বাংলা নিউজ > ময়দান > ISL 2020-21: ‘তোমার স্বভাবের বিষয়ে আমি জানি’, ঝিঙ্গানের পাশে দাঁড়ালেন ‘লাথি’ খাওয়া বিক্রম
সেই দৃশ্য। (ছবি সৌজন্য ইনস্টাগ্রাম ভিডিয়ো)
সেই দৃশ্য। (ছবি সৌজন্য ইনস্টাগ্রাম ভিডিয়ো)

ISL 2020-21: ‘তোমার স্বভাবের বিষয়ে আমি জানি’, ঝিঙ্গানের পাশে দাঁড়ালেন ‘লাথি’ খাওয়া বিক্রম

  • ঝিঙ্গানের সমর্থনে মুখ খুলেছেন মুম্বই সিটি এফসির গোলরক্ষক অমরিন্দর সিংও।

সন্দেশ ঝিঙ্গানের ‘লাথি’ বিতর্ক থামার কোনও লক্ষণ নেই। এমনকী সন্দেশকে শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে বলে বিভিন্ন মহল থেকে দাবি করা হচ্ছে। যদিও এটিকে-মোহনবাগানের ডিফেন্ডারের পাশে দাঁড়িয়েছেন খোদ বিক্রমপ্রতাপ সিং। ঝিঙ্গানের সমর্থনে মুখ খুলেছেন মুম্বই সিটি এফসির গোলরক্ষক অমরিন্দর সিংও। 

গত মঙ্গলবার ইনস্টাগ্রামে মুম্বইয়ের বিক্রমপ্রতাপকে ‘লাথি’ মারার দৃশ্যটি পোস্ট করেন ঝিঙ্গান। সঙ্গে লেখেন, ‘কোনও একজন খেলোয়াড়কে লাথি মারা এবং সে ঠিক আছে কিনা, দেখার জন্য বন্ধুত্বপূর্ণভাবে টোকা দেওয়ার মধ্যে পার্থক্য আছে। বিশেষত বিক্রমপ্রতাপ সিংকে আমি অত্যন্ত ভালোভাবে চিনি। যাঁর সঙ্গে আমি অনুশীলন করেছি। তাই কথা বলার আগে ভেবেচিন্তে নেওয়াটা মনে হয় ভালো। আর নিজের মধ্যে যে নেতিবাচকতা আছে, তা ছড়িয়ে দেবেন না।’

সোমবার মুম্বই সিটির বিরুদ্ধে হারছিল সবুজ-মেরুন। খেলার শেষ লগ্নে মাটিতে পড়ে যান বিক্রম। তা নিয়ে মুম্বইয়ের খেলোয়াড়রা প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন। তাঁদের সামলাচ্ছিলেন রেফারিরা। সেই সময় বিক্রমপ্রতাপকে পা দিয়ে টোকা মারেন ঝিঙ্গান। তারপর থেকেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। বিপক্ষের খেলোয়াড়কে ‘লাথি’ মারার জন্য ঝিঙ্গানকে শাস্তি দেওয়ার দাবি করা হচ্ছে। মুম্বইয়ের তরফেও অভিযোগ জমা পড়েছে। তারপরই নিজের সমর্থনে ইনস্টাগ্রামে সেই ঘটনার ভিডিয়ো পোস্ট করেন ঝিঙ্গান।

সেই পোস্টের পর অনেকে ঝিঙ্গানের পাশে দাঁড়ান। অনেকে আবার অনেকে ভারতীয় ডিফেন্ডারের সমালোচনা করেন। তবে যে বিক্রমপ্রতাপকে ‘লাথি’ মেরেছিলেন ঝিঙ্গান, তিনি সেই পোস্টে লেখেন, ‘সবকিছু ঠিক আছে পাজি, এটা খেলারই অংশ। এটা একেবারেই ইচ্ছাকৃত ছিল না। আমরা একসঙ্গে অনুশীলন করেছি। তাই তোমার স্বভাবের বিষয়ে আমি ভালোভাবে অবহিত।’  ঝিঙ্গানের পাশে দাঁড়ান মুম্বইয়ের গোলরক্ষকও। তিনি বলেন, ‘ভাই, যাঁরা তোমায় ঘৃণা করেন বা তোমায় নিয়ে ঈর্ষান্বিত, তাঁরা সর্বদা কিছু না কিছু নেতিবাচক খুঁজে পায়। আমরা সবাই জানি যে কোনও ফুটবলার অপর ফুটবলারকে আঘাত করতে চায় না। আমরা চণ্ডীগড়ে একসঙ্গে অনুশীলন করেছি। তাই লোকজন আমাদের বন্ধুত্ব বুঝবে না।’

বন্ধ করুন