের সেই প্যারেডে একটি ট্যাবলো ছিল যেখানে ইন্দিরা গান্ধীর মৃত্যুর দৃশ্য দেখানো হয়েছিল। এই ঘটনার ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই আবহে কড়া প্রতিক্রিয়া দিলেন ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকর। তিনি বলেন, 'ভারত ও কানাডার সম্পর্কের জন্য এই দৃশ্য মোটেও ভালো নয়।' এদিকে কংগ্রেসও এই ঘটনায় বিদেশমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি করেছে। এই পরিস্থিতিতে কানাডায় খালিস্থানিদের বাড়বাড়ন্ত নিয়ে মুখ খোলেন জশংকর।

জানা গিয়েছে, অপারেশন ব্লু্টারের বার্ষীকি উপলক্ষে কানাডার ব্র্যাম্পটনে পাঁচ কিলোমিটাল লম্বা প্যারেডের আয়োজন করা হয়েছিল। ভাইরাল ভিডিয়োতে দাবি করা হয়েছে, গত ৪ জুনের সেই প্যারেডে ইন্দিরা গান্ধীর মৃত্যুর দৃশ্য ফুটিয়ে তোলা হয় এক ট্যাবলোতে। ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে, ভারতীয় সেনার পোশাকে দুই শিখ জওয়ান বন্দুক হাতে দাঁড়িয়ে। সাদা শাড়ি পরিহিত এক মহিলা রক্তাক্ত অবস্থায় দাঁড়িয়ে। সেই ট্যাবলোর পিছনে খালিস্থানি পতাকা নিয়ে পা মেলাচ্ছেন বেশ কয়েকজন। এই আবহে প্রশ্ন করা হলে জয়শংকর বলেন, ‘আমি মনে করি এই বিষয়টির সঙ্গে আরওবড় সমস্যা জড়িত... সত্যি বলতে, ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতি ছাড়া অন্য কোনও কারণে কেউ এমন করতে পারে বলে আমি মনে করি না। আমার মতে, সেদেশে বিচ্ছিনতাবাদীদের বাড়বাড়ন্ত বৃহত্তর অন্তর্নিহিত সমস্যা। চরমপন্থীরা সহিংসতার পক্ষে। আমি মনে করি এটি আমাদের দুই দেশের সম্পর্কের জন্য ভালো নয়। কানাডার জন্যও এটা ভালো নয়।’

উল্লেখ্য, গত ৬ জুন ছিল অপারেশন ব্লু স্টারের ৩৯তম বার্ষীকি। খালিস্তানি জঙ্গি ভ্রিন্দেনওয়ালাকে খতম করতে ১৯৮৪ সালে অমৃতসরের স্বর্ণ মন্দিরে অভিযান চালিয়েছিল ভারতীয় সেনা। পরবর্তীতে ইন্দিরা গান্ধীর দুই শিখ দেহরক্ষী তাঁকে খুন করেছিল সেই অভিযানের প্রতিশোধ হিসেবে। সেই হত্যাকাণ্ড ঘটেছিল ১৯৮৪ সালের ৩১ অক্টোবর। পরে শুরু হয়েছিল শিখ দাঙ্গা। এদিকে বর্তমান প্রেক্ষিতে খালিস্তানি নেতা অমৃতপালের উত্থান এবং তার গ্রেফতারির জেরে নতুন করে মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে খালিস্তানি বিচ্ছিনতাবাদীরা। এদিকে কানাডার রাজনীতিতে শিখদের একটি বড় প্রভাব রয়েছে। এই আবহে খালিস্তানপন্থীদের নিয়ে কিছুটা সুর নরম সেদেশের সরকারের। এই আবহে ভারত সরকার বারংবার কানাডার সঙ্গে কথা বললেও পরিস্থিতি বদলাচ্ছে না। ইন্দিরা গান্ধীর হত্যাকাণ্ডের উদযাপনের ঘটনায় ফের একবার ভারতের তরফে কড়া প্রতিক্রিয়া দেওয়া হল।

 

বন্ধ করুন