বাংলা নিউজ > ছবিঘর > ভুয়ো TRP মামলা, এনকাউন্টার স্পেশালিস্ট - আম্বানি মামলায় ধৃত পুলিশকর্তা সচিন কে?

ভুয়ো TRP মামলা, এনকাউন্টার স্পেশালিস্ট - আম্বানি মামলায় ধৃত পুলিশকর্তা সচিন কে?

  • মুকেশ আম্বানির বাড়ির কাছে বিস্ফোরক বোঝাই গাড়ি রাখার ঘটনায় মুম্বই পুলিশের কর্তা সচিন ভাজকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যাঁর কেরিয়ার রীতিমতো চমকপ্রদ। রাজনীতির মঞ্চেও ছিলেন তিনি। কে এই সচিন ভাজ, দেখে নিন -
মুকেশ আম্বানির বাড়ির কাছে বিস্ফোরক বোঝাই গাড়ি রাখার ঘটনায় মুম্বই পুলিশের অ্যাসিসট্যান্ট ইন্সপেক্টর সচিন ভেজকে গ্রেফতার করেছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ)। প্রায় ১৩ ঘণ্টা জেরার পর মধ্যরাতের ঠিক আগে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। (ছবি সৌজন্য, প্রতীক ছোড়গে/হিন্দুস্তান টাইমস) 
1/6মুকেশ আম্বানির বাড়ির কাছে বিস্ফোরক বোঝাই গাড়ি রাখার ঘটনায় মুম্বই পুলিশের অ্যাসিসট্যান্ট ইন্সপেক্টর সচিন ভেজকে গ্রেফতার করেছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ)। প্রায় ১৩ ঘণ্টা জেরার পর মধ্যরাতের ঠিক আগে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। (ছবি সৌজন্য, প্রতীক ছোড়গে/হিন্দুস্তান টাইমস) 
এনআইয়ের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক হিন্দুস্তান টাইমসকে জানিয়েছেন, দক্ষিণ মুম্বইয়ের কারমিশেল রোডে আম্বানির বাড়ি অ্যান্টিলার বাড়ির কাছে বিস্ফোরক রাখার ঘটনায় জড়িত ছিলেন সচিন। তিনি নাকি সেই যোগের কথা স্বীকার করেছেন। কিন্তু আর কোনও তথ্য জানাতে চাননি তিনি। (ছবি সৌজন্য, প্রতীক ছোড়গে/হিন্দুস্তান টাইমস)
2/6এনআইয়ের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক হিন্দুস্তান টাইমসকে জানিয়েছেন, দক্ষিণ মুম্বইয়ের কারমিশেল রোডে আম্বানির বাড়ি অ্যান্টিলার বাড়ির কাছে বিস্ফোরক রাখার ঘটনায় জড়িত ছিলেন সচিন। তিনি নাকি সেই যোগের কথা স্বীকার করেছেন। কিন্তু আর কোনও তথ্য জানাতে চাননি তিনি। (ছবি সৌজন্য, প্রতীক ছোড়গে/হিন্দুস্তান টাইমস)
১৯৯০ সালে সাব-ইন্সপেক্টর হিসেবে পুলিশে যোগ দেন সচিন। প্রথমে মাওবাদী-প্রভাবিত গাচিরৌলিতে পোস্টিং ছিল। দু'বছর পর তাঁকে থানে শহরে বদলি করা হয়েছিল। তারপর থানে পুলিশের ক্রাইম ব্র্যাঞ্চ স্পেশাল স্কোয়াডের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। সেখানেই এনকাউন্টার স্পেশালিস্ট হিসেবে পরিচিতি গড়ে ওঠে। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
3/6১৯৯০ সালে সাব-ইন্সপেক্টর হিসেবে পুলিশে যোগ দেন সচিন। প্রথমে মাওবাদী-প্রভাবিত গাচিরৌলিতে পোস্টিং ছিল। দু'বছর পর তাঁকে থানে শহরে বদলি করা হয়েছিল। তারপর থানে পুলিশের ক্রাইম ব্র্যাঞ্চ স্পেশাল স্কোয়াডের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। সেখানেই এনকাউন্টার স্পেশালিস্ট হিসেবে পরিচিতি গড়ে ওঠে। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
২০০০ সালে মুম্বই পুলিশের ক্রাইম ব্র্যাঞ্চে পোওয়াই ইউনিটের বদলি করা হয়েছিল। সেই সময় ঘটকপুর বোমা বিস্ফোরণে (২০০২ সালের ২ ডিসেম্বর) খুনের ঘটনায় সচিন-সহ চারজন পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল। সচিনকে সাসপেন্ড করা হয়েছিল। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
4/6২০০০ সালে মুম্বই পুলিশের ক্রাইম ব্র্যাঞ্চে পোওয়াই ইউনিটের বদলি করা হয়েছিল। সেই সময় ঘটকপুর বোমা বিস্ফোরণে (২০০২ সালের ২ ডিসেম্বর) খুনের ঘটনায় সচিন-সহ চারজন পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল। সচিনকে সাসপেন্ড করা হয়েছিল। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
২০০৭ সালের ৩০ নভেম্বর পুলিশের চাকরি থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন সচিন। পরের বছর শিবসেনায় যোগ দিয়েছিলেন। যদিও মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে দাবি করেন, ২০০৮ সাল পর্যন্ত শিবসেনার সদস্য ছিলেন। তারপর থেকে শিবসেনার কোনও যোগ নেই। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
5/6২০০৭ সালের ৩০ নভেম্বর পুলিশের চাকরি থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন সচিন। পরের বছর শিবসেনায় যোগ দিয়েছিলেন। যদিও মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে দাবি করেন, ২০০৮ সাল পর্যন্ত শিবসেনার সদস্য ছিলেন। তারপর থেকে শিবসেনার কোনও যোগ নেই। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
গত বছর ৬ জুন সচিনকে আবারও পুলিশে আনা হয়। মুম্বই পুলিশের ক্রাইম ব্র্যাঞ্চের ক্রাইম ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের অ্যাসিসট্যান্ট পুলিশ ইন্সপেক্টর পদে কাজ করতে শুরু করেন। নভেম্বরে রিপাবলিক টিভির এডিটর-ইন-চিফ অর্ণব গোস্বামীকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশের যে দল, সেই দলের সদস্য ছিলেন সচিন। ভুয়ো টিআরপি মামলাও সামলেছেন তিনি। (ফাইল ছবি, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
6/6গত বছর ৬ জুন সচিনকে আবারও পুলিশে আনা হয়। মুম্বই পুলিশের ক্রাইম ব্র্যাঞ্চের ক্রাইম ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের অ্যাসিসট্যান্ট পুলিশ ইন্সপেক্টর পদে কাজ করতে শুরু করেন। নভেম্বরে রিপাবলিক টিভির এডিটর-ইন-চিফ অর্ণব গোস্বামীকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশের যে দল, সেই দলের সদস্য ছিলেন সচিন। ভুয়ো টিআরপি মামলাও সামলেছেন তিনি। (ফাইল ছবি, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
অন্য গ্যালারিগুলি