বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > বহু ঝামেলার পরে, অজি ক্রীড়ামন্ত্রীর সাহায্যে অবশেষে শহরে এলেন ATK MB-র উইলিয়ামস
ডেভিড উইলিয়ামস।
ডেভিড উইলিয়ামস।

বহু ঝামেলার পরে, অজি ক্রীড়ামন্ত্রীর সাহায্যে অবশেষে শহরে এলেন ATK MB-র উইলিয়ামস

  • এটিকে এমবি-র স্ট্রাইকারের অস্ট্রেলিয়া থেকে কলকাতায় আসার পিছনে বড় ভূমিকা নিয়েছিলেন ও দেশের ক্রীড়ামন্ত্রী রিচার্ড কোলবেক। এটিকে মোহনবাগান তো তাদের প্লেয়ারকে আনার জন্য সব রকম চেষ্টা চালাবে, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু অজি ক্রীড়ামন্ত্রী উদ্যোগী না হলে হয়তো সবুজ-মেরুন জার্সি পরে খেলাই হত না উইলিয়ামসের।

ডেভিড উইলিয়ামসের শহরে আসা নিয়ে নানা সমস্যা দেখা দিয়েছিল। অস্ট্রেলিয়ার সরকারের কড়া করোনা বিধির কারণে সমস্যায় পড়তে হয়েছিল এটিকে মোহনবাগানের তারকা প্লেয়ারকে। এমন কী শোনা যাচ্ছিল, যদি তিনি কলকাতায় আসতে না পারেন, তা হলে তাঁকে রিলিজ করে দেবেন সবুজ-মেরুন কর্তারা। শেষ পর্যন্ত অবশ্য সব ঝামেলা মিটিয়ে শহরে চলে এসেছেন ডেভিড উইলিয়ামস।

তবে এটিকে এমবি-র স্ট্রাইকারের অস্ট্রেলিয়া থেকে কলকাতায় আসার পিছনে বড় ভূমিকা নিয়েছিলেন ও দেশের ক্রীড়ামন্ত্রী  রিচার্ড কোলবেক। এটিকে মোহনবাগান তো তাদের প্লেয়ারকে আনার জন্য সব রকম চেষ্টা চালাবে, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু অজি ক্রীড়ামন্ত্রী উদ্যোগী না হলে হয়তো সবুজ-মেরুন জার্সি পরে খেলাই হত না উইলিয়ামসের।

এই মুহূর্তে করোনার জন্য অস্ট্রেলিয়ায় খুবই কড়া নিয়ম। তারা যেমন বাইরে থেকে তাদের দেশে কাউকে ঢুকতে দেওয়ার আগে প্রচুর নিয়মের তালিকা তৈরি করে রেখেছে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই অবশ্য বাইরের দেশের কাউকে সে ভাবে অস্ট্রেলিয়ায় ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। আর অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকদেরও করোনাপ্রবণ দেশে যাওয়ার বিষয়ে অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। যে কারণে আসতে পারছিলেন না ডেভিড উইলিয়ামস। ছাড়পত্র না পাওয়ার জন্য পাঁচ বার বিমানবন্দর থেকে ঘুরে গিয়েছেন তিনি।

এই অবস্থায় এটিকে মোহনবাগানের তরফে অস্ট্রেলিয়ার ক্রীড়াদফতরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। এর পরেই ক্রীড়ামন্ত্রী রিচার্ড কোলবেক উদ্যোগ নিয়ে কথা বলেন সে দেশের বিদেশমন্ত্রকের সঙ্গে। বিদেশমন্ত্রক অবশেষে বিশে ছাড়পত্র দিলে ভারতের আসার বিমানে ওঠেন ডেভিড উইলিয়ামস। ডেভিড দলে যোগ দেওয়ায় স্বস্তি পেয়েছেন এটিকে মোহনবাগান কোচ আন্তোনিও লোপেজ হাবাসও।

বন্ধ করুন