কিউয়ি অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। ছবি- এএনআই।
কিউয়ি অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। ছবি- এএনআই।

করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রত স্বাস্থ্যকর্মীদের খোলা চিঠিতে কুর্নিশ কেন উইলিয়ামসনের

  • করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত মানুষজন যেভাবে সামনে থেকে লড়াই চালাচ্ছেন, উইলিয়ামসনের মতে প্রকৃত চাপ সামলাচ্ছেন তাঁরাই।

জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দিতে নেমে বহু ম্যাচে চাপের মুখে পড়তে হয়েছে কেন উইলিয়ামসনকে। পাহাড়প্রমাণ চাপ মাথায় নিয়ে ব্যাট হাতে ক্রিজে নেমেছেন বহু বার। কখনও চাপ কাটিয়ে দলকে পালটা লড়াইয়ে ফিরিয়েছেন। আবার কখনও ভেঙে পড়েছে তাঁর প্রতিরোধ। এতদিন মাঠের লড়াইয়ে সামলাতে হয়েছে প্রেসার সিচুয়েশন। তবে জীবনের লড়াইয়ে চাপ কাকে বলে, এতদিনে উপলব্ধি করলেন কিউয়ি অধিনায়ক।

করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত মানুষজন যেভাবে সামনে থেকে লড়াই চালাচ্ছেন, উইলিয়ামসনের মতে প্রকৃত চাপ সামলাচ্ছেন তাঁরাই।

পরিস্থিতির গুরুত্ব অনুধাবন করেই এমন কঠিন সময়ে দেশের স্বাস্থ্যকর্মীদের মনোবল বাড়াতে এগিয়ে এলেন উইলিয়ামসন। নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডে লেখা এক খোলা চিঠিতে তিনি কুর্নিশ জানান ডাক্তার, নার্স ও অন্যান্য চিকিৎসা কর্মীদের।

উইলিয়ামসন লেখেন, 'প্রিয় ডাক্তার, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা, গত কয়েকদিনের ঘটনাপ্রবাহে নজর রাখলে এটা স্পষ্ট যে, আমরা একটা গুরুতর স্বাস্থ্য সংকটের মধ্যে রয়েছি যা এর আগে দেখা যায়নি। সন্দেহ নেই যে, আগামী দিনগুলিতে এটা আরও ব্যাপক আকার নিতে চলেছে। আমাদের ভাগ্য ভালো, আপনারা আমাদের পাশে রয়েছেন।'

উইলিয়ামসন আরও লেখেন, 'লোকে বলে খেলোয়াড়দের চাপের মুখে পারফর্ম করতে হয়। সত্যিটা হল আমরা সেটাই করি, যেটা দৈনন্দিন জীবনে আমাদের করতে ভালো লাগে। আসলে আমরা খেলতে নামি। জীবন বাঁচানোর জন্য লড়াই চালানোই হল আসল চাপ। প্রকৃত চাপ হল অন্যের ভলোর জন্য নিজের নিরাপত্তাকে বাজি রেখে কাজে বেরনো।বৃহত্তর স্বার্থকে সবার আগে রাখার চ্যালেঞ্জ শুধু সর্বোত্তম মানুষরাই নিতে পারেন।'

শেষে কিউয়ি দলনায়ক জানান, 'জাতীয় দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার সুবাদে আমরা জানি সারা দেশের সমর্থন থাকলে কেমন অনুভূতি হয়। একইভাবে আমাদের জানানো প্রয়োজন যে, আপনারা কখনই এক নন। সারা দেশ আপনাদের সঙ্গে রয়েছে।'

বন্ধ করুন