বাংলা নিউজ > ময়দান > টোকিও অলিম্পিক্স > অনুমতি পাননি ব্যক্তিগত কোচ, জাতীয় কোচ সৌম্যদীপের প্রশিক্ষণ নিতে অস্বীকার মণিকার
মণিকা বাত্রা। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
মণিকা বাত্রা। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

অনুমতি পাননি ব্যক্তিগত কোচ, জাতীয় কোচ সৌম্যদীপের প্রশিক্ষণ নিতে অস্বীকার মণিকার

  • জাতীয় দলের কোচ সৌম্যদীপ রায়ের প্রশিক্ষণ নিতে অস্বীকার করেছেন মণিকা।

শুভব্রত মুখার্জি

ভারতীয় টেবিল টেনিসের জগতে এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে অন্যতম স্টার মণিকা বাত্রা। পঞ্জাবের দীর্ঘকায় এই তরুণী টোকিও অলিম্পিক্সে তাঁর অভিযান শুরু করেছেন বেশ ভালোভাবেই । ৪-০ ব্যবধানে ব্রিটেনের প্রতিপক্ষ টিনটিন হো'কে হারিয়ে মহিলা সিঙ্গেলসের পরের রাউন্ডে চলে গিয়েছেন তিনি। তবে একটা বিষয়, তাঁর ম্যাচ চলাকালীন কারও চোখ এড়ায়নি। ম্যাচ চলাকালীন সাধারণত কোর্টের পাশে চেয়ারে প্রতিযোগীদের কোচদের তাঁদেরকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিতে দেখা যায়। কিন্তু মণিকার ক্ষেত্রে তার ব্যতিক্রম ঘটতে দেখা যায়। তার ম্যাচ চলাকালীন কোচের চেয়ার একেবারেই ফাঁকা ছিল।

(টোকিয়ো অলিম্পিক্স ২০২০-এর যাবতীয় খবর, আপডেটের জন্য চোখ রাখুন -- এখানে)

এর নেপথ্য কারণ হিসেবে জানা যায়, জাতীয় দলের কোচ সৌম্যদীপ রায়ের প্রশিক্ষণ নিতে অস্বীকার করেছেন মণিকা। একটি মহলের দাবি, ব্যক্তিগত কোচকে কোর্টের পাশে রাখার দাবি করেছিলেন মণিকা। যা জাপানের আয়োজকদের তরফে অস্বীকার করা হয়। ভারত থেকে জাপানে সন্ময়ের উড়ে যাওয়ার অনুমতি পাওয়া নিয়েই বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। তাঁকে গেমস ভিলেজে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি। তিনি হোটেলে থাকছেন। তাঁকে একমাত্র অনুশীলনে থাকার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

টিম লিডার এবং টিটিএফআইয়ের পরামর্শদাতা বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, বিশ্ব ক্রমতালিকায় ৬২ নম্বরে থাকা মণিকা তাঁর ব্যক্তিগত কোচের অ্যাক্রিডিটেশনেরআবেদন জানিয়েছিলেন। যা খারিজ করা হয়। তবে ২০০৬ কমনওয়েলথ গেমসে টিটিতে সোনাজয়ী ভারতী। দলের সদস্য তথা বর্তমান ভারতীয় টিটি দলের কোচ সৌম্যদীপ রায়কে শরথ কমল ও মণিকা বাত্রার মিক্সড ডাবলস ম্যাচে কোর্টের পাশে উপস্থিত থাকতে দেখা যায়।

বন্ধ করুন