বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'আমরা কংগ্রেস না...', আগরতলায় পা রেখেই বিপ্লবকে চাঁছাছোলা ভাষায় আক্রমণ অভিষেকের
আগরতলা বিমানবন্দরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় 
আগরতলা বিমানবন্দরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় 

'আমরা কংগ্রেস না...', আগরতলায় পা রেখেই বিপ্লবকে চাঁছাছোলা ভাষায় আক্রমণ অভিষেকের

  • তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ত্রিপুরায় জঙ্গলরাজ চলছে। প্রত্যেকবারই এখানে আমাদের সভা আটকানো হয়।’

আগরতলায় পা রেখেই ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানালেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন বিমানবন্দরে নেমেই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক বলেন, 'ত্রিপুরায় জঙ্গলরাজ চলছে। এখানে আইন-শৃঙ্খলা বলে কিছু নেই। প্রত্যেকবারই এখানে আমাদের সভা আটকানো হয়। ত্রিপুরায় মহিলাদের নিরাপত্তা নেই। মহিলা প্রার্থীদের উপর আক্রমণ করা হচ্ছে। স্লোগান দেওয়ার জন্য যদি সায়নী ঘোষকে গ্রেফতার করা হয় তাহলে প্রধানমন্ত্রীকেও কেন গ্রেফতার করা হবে না? মোদীও পশ্চিমবঙ্গে গিয়ে খেলা হবে স্লোগান দিয়েছিলেন।'

এদিকে এদিন আগরতলা বিমানবন্দরের পার্কিং লটে দাঁড়িয়ে থাকা অভিষেকের গাড়ির পাশে পরিত্যক্ত ব্যাগ মেলে। ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায় বম্ব স্কোয়াড। এই বিষয়ে অভিষেক এদিন বলেন, 'ধমকে, চমকে ত্রিপুরায় তৃণমূলকে দমিয়ে রাখা যাবে না। সিপিএম-কংগ্রেসের মতো আমরা চুপচাপ বসে থাকব না। আপনাদের থেকেই শুনলাম কী একটা ব্যাগ ধরা পড়েছে। বিপ্লব দেবের কাছে আমার আবেদন, আপনি আগরতলার সাধারণ মানুষকে কেন কষ্ট দিতে চান। আমি আছি, আমাকে বলুন।'

সয়নী ঘোষের গ্রেফতারির পর গতকালই রাতে আগরতলা যাওয়ার কথা ছিল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তবে রাতে বিমান অবতরণের অনুমতি না মেলায় পূর্বনির্ধারিত সূচি মেনে আজকে সকালে আগরতলার উদ্দেশে রওনা দেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। আর সেখানে তিনি পৌঁছাতেই বোমাতঙ্ক ঘিরে চরম চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। এরই মাঝে ত্রিপুরা পুলিশ অভিষেককে জানিয়েছে যে দুপুর ১২ টা থেকে ২টোর মধ্যে রাস্তার ধারে পথসভা করতে পারবে তৃণমূল। তবে অভিযেকের অভিযোগ, মঞ্চ বাঁধতে চার ঘণ্টা লাগে। এত কম সময়ে লোকজনকে সভার বিয়ে জানানো যায় না। তাঁর অভিযোগ, তৃণমূলকে ঠেকাতেই এহেন নির্দেশিকা জারি করেছে বিল্পব দেবের পুলিশ।

বন্ধ করুন