বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আঞ্চলিক রাজধানী দখলের চেষ্টায় তালিবান, পালটা জবাব আফগানিস্তানেরও
আহত ছেলে। হাসপাতালের পথে বাবা। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
আহত ছেলে। হাসপাতালের পথে বাবা। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

আঞ্চলিক রাজধানী দখলের চেষ্টায় তালিবান, পালটা জবাব আফগানিস্তানেরও

  • অধিকাংশ মার্কিন সেনা দেশে ফিরে গিয়েছে।

অধিকাংশ মার্কিন সেনা দেশে ফিরে গিয়েছে। ন্যাটোর বাহিনীও আর নেই। এই অবস্থায় আঞ্চলিক রাজধানী দখলের চেষ্টায় তালিবান।

তালিবান ইতিমধ্যেই আফগানিস্তানের অনেকগুলি জেলার দখল নিয়ে নিয়েছে। এবার আঞ্চলিক রাজধানীতে আক্রমণ শুরু করল। বুধবার পশ্চিম আফগানিস্তানে কালা-ই-নও আক্রমণ করে। শহরটি তিনদিক থেকে ঘিরে তালিবান আক্রমণ চালাতে থাকে। শহরের কিছুটা ভিতরে ঢুকেও পড়ে। কিন্তু আফগান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, সেনা উপযুক্ত জবাব দিয়েছে।

সংবাদসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, তালিবানের উপর বিমান হামলা করে আফগান বিমান বাহিনী। তবে অপর এক সংবাদসংস্থা আঞ্চলিক গভর্নর হাসামুদ্দিন সামসকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছিল, তালিবান পুলিশের সদর দফতরের ভিতরে ঢুকে পড়েছিল। সেই সময় সেখানে বন্দিরা পালায়। শহরের সাধারণ মানুষও ভয় পেয়ে হেরাটের দিকে পালাতে শুরু করে।

পশ্চিম আফগানিস্তানের গ্রামের দিকের এলাকায় তালিবান তাদের আধিপত্য বিস্তার করেছে। এবার শহরের দিকে এগোচ্ছ। লক্ষ্য হেরাট দখল করা। সামাজিক মাধ্যমে দেওয়া ভিডিয়ো থেকে দেখা যাচ্ছে, সশস্ত্র তালেবান মোটরবাইক করে শহরের দিকে যাচ্ছে। আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মুখপাত্র জানিয়েছেন, তালিবানদের শহর থেকে বিতাড়িত করা হবে। তালিবানের তরফ থেকে কোনও প্রতিক্রিয়া আসেনি। সেনার তরফ থেকে জানানো হয়েছে, তালেবানের প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কয়েকজন সেনারও মৃত্যু হয়েছে।

ইরানের উদ্যোগে আলোচনা

ইরানের উদ্যোগে তেহরানে আলোচনায় বসেন তালিবান নেতা ও আফগান সরকারের কর্মকর্তারা। সেখানে প্রাক্তন আফগান ভাইস-প্রেসিডেন্ট ইউনুস কানুনিও ছিলেন। ইরানের বিদেশমন্ত্রী জাভেদ জারিফ তালেবান ও আফগান সরকারের মধ্যস্থতাকারীদের জানিয়েছেন, তাঁরা যেন কঠিন সিদ্ধান্ত নেন। আফগানিস্তানে ব্যর্থ হওয়ার জন্য তিনি আমেরিকার নিন্দাও করেন।

ইরানের এই উদ্যোগ অবাক করার মতো। দোহায় তালিবান ও আফগান সরকারের প্রতিনিধিরা দীর্ঘদিন ধরে আলোচনা চালিয় যাচ্ছেন। সেই আলোচনা অবশ্য খুব একটা এগোচ্ছে না। তার মধ্যেই তালিবান এখন এলাকা দখলের কৌশল নিয়েছে। এই অবস্থায় ইরানও উদ্যোগী হল। গত সপ্তাহেই মার্কিন ও ন্যাটো বাহিনী বাগরাম বিমান ঘাঁটি ছেড়ে দিয়ে চলে গেছে। এই বিমানঘাঁটিই ছিল তালিবান বিরোধী অপারেশনের কম্যান্ড সেন্টার। এর ফলে আফগান সেনারা যে বিমান বাহিনীর সাহায্য পেত, তা এখন অনেক কমে গিয়েছে। ফলে তালিবানের পক্ষেও এলাকা দখলের কাজটা অপেক্ষাকৃতভাবে সহজ হচ্ছে। সম্প্রতি তালিবান আক্রমণের মুখে পড়ে ২৮০ জন আফগান সেনা তাজিকিস্তান চলে গিয়েছে।

বন্ধ করুন