বাংলা নিউজ > ময়দান > Jhulan Goswami and Harmanpreet Kaur: আর খেলবে না 'ঝুলুদি' - কেঁদে ফেললেন হরমন, নিয়ে আসলেন টসের সময়, ভাইরাল ভিডিয়ো

Jhulan Goswami and Harmanpreet Kaur: আর খেলবে না 'ঝুলুদি' - কেঁদে ফেললেন হরমন, নিয়ে আসলেন টসের সময়, ভাইরাল ভিডিয়ো

'ঝুলুদি' খেলবে না আর - কেঁদে ফেললেন হরমনপ্রীত কৌর, দিদির স্নেহ ঝুলন গোস্বামীর। (ছবি সৌজন্যে, টুইটার @BCCIWomen)

Jhulan Goswami and Harmanpreet Kaur: ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে ঝুলন গোস্বামীর হাতে বিশেষ স্মারক তুলে দেওয়া হয়। ঝুলনের পাশেই দাঁড়িয়েছিলেন হরমনপ্রীত কৌর। অঝোরে কেঁদে ফেলেন ভারতীয় দলের অধিনায়ক। সেইসময় ‘দিদি’-র মতো হরমনের কাঁধ চাপড়ে দেন ঝুলন।

ঝুলন গোস্বামীর শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচে আবেগে ভেসে গেলেন হরমনপ্রীত কৌর। ‘চাকদা এক্সপ্রেস’-কে বিশেষ স্মারক প্রদানের সময় অঝোরে কাঁদলেন ভারতীয় দলের ‘স্ট্রং’ অধিনায়ক। যিনি টসের সময় ‘ঝুলুদি’-কে লর্ডসের মাঠে নিয়ে আসেন। সেই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

শনিবার লর্ডসে নিজের আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের শেষ ম্যাচ খেলতে নেমেছেন ঝুলন। ‘ঝুলুদি’-র জন্য যে সিরিজটা জিততে সর্বস্ব উজাড় করে দেওয়ার কথা প্রথম থেকেই বলে আসছিলেন হরমন, স্মৃতি মন্ধানারা। সেই কাজটা করেও ফেলেছেন তাঁরা। সেই পরিস্থিতিতে লর্ডসে নিয়মরক্ষার ম্যাচটা আরও বেশি করে ‘ঝুলুদি’ স্পেশাল ম্যাচ হয়ে উঠেছে হরমনদের কাছে।

(IND vs ENG: ভারত বনাম ইংল্যান্ড ম্যাচের লাইভ আপডেট দেখুন - ক্লিক করুন এখানে)

ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে ঝুলনের হাতে বিশেষ স্মারক তুলে দেওয়া হয়। সেইসময় হাজির ছিল পুরো ভারতীয় দল। ঝুলনের পাশেই দাঁড়িয়েছিলেন হরমন। অঝোরে কেঁদে ফেলেন ভারতীয় দলের অধিনায়ক। সেইসময় ‘দিদি’-র মতো হরমনের কাঁধ চাপড়ে দেন ঝুলন। তারপর জড়িয়ে ধরে নিজের বুকে টেনে নেন হরমনকে। সেইসময় দেখে মনে হচ্ছিল, ‘বোন’-কে সান্ত্বনা দিচ্ছেন ‘দিদি’। সেই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

শুধু তাই নয়, টসের সময় ঝুলনকে নিয়ে আসেন হরমন। যে লর্ডসের মাঠে ২০১৭ সালের বিশ্বকাপে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল ভারতের। জেতা ম্যাচে হেরে গিয়েছিলেন ঝুলনরা। ইংল্যান্ডের অধিনায়ক অ্যামি জোনস এবং হরমনের মধ্যে দাঁড়িয়েছিলেন ভারতীয় পেসার। কোনও কথা বলেননি হরমন। ঝুলনই ধারাভাষ্যকারের সঙ্গে কথা বলেন। হরমনের যে কীর্তি মন জিতে নিয়েছে নেটিজেনদের।

টসের সময় হরমন এবং স্মৃতির ভূয়সী প্রশংসা করেন ঝুলন। তিনি বলেন, ‘আমায় আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। কারণ ক্রিকেটের মাঠে আমি আবেগ নিয়ে নামতে পারি না। আমার চরিত্রটা বরাবরই কঠিন। আপনাকে কঠোরভাবে ক্রিকেট খেলতে হবে এবং নিজের সেরাটা উজাড় করে দিতে হবে। হরমন, স্মৃতির মতো সতীর্থরা আমায় দেখেছে। আমার ভালো সময়, খারাপ সময় দেখেছে। সেই ভালো সময়, খারাপ সময় আমরা একসঙ্গে লড়াই করেছি এবং একে অপরের সঙ্গে থেকেছি।’ সঙ্গে তিনি বলেন, ‘হরমন এবং স্মৃতি যেভাবে এই দলটাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে, তাতে আমি খুব আনন্দিত। যেভাবে হরমন ব্যাটিং করছে, দুর্দান্ত। ও একেবারে আলাদা। ওর দিনে ওকে আউট করা মারত্মক কঠিন।’

বন্ধ করুন