বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > 'বাবলে থাকলে ব্র্যাডম্যানেরও গড় কমত', বিদায় বেলায় ছাত্রদের 'ঢাল' গুরু শাস্ত্রী
রবি শাস্ত্রী (ফাইল ছবি : পিটিআই)
রবি শাস্ত্রী (ফাইল ছবি : পিটিআই)

'বাবলে থাকলে ব্র্যাডম্যানেরও গড় কমত', বিদায় বেলায় ছাত্রদের 'ঢাল' গুরু শাস্ত্রী

  • বিদায় বেলায় আইসিসি ও ক্রিকেট বোর্ডকে শাস্ত্রীর শতর্কবাণী, 'খেলোয়াড়রা তো আর পেট্রলে চলে না।'

'নাম ব্র্যাডম্যান হলেও বাবলে থাকলে গড় কমতে বাধ্য।' ভারতীয় দলে নিজের ছাত্রদের হয়ে শেষ মুহূর্তেও সাফাই গাইলেন বিদায়ী কোচ রবি শাস্ত্রী। গতকাল টি-২০ বিশ্বকাপে নামিবিয়ার বিরুদ্ধে নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলে ভারত। প্রসঙ্গত, কোহলি-শাস্ত্রী জুটির শেষ ম্যাচ ছিল এটা। তুলনামূলক দুর্বল প্রতিপক্ষ নামিবিয়াকে হারিয়ে বিশ্বকাপ যাত্রা শেষ করে ভারত। আর তারপরই আবেগের সুর ঝরা পড়ে শাস্ত্রীর গলায়। ভারতীয় দলের হয়ে নিজের শেষ টুর্নামেন্টটি স্বভাবতই জিততে চেয়েছিলেন তিনি। তবে কঠিন বাস্তব মেনে নিতে হয়। এর আগে বায়ো বাবলে থাকার জেরে খেলার উপর প্রভাবের বিষয় নিয়ে সরব হয়েছিলেন জসপ্রীত বুমরাহ থেকে শুরু করে রোহিত শর্মা। অনেকেরই সেই বিষয়টি অজুহাত মনে হয়। তবে এবার ভারতীয় দলের বিদায়ী কোচের গলাতেও শোনা যায় বায়ো বাবলের ক্লান্তি প্রসঙ্গ।

সুপার ১২ রাউন্ডে পরপর তিন ম্যাচে দুরন্ত জিত পেয়েও টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যায় ভারত। নয় বছর পর ভারত কোনও আইসিসি টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালেই পৌঁছতে পারল না। আর এই প্রসঙ্গে শাস্ত্রীর সোজা সাপ্টা বক্তব্য, 'একটা কথাই বলব, এটা কোনও অজুহাত নয়, এটা বাস্তব। যখন আপনি একটি বাবলে ছয় মাস… এই দলের অনেক খেলোয়াড় আছেন যাঁরা তিনটি ফরম্যাটেই খেলে। গত ২৪ মাসে, তাঁরা ২৫ দিন বাড়িতে থাকতে পেরেছে। আপনি কে তা এতে যায় আসে না। আপনার নাম যদি ব্র্যাডম্যানও হয়, আপনি যদি বাবলে থাকেন, তাহলে আপনার গড় কমে আসতে বাধ্য কারণ আপনি মানুষ।'

২০১৭ সালের ১৩ জুলাই ভারতীয় দলের কোচ হিসেবে নিযুক্ত হয়েছিলেন শাস্ত্রী। এর আগে ২০১৪ সাল থেকে ভারতীয় দলের ডিরেক্টর ছিলেন রবি। শাস্ত্রীর কোচিংয়ে সাফল্য-ব্যর্থতা সবটাই মিলেমিশে এসেছে। তাঁর কোচিংয়ে ভারত ৪৩টি টেস্ট খেলে ২৫টিতে জিতেছে। ১৩টি ম্যাচ হেরেছে। ৫টি ড্র হয়েছে। কোচ শাস্ত্রীর অধীনে ৭৬টি ম্যাচ একদিনের ম্যাচ খেলে ৫১টি জিতেছে ভারত। ২২টি ম্যাচ হেরেছে। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ক্ষেত্রে আবার তাঁর কোচিংয়ে ৬৫টি ম্যাচ খেলে ৪৩টি ম্যাচ জিতেছে ভারত। ১৮টি ম্যাচ হেরেছেন কোহলিরা। তবে তাঁর সময়কালে ভারত কোনও আইসিসি টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি। এই টি-২০ বিশ্বকাপটি জিতে তাই সেই পরিসংখ্যান বদল করতে চেয়েছিলেন শাস্ত্রী নিজেও। তবে তা হয়নি। টি-২০ বিশ্বকাপে ভারতের ব্যর্থতার জন্য কোচ শাস্ত্রীর দিকেও আঙুল উঠছে। শাস্ত্রী এই বিষয়ে বলেন, 'আপনি যা অর্জন করেছেন সেটা বিষয় নয়, আপনি কোন প্রতিকূলতা কাটিয়ে উঠেছেন সেটা দেখার বিষয় এবং এই দলটি সেটাই করে দেখিয়েছে। তাঁরা টিকে থাকার মানসিকতা দেখিয়েছে, কোনও অভিযোগ ছিল না তাঁদের মধ্যে। কিন্তু এখনই হোক বা পরে এই বাবল ফেটে যাবে তাই আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে। খেলোয়াড়রা তো আর পেট্রলে চলে না।'

 

বন্ধ করুন