বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > ঘরের মাঠে এগিয়ে গিয়েও আবার হারল ইস্টবেঙ্গল, ঋত্বিকের গোলে জিতল জামশেদপুর

ঘরের মাঠে এগিয়ে গিয়েও আবার হারল ইস্টবেঙ্গল, ঋত্বিকের গোলে জিতল জামশেদপুর

ঋত্বিকের গোলে জিতল জামশেদপুর (ছবি-টুইটার আইএসএল)

বাঙালি ঋত্বিকের গোলেই হেরে গেল ইস্টবেঙ্গল। ঘরের মাঠে ফের হারল ইস্টবেঙ্গল আবারও ম্যাচে এগিয়ে থেকে হারতে হল লাল হলুদ বাহিনীকে। শুক্রবার জামশেদপুর এফসি-র কাছে ১-২ গোলে হারল ইস্টবেঙ্গল। ক্লেটন সিলভা প্রথমার্ধে লাল-হলুদকে এগিয়ে দিলেও দ্বিতীয়ার্ধে গোল করেন সয়ার এবং ঋত্বিক দাস।

বাঙালি ঋত্বিকের গোলেই হেরে গেল ইস্টবেঙ্গল। ঘরের মাঠে ফের হারল ইস্টবেঙ্গল আবারও ম্যাচে এগিয়ে থেকে হারতে হল লাল হলুদ বাহিনীকে। শুক্রবার জামশেদপুর এফসি-র কাছে ১-২ গোলে হারল ইস্টবেঙ্গল। ক্লেটন সিলভা প্রথমার্ধে লাল-হলুদকে এগিয়ে দিলেও দ্বিতীয়ার্ধে গোল করেন সয়ার এবং ঋত্বিক দাস। ইস্টবেঙ্গলের কোচ স্টিভন কনস্ট্যান্টাইন এই ম্যাচের আগেই বলেছিলেন, চাকরি বাঁচাতে তাঁকে এই ম্যাচটা জিততেই হবে। দেখা গেল, সেই পুরানো রোগ থেকে তাঁর দল বেরিয়ে আসতে পারল না। ২০ ম্যাচের লিগে ১৩টি ম্যাচ খেলে ফেলেছে ইস্টবেঙ্গল। ১৩ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে ইস্টবেঙ্গল থাকল নয় নম্বরেই। এদিনের জয়ের পরেও লিগ টেবিলে ইস্টবেঙ্গলের নীচেই থাকল জামশেদপুর। তাদের পয়েন্ট ৯।

আরও পড়ুন… সৌদি আরবে মেসি-রোনাল্ডোর দ্বৈরথ ঘিরে উন্মাদনা তুঙ্গে, টিকিটের দাম উঠল ২৬ কোটি

এদিনের ম্যাচে যুবভারতী স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু হতেই আক্রমনে ওঠে ইস্টবেঙ্গল। বক্সের বা দিক দিয়ে বল পেয়ে ঢুকে যান, ইস্টবেঙ্গল উইঙ্গার মহেশ। তিনি গোলে শট নেন এবং দুর্ধর্ষ সেভ করলেন জামশেদপুর গোলকিপার বিশাল যাদব। কিন্তু বল আটকালেও তার হাত থেকে গড়িয়ে যায়, এবং সুযোগের সদ্ব্যবহার করে বল গোলে ঢুকিয়ে দেন ক্লেটন সিলভা। এই নিয়ে এবারের লিগে ৯ গোল হয়ে গেল তাঁর।

এগিয়ে গিয়ে কী ভাবে ম্যাচ জিততে হয়, শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত কী ভাবে এক ধরনের খেলা চালিয়ে যেতে হয়, সেটা এখনও দলের ছেলেদের শেখাতেই পারলেন না কনস্ট্যান্টাইন। ডিফেন্সের ভুলে দু’টি এমন গোল ইস্টবেঙ্গল খেল, যা ক্ষমার অযোগ্য। গোল খাওয়ার পর থেকেই ইস্টবেঙ্গলকে চেপে ধরে জামশেদপুর। তাদের স্ট্রাইকার চিমা চুকু বেশ কয়েকবার আঘাত হানার চেষ্টা করেন নিজের পুরনো দল ইস্টবেঙ্গল গোলে। কিন্তু প্রথমার্ধে তাদের লিড বজায় রাখতে সফল হয়েছিল ইস্টবেঙ্গল।

আরও পড়ুন… মাত্র ২৮ বছর বয়সেই জীবনাবসান হিমাচলের ক্রিকেটার সিদ্ধার্থ শর্মার

দ্বিতীয়ার্ধে গোল পাওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে পড়ে জামশেদপুর। দ্বিতীয়ার্ধে হ্যারি সয়ারকে নামান জামশেদপুরের কোচ এডি বুথরয়েড। তাতেই সাফল্য পায় জামশেদপুর। সয়ার নামার তিন মিনিটের মধ্যে সমতা ফেরে জামশেদপুর। লালডিনলিয়ানার ক্রস সামলাতে পারেনি ইস্টবেঙ্গলের রক্ষণ। সয়ার বলের কাছেই ছিলেন। সুযোগ বুঝে গোল করে দেন তিনি। জামশেদপুরের দ্বিতীয় গোলটি করেন ঋত্বিক। ম্যাচের ৮৫ মিনিটে ইস্টবেঙ্গলের বক্সে জার্মানপ্রীত সিংয়ের ক্রসে ছুটে এসে হেডার দিয়ে গোলে বল ঢুকিয়ে দিলেন ঋত্বিক দাস।

ম্যাচ শেষে লাল হলুদ কোচ স্টিফেন অবশ্য জানালেন দলের খেলায় অভিজ্ঞতার ছাপ স্পষ্ট। তবে তিনি আশাবাদী জেক জার্ভিস ম্যাচ খেলার অনুমতি পেলে ইস্টবেঙ্গল দলটার চেহারা বদলে যাবে। এদিকে ১৩ ম্যাচের পর মাত্র ১২ পয়েন্ট ইস্টবেঙ্গলের। ৭ ম্যাচ বাকি থাকতে ইস্টবেঙ্গলের একমাত্র লক্ষ্য টেবিলের প্রথম ছয়টি দলের মধ্যে শেষ করা।

বন্ধ করুন