বাংলা নিউজ > ময়দান > ম্যাচ জেতার পরও রোলাঁ গারো থেকে এ বার সরে দাঁড়াতে পারেন ফেডেক্স
রজার ফেজেরার।
রজার ফেজেরার।

ম্যাচ জেতার পরও রোলাঁ গারো থেকে এ বার সরে দাঁড়াতে পারেন ফেডেক্স

  • ২০টি গ্র্যান্ডস্লামের মালিকের ২০২০ সালে দু'বারে হাঁটুতে অস্ত্রোপচার হয়েছিল। গত বারের অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের পর এই নিয়ে মাত্র তিনটি টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছেন তিনি।

রোলাঁ গারো যেন এ বার অঘটনের টুর্নামেন্ট হয়ে দাঁড়িয়েছে। একের পর এক প্রতিযোগী নানা কারণে টুর্নামেন্ট থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন। এ বার রজার ফেডেরারও সরে দাঁড়াতে পারেন বলে, নিজেই জানিয়েছেন। তাঁর সরে দাঁড়ানোর কারণ অবশ্য হাঁটুর চোট।

শনিবার রাতে জার্মানির ডমিনিক কোয়েপফারকে ৭-৬ (৭-৫), ৬-৭ (৩-৭), ৭-৬ (৭-৪), ৭-৫ গেমে হারিয়ে চতুর্থ রাউন্ডে উঠেছিলেন ফেডেরার। লড়াই চলেছিল ৩ ঘন্টা ৩৬ মিনিট ধরে। এই প্রথম ফেডেরারের কোনও ম্যাচে প্রথম তিনটি সেটই টাইব্রেকারে গেল। আসলে পুরো ম্যাচের সব সেটেরই ফল নির্ধারিত হয়েছে টাইব্রেকারে। দীর্ঘ লড়াইয়ের পর ফেডেরার জিতলেন ঠিকই, তবে নিজের ফর্ম নিয়ে নিজেই প্রশ্ন তুলেছেন। সেই সঙ্গে চোটের সমস্যাও যে তাঁকে ভোগাচ্ছে, সেটাও পরিষ্কার করে জানিয়েছেন ফেডেক্স। সে কারণেই সম্ভবত জেতার পরও নাম তুলে নিতে চাইছেন ফেডেরার।

ম্যাচের পর তিনি বলেন, ‘জানি না আমি পরবর্তী ম্যাচ খেলতে পারব কিনা। এই নিয়ে আমাকে একটা সিদ্ধান্ত নিতেই হবে। হাঁটুর উপর বাড়তি চাপ দেওয়াটা কি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ হবে? এখন কি বিশ্রাম নেওয়াই উচিত?’

২০টি গ্র্যান্ডস্লামের মালিকের ২০২০ সালে দু'বারে হাঁটুতে অস্ত্রোপচার হয়েছিল। গত বারের অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের পর এই নিয়ে মাত্র তিনটি টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছেন তিনি। তবে তাঁর এই বছর প্রধান লক্ষ্যই ছিল, উইম্বলডনে অংশ নেওয়া। আর তার জন্যই সম্ভবত ফ্রেঞ্চ ওপেনে খেলে হাঁটুতে বাড়তি চাপ দেবেন কিনা, সেটা নিয়েই চিন্তায় পড়ে গিয়েছেন। খেলতে গিয়ে যদি চোট বাড়ে, সে ক্ষেত্রে হয়তো উইম্বলডনে তিনি অংশ নিতে পারবেন না।  আর এই বছর কোনও ভাবেই উইম্বলডন হাতছাড়া করতে চাইছেন না ফেডেরার। সে কারণেই সম্ভবত মাঝ পথেই রোলাঁ গারোকে বিদায় জানাতে পারেন ফেডেক্স।

বন্ধ করুন